ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

আসছে গুগলের নতুন ফোন পিক্সেল ২ : কি কি থাকতে পারে এই ফোনে?

গত বছরই গুগল সিদ্ধান্ত নেয় যে এবার তারা বসে না থেকে অন্যান্য স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলোর সাথে পাল্লা দিয়ে নিজেরাও এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন তৈরি করবে। গুগলের বিশ্বাস ছিল, পৃথিবীর সবথেকে জনপ্রিয় স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেম এখন যেহেতু তাদের দখলে, তাই তারা এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন মার্কেটেও বেশ ভালভাবেই অন্যদের সাথে পাল্লা দিতে পারবে। এখন বলতে পারেন যে গুগল গত বছরের আগেও স্মার্টফোন তৈরি করত।

ADs by Techtunes ADs

না, আপনি যদি ভেবে থাকেন গুগলের যেসব ফোনের কথা আমরা শুনে আসছি, যেমন, নেক্সাস ৫, নেক্সাস ৫এক্স, নেক্সাস ৬পি ইত্যাদি ফোনগুলো সম্পূর্ণভাবে গুগলের তৈরি তাহলে আপনি অনেকটাই ভুল ভাবছেন। এসব স্মার্টফোনে যে সফটওয়্যার বা অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে, সেটাই শুধুমাত্র গুগলের তৈরি। স্মার্টফোনগুলোকে গুগল অন্যান্য স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে তাদের দ্বারা তৈরি করিয়ে নিত। যেমন নেক্সাস ৫ ছিল Motorola এর তৈরি, ৫এক্স ছিল LG এর তৈরি, নেক্সাস ৬পি ছিল Huawei এর তৈরি।

এবার গত ২০১৬ সালের অক্টোবরে গুগল সিদ্ধান্ত নেয় যে স্মার্টফোন তৈরি করার জন্য তাদের আর অন্য কোন কম্পানির সাহায্য নিলে চলবে না এবং তাদের নিজেদের প্রথম দুটি ফোন, গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সএল বাজারে আনে। এই দুটি ফোনই ছিল পৃথিবীর প্রথম সম্পূর্ণভাবে গুগলের তৈরি স্মার্টফোন। এই ফোনদুটির হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার এই ২ টি অংশই সম্পূর্ণ গুগলের তৈরি ছিল যদিও ফোনদুটি HTC এর ডিজাইন করা।

এই ২ টি ফোনই ছিল ২০১৬ সালের সবথেকে মেজর ২ দুটি হাই এন্ড ফ্লাগশিপ মোবাইল এবং এর দামও ছিল অন্যান্য ফ্ল্যাগশিপ মোবাইল যেমন আইফোন ৭ বা গ্যালাক্সি এস ৭ এর প্রায় সমান এবং কোন কোন ক্ষেত্রে তার থেকেও বেশি। এখানে উল্লেখ্য পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সএল স্মার্টফোন দুটির মধ্যে ডিসপ্লে সাইজ এবং ব্যাটারি সাইজ ছাড়া আর কোন পার্থক্য ছিল না। গুগলের প্রথম ফ্ল্যাগশিপ ফোন হওয়ায় টেক জগতে এই ফোন দুইটি বেশ ভালই সাড়া ফেলেছে।

বর্তমানে একটি স্মার্টফোনকে সবদিক থেকে ভাল বলতে হলে এর ৫ টি বিষয় বিবেচনা করতে হয়।

১. ভাল ডিজাইন ও বিল্ড কোয়ালিটি   ২. ভাল ডিসপ্লে  ৩. ভাল পারফরমেন্স  ৪. ভাল ক্যামেরা  ৫. ভাল ব্যাটারি লাইফ

গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সএল এই সবদিক থেকেই প্রায় ওয়ান অফ দ্যা বেস্ট ছিল যখন এটি রিলিজ হয়েছিল যদিও এর ডিজাইন নিয়ে অনেকে খুশি ছিলেন না। সেই সুত্র ধরেই এখন ২০১৭ সালে গুগল রিলিজ করতে চলেছে তাদের আরো দুইটি স্মার্টফোন। কিন্তু এই দুটি স্মার্টফোনের আলাদা কোন নাম থাকবে কিনা তা এখনও নিশ্চিতভাবে জানা যায়নি।

এখনও পর্যন্ত এই আপকামিং ফোনদুটিকে গুগল পিক্সেল ২ এবং পিক্সেল ২ এক্সএল নামে ডাকা হচ্ছে। আশা করা হচ্ছে এই দুইটি ফোনও আগের দুটির মত যথেষ্ট সাড়া ফেলবে। এই টিউনে আপকামিং এই দুইটি ফোন সম্পর্কে যা বলা হবে সবই শুধুমাত্র এক্সপেক্টেশন এবং ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করা ইনফরমেশন।

কারন এই ফোন দুটি সম্পর্কে গুগল এখনো অফিশিয়ালি তেমন কিছু জানায়নি। তো চলুন দেখা যাক কি কি থাকতে পারে গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল ২ স্মার্টফোনে এবং কি কি ইম্প্রুভ হতে পারে আগের থেকে।

বিঃদ্রঃ এই টিউনে যতগুলো স্মার্টফোনের ছবি দেওয়া হয়েছে, সবগুলোই গত বছরের গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সএল এর ছবি। পিক্সেল ২ এর ছবি দেওয়া সম্ভব নয় কারন তা এখনো রিলিজ হয়নি। 

ADs by Techtunes ADs

আকর্ষণীয় ডিজাইন

সম্ভবত এটিই শুধুমাত্র গত বছরের গুগল পিক্সেল ফোনের একটি খারাপ বিষয় ছিল। গুগল পিক্সেলের মেটাল এবং গ্লাসের তৈরি ডুয়াল টোন ডিজাইন অনেকের কাছেই ভাল লাগেনি। অনেকেই শুধুমাত্র " বোরিং " ডিজাইন এর কারনেই এই ফোনটি কেনার কথা ভেবেও কেনেন নি।

যদিও আমার কাছে স্মার্টফোনের ডিজাইন খুব একটা বড় বিষয় মনে হয়না কখনোই। কিন্তু অনেকের কাছেই স্মার্টফোন কেনার সময় স্মার্টফোনের ডিজাইন এবং বিল্ড কোয়ালিটিই সবথেকে বড় ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। তাই এবছরের পিক্সেল ২ স্মার্টফোনে গুগল তাদের স্মার্টফোন দুটিকে আরো ভালভাবে এবং আকর্ষণীয়ভাবে ডিজাইন করতে পারে।

আরো ভাল ডিসপ্লে

গত বছর যখন গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্স এল রিলিজ হয়, তখন এটির ডিসপ্লে ছিল ২০১৬ এর সবথেক বেস্ট স্মার্টফোন ডিসপ্লে। যদিও ২০১৭ সালে রিলিজ হওয়া স্যামসাঙ গ্যালাক্সি এস৮ স্মার্টফোনের ডিসপ্লে গুগল পিক্সেল এর থেকে আরো ভাল। তাই আমরা এবছর পিক্সেল ২ রিলিজের সাথে সাথে আরো ভাল একটি ডিসপ্লে আশা করতেই পারি।

আরো ভাল স্পেসিফিকেশনস (Specs)

গত বছরের গুগল পিক্সেল যখন রিলিজ হয় তখন এটি ছিল পৃথিবীর সবথেকে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে একটি। এই স্মার্টফোনেই সর্বপ্রথম Snapdragon 821 চিপসেট ব্যবহার করা হয়। এছাড়া পিক্সেলের হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার এবং অপটিমাইজেশনের কারনে এখনও পর্যন্ত গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সএল পৃথিবীর সবথেকে ফাস্ট এবং সবথেকে স্মুথ এন্ড্রয়েড ডিভাইস।

পিক্সেল ২ এবং পিক্সেল ২ এক্সএল ডিভাইসদুটিতে থাকবে Snapdragon 835 চিপসেট এবং Adreno 540 জিপিইউ  যার সাথে থাকবে ৮ জিবি র্যাম  যা বর্তমানে স্যামসাঙ গ্যালাক্সি এস৮, শাওমি মি৬, ওয়ানপ্লাস ৫ এবং এইচটিসি ইউ১১ স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ চিপসেটটিই বর্তমানে পৃথিবীর সবথেকে পাওয়ারফুল চিপসেট। এর পরের পিক্সেল ফোনে এই ফাস্ট এবং স্মুথনেস এর ফিচারটিরই পুনরাবৃত্তি হবে আশা করা যায় এবং পিক্সেল ২ হতে পারে আগের পিক্সেল ফোনের থেকে এবং বর্তমানে পৃথিবীর যেকোনো এন্ড্রয়েড ডিভাইসের থেকে আরো বেশি ফাস্ট এবং স্মুথ।

আগের থেকেও ভাল ক্যামেরা

আগের বছর গুগল পিক্সেল যখন রিলিজ হয় তখন গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সএল ফোনে ছিল পৃথিবীর যেকোনো স্মার্টফোনের থেকে অনেক ভাল ক্যামেরা অর্থাৎ গুগল পিক্সেলের ক্যামেরা ছিল সবথেকে বেস্ট। যদিও অনেক ক্ষেত্রে আইফোন ৭ পিক্সেলের থেকে ভাল ছবি তুলতে সক্ষম হয়েছিল।

ADs by Techtunes ADs

এছাড়া এরপর ২০১৭ সালে আরো কয়েকটি ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন রিলিজ হয় যেগুলো প্রায় অনেকসময় গুগলে পিক্সেলের থেকে ভাল বা পিক্সেল এর অনেক কাছাকাছি কোয়ালিটির ছবি দিতে সক্ষম হয়েছে। তবুও এখনো ভালো ক্যামেরার স্মার্টফোনের নাম বলতে হলে প্রথমদিকেই বলতে হয় গুগল পিক্সেল ফোনের নাম। তাই এটাও আশা করা যায় যে পরবর্তী পিক্সেল স্মার্টফোনে আগের থেকেও অনেক ভাল ক্যামেরা থাকবে এবং তা যথেষ্ট ভাল ছবি তুলতে সক্ষম হবে।

ওয়াটার রেসিস্ট্যান্স

আগের গুগল পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সএল এর কোনটিই অফিশিয়ালি ওয়াটার রেসিস্ট্যান্ট ফোন ছিল না। কিন্তু বর্তমানে নতুন যেসব স্মার্টফোন রিলিজ হচ্ছে তাদের প্রায় অনেকগুলোই ওয়াটার রেসিস্ট্যান্ট। তাই অন্যান্য ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের সাথে পাল্লা দিতে হলে পিক্সেল ২ স্মার্টফোনেও এই ফিচারটি থাকা উচিত।

এছাড়া পিক্সেল ২ এবং পিক্সেল ২ এক্সএল সম্পর্কে যেসব গুজব শোনা যাচ্ছে তা অনুযায়ী, ছোট মডেলটি অর্থাৎ পিক্সেল ২ এর ডিজাইন করবে HTC এবং বড় মডেলটি অর্থাৎ পিক্সেল ২ এক্সএল এর ডিজাইন করবে LG। এছাড়া পিক্সেল ২ এক্সএল ভারশনে থাকতে পারে Stereo স্পিকার যা আরো ভাল সাউন্ড দিতে সক্ষম হবে।

ছোট মডেলটির স্ক্রিন সাইজ হতে পারে ৪.৯৭ ইঞ্চি যার রেজুলেশন হবে ১০৮০পি। আর বড় মডেলটির স্ক্রিন সাইজ হবে ৫.৫ ইঞ্চি যার রেজুলেশন হবে ১৪৪০পি। এই দুটি ফোনই গুগল এনাউন্স করতে পারে এবছর অক্টোবর মাসে যদিও এর কোন অফিশিয়াল তথ্য পাওয়া যায়নি এখনো।

তো এই ছিল গুগল পিক্সেল ২ ফোনে কি কি থাকতে পারে তার একটি সম্ভাব্য তালিকা। আজকের মত টিউনটি এখানেই শেষ করছি। আশা করি টিউনটি আপনাদের ভাল লেগেছে। টিউন সম্পর্কে কোন ধরনের প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই টিউনমেন্ট করে জানাবেন। ভাল থাকবেন।

You can contact me on : Facebook 

ADs by Techtunes ADs

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি সিয়াম একান্ত। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 4 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 40 টি টিউন ও 82 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 8 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমার নাম সিয়াম রউফ একান্ত। অনেকে সিয়াম নামে চেনে আবার অনেক একান্ত নামে। যাইহোক, পড়াশুনা একেবারেই ভাল লাগেনা আমার। ভাল লাগার মধ্যে দুইটা জিনিস , ফটোগ্রাফি আর প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তির প্রতি ভাললাগা থেকেই টেকটিউন্স চেনা এবং টেকটিউন্সে আইডি খোলা। দেখা যাক কতদূর কি করা যায়......


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ এখন আর বিশাল ব্যাপার নয়, সামনে নোট ৮ এর সাথে স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৬ আসতে চলেছে। পার্সোনালি গুগল আমার অনেক পছন্দের একটি ব্যান্ড আর এরা সিম্পল আর কোয়ালিটি প্রোডাক্ট তৈরি করে, কিন্তু পিক্সেল লাইনে গুগলের সবচাইতে বোকামু এক দাম নিয়ে। আবার গুগল বলেও দিয়েছে, তারা সস্তা কোন ফোন বেড় করবে না।

এই প্রাইজ রেঞ্জে এসে কেন গুগল পিক্সেল কিনবে মানুষ, অ্যাপেল বা স্যামসাঙ কেন নয়? যেখানে সাওমি ওয়ানপ্লাস এতো কম দামে ফ্ল্যাগশিপ অফার করছে, সেগুলতে সমস্যা কোথায়।

গুগল হতে পারে পৃথিবীর ১ নং ওয়েবসাইট, কিন্তু তারা মোবাইলের ক্ষেত্রে এখনো অনেক পিছিয়ে, আর দামই তাদের প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে বলে আমি মনে করি।

টিউনের জন্য ধন্যবাদ 🙂