২০১৪ সালের জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার পরিবর্তিত সময়সূচি জেনে নিন এখান থেকে

২০১৪ সালের জুনিয়ার স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র মাদ্রাসা সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা ২ নভেম্বর শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু হরতালের কারণে আরেক দফা পেছালো জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা। এবার ৫ ও ৬ নভেম্বরের পরীক্ষাও পেছানো হয়েছে। নতুন সূচি অনুযায়ী আগামী ১৯ ও ২০ নভেম্বর এই দুই দিনের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ০৩/১১/২০১৪ তারিখ সোমবার সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

পরিবর্তিত সূচি অনুযায়ী, ৫ নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য জেএসসি’র ইংরেজি প্রথম পত্র পরীক্ষা আগামী ১৯ নভেম্বর বুধবার সকাল ১০টা থেকে এবং ৬ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ইংরেজি দ্বিতীয় পত্র আগামী ২০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে অনুষ্ঠিত হবে।

৫ নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য জেডিসি’র আরবি প্রথম পত্র পরীক্ষা ১৯ নভেম্বর বুধবার সকাল ১০টা থেকে এবং ৬ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য আরবি দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষা ২০ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে হরতালের কারণে ২ ও ৩ নভেম্বর বৃহস্পতি, রোব  এর পরীক্ষার তারিখেও পরিবর্তন আনা হয়ে।

সবার সুবিধার কথা চিন্তা করে উক্ত তারিখগুলো পরিবর্তন করে সংশোধিত সময়সূচি নিচে দিয়ে দিলামঃ

২০১৪ সালের জেএসসি পরীক্ষার পরিবর্তিত সময়সূচি

২০১৪ সালের জেডিসি পরীক্ষার পরিবর্তিত সময়সূচি

 

যদি কোন কারণে আবারো রুটিন পরিবর্তন করা হয় তাহলে সর্বশেষ আপডেটেড রুটিন পাবেন এই লিঙ্কে

সৌজন্যেঃ লেখাপড়া বিডি

Level New

আমি আল মামুন মুন্না। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 42 টি টিউন ও 138 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমি মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন, ডাক নাম মুন্না। আমি বাংলাদেশের প্রথম শিক্ষা বিষয়ক কমিউনিটি ব্লগ সাইট লেখাপড়া বিডির একজন প্রতিষ্ঠাতা এবং ব্লগার হিসেবে কাজ করছি। পড়াশোনা করছি যশোর সরকারী এম. এম. কলেজে ফাইনান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগে। আশা করি নিত্য নতুন সব তথ্য দিয়ে আপনাদের উপকারে আসতে পারব। আমার পরিচালিত ব্লগগুলো...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

এবার পরিক্ষার প্রশ্ন ফাস হইছে ?

    ফেসবুকে প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, অভিভাবক, দায়িত্বশীল শিক্ষক, শিক্ষার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের কাছে আবেদন শিক্ষার্থীদের দয়া করে বলবেন তারা যেন বিভ্রান্ত হয়ে তাদের প্রস্তুতি ও ভালো করার চেষ্টা যেন বাধাগ্রস্ত না করে। শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান, তারা যেন ভূয়া প্রশ্নপত্রের পেছনে না ছোটে। প্রশ্ন আউট হয়েছে শুনেও তারা যেন তা অগ্রাহ্য করে। প্রশ্ন ফাঁসের খবর পেলে আমাদের জানাবেন। আমরা ব্যবস্থা নেব।
    যে সব স্থান থেকে প্রশ্ন ফাঁস হয় সে সব জায়গাগুলোর মধ্যে কোচিং সেন্টারগুলোর উপর নজরদারি রয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এই নজরদারি আরো বাড়ানো হবে। 😀