ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

মাইক্রোসফট অফিসের বাংলা পরিভাষার বৃত্তান্ত

এই লেখাটা অনেক পুরনো প্রসঙ্গ নিয়ে। বাংলা ভাষায় মাইক্রোসফট অফিসের প্রবর্তনের খবরটি আমার জানা ছিল না। এমন কি মাইক্রোসফটের যে বাংলাদেশী ওয়েব সাইট আছে সেটাও চোখে পড়েনি কখনও। আমি আবার উইন্ডোজ আর অফিস নিয়ে বরাবরই একটু পিছিয়ে থাকতে পছন্দ করতাম। উইন্ডোজ এক্স পি আর অফিস ২০০৩ নিয়ে ভালই ছিলাম। হঠাত কি যে হল, একটা রিভিও পড়ে মনে মনে ঠিক করলাম, উইন্ডোজ ৮ ইন্সটল করব। যেমন ভাবা তেমন কাজ। ওয়েবে এদিক সেদিক ঘোরাঘুরি করে উইন্ডোজ প্রো ইন্সটল, এমনকি পাকাপাকিভাবে একটিভেট করেও ফেললাম। লেটেস্ট অপারেটিং সিস্টেমই যখন ইন্সটল করলাম – অফিসটাই বা বাদ থাকে কেন। তাই, লেটেস্ট না হলেও, অফিস ২০১০ ও ইন্সটল করে ফেললাম। কি যেন একটা প্রয়োজনে গুগল করার কারনে, মাইক্রোসফটের বাংলাদেশী সাইটে যেয়ে পড়লাম, আর এখানেই দেখা হল, বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাক এর সাথে। আমার যেহেতু জানা ছিল না, তাই অনেক উত্তেজনা নিয়ে ডাউনলোড করে ইন্সটল করে ফেললাম বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাক। কিন্তু সত্যি বলতে কি, আমি যা দেখলাম তাতে হতাশ হয়েছি। মানলাম, বাংলায় উইন্ডোজ বা অফিসের বিভিন্ন মেনু বা কমান্ডের প্রতিশব্দ পাওয়া যাবে না, কিন্তু সাধারন মানুষের বোধগম্য ভাষান্তর না করলে ভাষান্তরের কোন মাহাত্যই থাকে না। মাইক্রোসফট অফিস যেহেতু একটি মূল্য সংযোজিত পণ্য (ওপেনঅফিস এর মত ফ্রি ওপেনসোর্স অ্যাপ্লিকেশন নয়), তাই যারা এর বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাক তৈরি করেছেন তারা নিশ্চয়ই পারিশ্রমিকের বিনিময়েই তা করেছেন। তাঁদের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা রেখেই বলছি, তাঁরা হয়তো তাঁদের কর্পোরেট দায়িত্বটি পালন করেছেন, কিন্তু আমার মনে হয় একজন বাংলাদেশী ও বাংলা ভাষাভাষী হয়ে তাঁরা মাতৃভাষার প্রচলন/বিস্তারে যথার্থ দায়িত্ব পালন করতে পারেননি। আমি এখানে আবারও ধরে নিচ্ছি, বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাকটি যেহেতু “বাংলা (বাংলাদেশ)” হিসেবে নামকরণকৃত, এর ডেভেলপার হবেন বাংলাদেশী কেউ বা কারা।

ADs by Techtunes ADs

ফাইল মেনু

ইনসার্ট মেনু

 

পেজ লে-আউট মেনু

ছবিগুলো থেকে বুঝতে পারছেন, বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাক সম্বলিত অফিস ব্যবহার করবার আগে আমাদের অফিস এর বাংলা পরিভাষার উপর মোটামুটি একটা কোর্স করে নিতে হবে। মাত্র কয়েকটি উদাহরণ দেখুনঃ

Home > আদ্যাবাস, Page Layout > পৃষ্ঠার বহির্বিন্যাস, References > প্রসঙ্গযোগ, Mailings > ডাক, Review > পুনর্বীক্ষন, Add-Ins > অন্তর্যোগ

ADs by Techtunes ADs

এই বাংলা কতজন বুঝবে আর কতজনের লাভ হবে, আমি জানিনা।

মাইক্রোসফট অফিসে বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাক প্রবর্তন হয়েছে সম্ভবত অফিস ২০০৭ থেকে। সেই ৯০ এর দশকের মাঝামাঝি থেকে যদি ধরি, তাহলে প্রায় দুই যুগ পরে আমরা বাংলায় অফিস পেয়েছি। এটা ছিল সর্বাধিক কথিত অন্যতম ভাষার প্রতি দারুন এক অবিচার। দেরীতে হলেও মাইক্রোসফট বাংলা ইন্টারফেসে অফিস এনেছে। ধন্যবাদ না দিলেও, তাদের প্রতি রাগটা একটু কমেছে। কিন্তু বাংলা ভাষার প্রতিশব্দ ব্যবহারের নমুনা দেখে আবার রাগটা বেড়ে গেল। আশা করি এর উন্নতি হবে।

ADs by Techtunes ADs
Level 2

আমি odrissho। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 11 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 96 টি টিউন ও 1058 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

jhetu, online version available, no need to install 600MB MS Office. 🙂

    Level 2

    @Anupom: কিন্তু অনলাইনের এক্সেস কয়জনেরই বা আছে ভাই?

আপনার কথাগুলো পড়লাম।কথাগুলোর যুক্তি আছে কিন্তু নিজেদের অবস্থানটুকুও পরিষ্কার হওয়া দরকার। আমরা সবকিছুতে বাংলা চাই কিন্তু নিজেরাই বাংলা ব্যবহার করিনা।যেমন ওরা হয়তো লিখলো “খোকা আরাম কেদারায় বসে আছে” সমস্যা হলো আমরা আরাম কেদারা শব্দটা ব্যবহার করিনা যেটা করি সেটা বাংলিশ মানে চেয়ার।যেহেতু আমরা বাংলা চেয়েছি সেহেতু সঙ্গত কারনে তারা আরাম কেদারাই লিখবে,চেয়ার লিখবে না।তাহলে অবস্থা কি দাড়ালো?আসলে বাংলা একটা জটিল জিনিস যা বিভিন্ন ভাষার মিশ্রনে ব্যবহ্নত হয়।সঠিক বাংলা থাকলেও কেউ ব্যবহার করে না।পৃথিবীর ৯৫% দেশে এই ভাষাজনীত সমস্যা নেই।আমরা সঠিক ভাষা ব্যবহার করিনা বলেই আমাদের এই সমস্যা আর এই সমস্যার সমাধান যে কোথায় তা বোধদহয় আমরা কেউ জানিনা।

    Level 0

    @প্রবাসী: মুখের ভাষা আর আনুষ্ঠানিক ভাষার পার্থক্য থাকবেই। কম্পিউটার সম্পর্কিত মূল ইংরেজি শব্দের সহজবোধ্য প্রতিশব্দ তৈরী করা তো মাইক্রোসফটের কাজ না। তবে বাংলাদেশী যারা এর সাথে জড়িত ছিল, তারা আরো যত্নবান হতে পারতেন, অথবা Open Suggestion চাইতে পারতেন। অবশ্য এখনো পারেন।

    এই কাজটা অবশ্য তথ্য মন্ত্রণালয়, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় বা বাংলা একাডেমী ……যে কোন সরকারী দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানই করতে পারেন। শুধু তাদের ওয়েবসাইটে একটা খসড়া আপলোড করে তাতে মতামত চাইলেই হয়।

    Level 2

    @প্রবাসী: প্রবাসী ভাইয়ের সাথে সম্পূর্ণ একমত। আসলে আমাদের ভাষার উৎস এবং পরবর্তীতে এর বিস্তার আর ব্যবহার সম্পূর্ণ যার যার মত করে হয়েছে। যেমন নকিয়া মোবাইলের কিছু মডেলে বাংলা ভাষাও যুক্ত আছে। আর সেই ভাষাতেই যখন মোবাইল ব্যবহার করা হয় তখন শিক্ষিত অশিক্ষিত দুইয়ের জন্যই সমস্যা হয়ে দাঁড়াই।

    Level 2

    @প্রবাসী: প্রবাসী ভাই সালাম! আমি আসলে বলতে চাচ্ছিলাম যে, মাইক্রোসফটে বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাক নিশ্চয়ই বিদেশী কেউ করেনি। আর বাংলাদেশী বা বাঙ্গালী কেউ করে থাকলে তিনি কাজটি সঠিকভাবে করেন নি। বর্তমান সময়ে ‘খোকা কেদারায় বসে আছে’ এর চেয়ে ‘খোকা চেয়ারে বসে আছে’ যেহেতু বেশী প্রচলিত তাই পরেরটা ব্যবহার করাটাই ভাল। আর আমাদের ভাষায়, সংস্কৃত, তৎসম, তদ্ভব ইত্যাদির মত, বিদেশী শব্দও কিন্তু একটি শ্রেণী। তাই কেদারার পরিবর্তে চেয়ার ব্যবহার করলে অসুবিধা নেই। উইন্ডোজ বা অফিসে বাংলা যোগ করবার প্রধান বা একমাত্র উদ্দেশ্য কিন্তু বাংলাকে সন্মান করা নয়, বরং এই সফটওয়্যারের অধিক প্রচলন করা – আম জনতা বা ইংরেজি না জানা বা কম জানা ব্যক্তিদের মধ্যে।

    আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ। দেশে আসছেন কবে আবার?

    :[email protected]প্রভাসী আপনি অরজিনাল কথা বলার জন্য থ্যাংস
    তবে টিউনটা ও মুল্যবান
    ধন্যবাদ সবাইকে

উইন্ডোজ-৭ এর বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাক ইন্সটল করছিলাম কিন্তু একই কারণে সেটা বাদ দিয়েছি। আসলে সিস্টেমের ল্যাঙ্গুয়েজ ডিফল্ট থাকাই মনে হয় সবচেয়ে ভাল।

    Level 2

    @সৌমিত্র বিশ্বাস: ল্যাঙ্গুয়েজ প্যাকটা আরও একটু পরিচিত শব্দ দিয়ে সাজালে হয়তো ব্যবহার করতে পারতাম।

Level 0

আমার কাছে সবচেয়ে দুঃখজনক লেগেছে বাংলা ডিকশনারি সাজেশন-এ এমন উদ্ভট শব্দ দিয়েছে যে তা অবিশ্বাস্য। আর অনেক সঠিক শব্দকেও ভুল বলে। এই লাইনে, “তা” এবং “শব্দকেও” শব্দ দুটিকে ভুল বলছে।

আমার সবচেয়ে বড় দুঃখ হলো, টেকনিক্যাল কোন শব্দ বাংলায় ভালো পাওয়া যায় না। সেই কারনে মাঝে মাঝে বাংলিশ ব্যাবহার করতে হয়, এইটা খুবই দুঃখজনক। “টেকটিউনস” এইটাও বাংলিশ এ লেখা। “টেকটিউনস” না লেখে “কারিগরি সুর” লিখলে কি হত? আসলে বাংলা শিখতে আমরা আগ্রহীন না, তাই এই অবস্থা। আমি এখনো বাংলা উইন্ডোস ব্যাবহার করতেছি। কোন সমস্যা হচ্ছেনা। আপনারাও চেষ্টা করুন, অবশ্যই পারবেন।

    Level 2

    @স্বপন: সবক্ষেত্রে না হলেও, যেসব ক্ষেত্রে সাধারনের বোধগম্য বাংলায় শব্দ আছে, সেখানে বাংলা আর বাকি জায়গায় ইংরেজি প্রচলিত শব্দ দিলে কারও ক্ষতি তো হতই না, বরং বাংলায় উইন্ডোজ আর অফিস এর ব্যবহারটা আরও প্রচলিত/জনপ্রিয় হত। আপনার মতামতের জন্য ধন্যবাদ স্বপন ভাই।

কিছুটা সমস্যা সত্ত্বেও আপনার স্ক্রীণশটের বাংলাগুলো খুব খারাপ নয়,সময় লাগবে উন্নতি হতে।যেহেতু আমাদের ভাষা অন্য অনেকগুলো ভাষার শব্দে সমৃদ্ধ তাই অনেক ক্ষেত্রে খাটি বাংলা শব্দ ব্যবহার না করাই ভালো।আর আরেকটা ব্যাপার দেখুন আপনি নিজে যেমন বাংলায় অফিসের ব্যাপারটা কিছুদিন হল জেনেছেন তেমনি অনেকেই হয়ত জানতেন না।অফিসিয়ালি এটার কাজ যারা করেছেন তারা হয়তোবা দক্ষ ছিলেন না।কিন্তু আমরা আশা করতেই পারি তরুণ প্রজন্ম এই অবস্থার উন্নতি করবে।আমাদের আইটি সেক্টরের উপরের দিকে কিছু মাথামোটা মানুষ বসে রয়েছেন যারা সম্ভবত নিজের মেইলটাও চেক করতে পারেন না তাই সে অবস্থানে কাজ করাটা একটু কঠিন। 🙂

    Level 2

    @Ochena Balok: আপনার সাথে আমি পূর্ণ সহমত। আসলে আমি বলতে চাইছিলাম যে, সবক্ষেত্রে বাংলা পরিভাষার আদৌ দরকার আছে কি? আর দায়িত্বের ব্যপারে যা বলেছেন, ১০০% ঠিক কথা।

      @অদৃশ্য: এটা ঠিক সবক্ষেত্রে পরিভাষা ব্যবহারের দরকার নেই।অন্যান্য ভাষাতেও অনেকসময় ইংরেজি পরিভাষাগুলো মেনে নেওয়া হয়।কারণ একমাত্র জটিলতা।আর চেয়ার বা রেডিওর বাংলা পরিভাষা ব্যবহার না করাইটাই শ্রেয়।কারণ এই জাতীয় শব্দগুলো বিদেশী শব্দ হিসেবেই আমাদের ভাষায় যুক্ত আছে।নতুন করে ঝামেলা করাটা বোকামি