ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

আসুন জেনে নিই বিভিন্ন সফটওয়্যারের চোরাই কপি ব্যবহার করে আমরা বছরে কত টাকা বাচাচ্ছি

টিউন বিভাগ নির্বাচিত
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

টিউনের শিরোনাম দেখে কেউ ভেবে বসবেন না যে আমি লিনাক্স নিয়ে বলতে এসেছি। আজকাল ফ্রিতে পাওয়া লিনাক্স নিয়ে অনেক হৈচৈ হচ্ছে। উইন্ডোজ ব্যবহার করি বলতে লজ্জা লাগে তাদের সামনে। কিন্তু আমরা অনেকেই উইন্ডোজ ব্যবহার করে যাচ্ছি নিরবে নিভৃতে। অনেকে জানেনই না যে উইন্ডোজ ছাড়া অন্য কোনো অপারেটিং সিস্টেম আছে। কেউ কেউ লিনাক্স এর নাম শুনে ডিভিডি কিনে এনে বাসায় পিসি তে ইন্সটল করেন। কিন্তু তার পরপরই বিশাল সফটওয়্যার ভান্ডারের কোনো ফাইল ওপেন না হওয়ায় পরেরবার পিসি স্টার্ট হওয়ার আগেই লিনাক্স এর পার্টিশন মুছে ফেলেন। আশাকরি তাদের আর্থিক মুল্যমান কত হতে পারে।

ADs by Techtunes ADs

প্রথমেই আমরা উইন্ডোজ ইন্সটল করে যা করি তা হল সকল সফটওয়্যার পালাক্রমে ইন্সটল করা। উইন্ডোজের কপিটাও অবশ্য পাইরেটেড, নিজ দাবিতে Ultimate ভার্সন কিনবো, HomePremium বা Pro এডিশানের ভ্যালু নাই, সেটা নাইবা বললাম। বিসমিল্লাহে ২৯৯ ডলার ফ্রী। মাদারবোর্ড এর ড্রাইভার অবশ্য ফ্রিতেই ডিস্কএ পাওয়া যায়। তাই ওটা নিয়ে মাথা ঘামালাম না। প্রথমে শুরু করি মিডিয়া প্লেয়ার দিয়ে।

ধ্যাৎ! ফাইল এ ডাবল ক্লিক করলে উইন্ডোজ মিডিয়া প্লেয়ার দিয়ে ওপেন হচ্ছে! এত বড় স্ক্রীন জুড়ে একটা প্লেয়ার, সেটাতে উইনঅ্যাম্প এর মত এটা ওটা করা যায়না? এই ছাইপাশ আর ব্যবহার করবেননা। ইন্সটল করে নেন উইনঅ্যাম্প। এখানে কী সুন্দর স্কিন আছে! চাইলেই সব খুলে খুলে আটকানো যায়। এই দ্রব্যের দাম মাত্র ২০ ডলার।

হায় হায়। ভিডিও ফাইলটাও ওপেন হচ্ছে সেই ফালতু উইন্ডোজ মিডিয়া প্লেয়ার দিয়ে। ডিভিডি ঢোকালে সেটা কিচ্ছুক্ষণের জন্যে থেমে যায়। বিশ্রী জিনিস। অমুকের পিসিতে ডিভিডি ঢোকালে কী সুন্দর অটো পাওয়ার ডিভিডি চালু হয়ে যায়। যেই ভাবা, সেই কাজ। ইন্সটল করে ফেলেন শক্তিশালী ডিভিডি। বাচল ১৫ ডলার।

মিডিয়া ফাইল চালানোর ঝামেলা মিটল। অবশ্য কেউ কেউ Open with এ একাধিক অ্যাপ্লিকেশান না পেলে মন খারাপ করেন। তারা হয়ত আরো কিছু "বিনামুল্যে" ইন্সটল করে ফেলবেন।

অফিসের কোনো কাজ করবেন? বস বলে দিয়েছে যে স্যালারি শিটটা যেন পরের দিন অবশ্যই জমে দেওয়া হয়, নাতো পাশের টেবিলের রহিমা আপার সামনেই ঝাড়ি খেতে হবে (লজ্জার ব্যাপার)। কাজ করতে যেয়ে দেখেন যে DOC ফাইলটায় ডাবল ক্লিক করলে মান্ধাতার আমলের Wordpad দিয়ে খুলছে। কী সমস্যা? পুরনো ডিভিডি ঘেটে কয়েক মিনিট খরচ করে ইন্সটল করে নিলেন মাইক্রোসফট অফিস ২০১০। সাথে আপনার সোনামণির জন্যে মাইক্রোসফট এনকার্টা প্রিমিয়াম ইন্সটল করে নিবেন। তাহলে বেচে গেল আরো ২৪৫ ডলার।

উফফ! কী মুশকিল! এই বিদঘুটে জিনিস দিয়ে কেউ ইন্টারনেটে ঢোকে? ফায়ারফক্স, ক্রোম ইত্যাদি ফ্রী বলে সত্যিই আপনার কিছু সময় (সিরিয়াল নাম্বার খুঁজতে যা ব্যয় হত) বেচে গেল। সহজেই ফায়ারফক্স ইন্সটল করে নিলেন আর অগুণতি ট্যাব খুলে জিপির আলো ঘরে আনতে শুরু করে দিলেন। চাইলে বাঘের হুংকারও আনতে পারেন। থাক সেসব। কিন্তু ফাইল ডাউনলোড করার সময় ফায়ারফক্সের পিচ্চি উইন্ডোতে Downloading. দেখতে ভালো লাগছেনা। তাছাড়া ইউটিউবের ভিডিওগুলাও ডাউনলোড হচ্ছেনা। কোত্থেকে যেন আইডিএম এর সাইলেন্ট ইন্সটলার নামিয়ে রেখেছিলেন। আজ ওটা কাজে লেগে গেল। ইন্টারনেট ব্রাউজিংএ এখন ২৫ ডলার ছাড়!

ADs by Techtunes ADs

অমুক ড্রাইভটা ভর্তি হয়ে গেছে তাইনা? কিংবা ডাউনলোড করে মুভিগুলা আপনার হার্ডডিস্কে "ডাটাসংখা বিস্ফোরণ" ঘটাচ্ছে। চিন্তা নেই। ১০৳ দিয়ে ডিভিডি কিনলেই ৪.৩জিবি ডাটা রাইট করা সম্ভব। কিন্তু উইন্ডোজের Send to DVD-R/RW দিয়ে তো চলবেনা। ইন্সটল করে নিবেন নিরো স্যুট (ভাবই আলাদা)। যদি পিসি কেনার সময় ডিভিডি রমের সাথে পাওয়া নিরোর ডিস্ক টা থাকে তাহলে বাচলেন। নাতো খরচ হত ১০০ ডলার।

যারা গ্রাফিক্সের কাজ করেন তাদের তো লাগবে অ্যাডোব ফটোশপ, ফ্ল্যাশ, প্রিমিয়ার। থাক, কষ্ট করে ৫০টাকা দিয়ে অ্যাডোব সিএস ৫.৫ কিনে নেন। খামোখা  ডলার দিয়ে কিনে কী লাভ? আর যারা ডিজাইন করবেন, তারাও কষ্ট করে দোকানে যেয়ে অটোক্যাড বা মায়া যেটাই হোক কিনে নিবেন। বাচল আরো ২৫৯৯ ডলার।

আর ছবি দেখবেন কী দিয়ে? কেউ কেউ ACDSee বা অন্য কোনো সফটওয়্যার ছাড়া ছবি দেখতে অস্বস্তিবোধ করেন। তাদের জন্য ৭০ ডলার মাফ।

পছন্দের ভিডিও মোবাইলে নিবেন? ডিভিডি রিপ করে পিসি তে রাখবেন? কি যেন নাম একটা, XiliSoft বা iSkysoft এর জট্টিল দেখতে ভিডিও কনভার্টারটা আপনার চাই। ডি, ই বা এফ ড্রাইভ খুজলেই পেয়ে যাবেন। কথা না বাড়িয়ে ঝটপট ইন্সটল করে নিন। এখন মোবাইলে "শিলা কী জাওয়ানি"র ভিডিও দেখতে বেশ ভালোই লাগছে। ভাগ্যিস ৬০ ডলার দিয়ে না কিনে নিউমার্কেট থেকে সফটওয়্যার ডিভিডিটা কিনে রেখেছিলেন।

রুমমেটের সাথে ল্যান কানেকশান করেছেন? পাশের রুমেই কারা যেন ল্যানে দিব্যি চ্যাট করছে, ভিডিও শেয়ার করছে, রিমোট ডিসপ্লে ব্যবহার করছে। বন্ধুর কাছ থেকে পেনড্রাইভ টা চেয়ে নিলেন। তারপর তাদের কাছে থেকে কয়েক সেকেন্ডেই কপি করে নিলেন সেই সফটওয়্যার। তারপর নিজের রুমে এসে ইন্সটল করে নিলেন সফটওয়্যারটা। নাম হয়ত TeamViewer. ভালোই করেছেন। ১৫০০ ডলার দিয়ে এই জিনিস কেনার মানে হয়না।

ADs by Techtunes ADs

সেমিস্টার শেষের দিকে। অথচ প্রোগ্রামিং কমপ্লিট হয়নি। হন্যে হয়ে ছুটলেন এর ওর কাছে। নিয়ে এলেন Microsoft Visual C+. স্যারেরা বলে দিয়েছে যে এটাই ব্যবহার করতে হবে। তাই কী আর করা। ফ্রিতেই তো পাচ্ছেন। কোড লিখুন আর Compile > Build > Run. আবারো ৮০০ ডলার ছাড়!

অ্যান্টিভাইরাসে কথা বলিনি তাইনা? তাহলে তো বিশাল ভুল করে ফেলেছি। আপনার প্রিয় বন্ধুর পিসিতে কী সুন্দর ক্যাস্পারস্কাই এর 'কে' টা ঝলমল করে। কিংবা নরটন কী সুন্দর রাডারের মত স্ক্যান করে। শুধু তাই নয়, ইউএসবি তে কিছু লাগালে অটো স্ক্যান করে ফেলে। ভাইরাস ঢুকবে তা তো দুরের কথা, উঁকি মেরেও দেখতে পাবেনা। সাইজ তো খুব বেশিনা। ওটাও কপি পেস্ট ইন্সটল। ওহ! শান্তি! ভাইরাস নিয়ে ভাবনা, আর না আর না। ভাবনা তাদের যাদের ৭০ ডলারের প্রোডাক্ট আপনি চুরি করে নিলেন।

সিস্টেম ক্লিন রাখা নিয়ে কিছু বলার দরকার নাই হয়ত। আমার চেয়ে আপনারাই বেশি জানেন কী দিয়ে কী হয়। Registry Mechanic তো ইন্সটল করা আছে তাইনা? তাইতো বলি খালি রেজিস্ট্রি ডিফ্র্যাগ মারেন কী দিয়ে? আরো কি যেন আছে, Advanced System Care (আপনার কোর আই প্রসেসর না থাকলেও টার্বো বুস্ট দিবেই দিবে ;)), Windows 7 Tweaker, PC Tools Registry Cleaner - বাকিগুলা বলে ফেলুন। তাহলে খুব খুশি তো? সিস্টেম ক্লিনের সাথে সাথে মাথাটাও ক্লিন থাকছে। হুদাই ওই সফটওয়্যার কোম্পানিকে ৪৩ ডলার না দিয়েই মজা লুটে নিচ্ছেন।

বিদেশ থেকে ছোট খালা অনেকগুলা ছবি পাঠিয়েছে। কিন্তু RAR TAR 7z কী কী সব ফরম্যাটের ফাইল। ধূর! ৫০টাকা দিয়ে উইন্ডোজ এর ডিভিডি কিনলাম, আর তাতে RAR ফাইল খোলা যায়না? রাগে গজ গজ করতে খুঁজে নিবেন WinRAR. যে ফোল্ডারে সফটওয়্যার ছিল তাতে serial.txt নামে আরেকটা ফাইল আছে, ওটায় কি সুন্দর করে সিরিয়াল নাম্বার লিখা আছে। ভাগ্যিস Ctrl+C তে কপি আর Ctrl+V তে পেস্ট করার ব্যাবস্থা আছে। নাতো আপনাকে কষ্ট করে সিরিয়াল টা দেখে দেখে ইনপুট করতে হত। কমান্ডের কল্যাণে আপনাকে ২৯ ডলার তো খরচ করতে হলই না, বরং ভালয় ভালয় ইন্সটল করে ফেললেন এই চিজ। বোনাস হিসেবে না হয় কনটেক্সট মেনুতে "Add to." "Extract to." লিখা একগাদা আইটেম পেয়ে গেলেন।

জি ড্রাইভটা খুব ঝামেলা করছে? আজকাল দোকানওয়ালারা খুব দুষ্টু হয়েছে। ১ টেরাবাইট হার্ডডিস্ক কিনেছেন, কিন্তু বেয়াদপটা সি ড্রাইভে ৩০ গিগা দিয়ে বাকি জায়গা দিয়ে ২২৫ গিগার ৪টা ড্রাইভ বানিয়ে দিয়েছে। সহ্য হয়? টাকা দিয়ে জিনিস কিনলেন, আর এরকম ব্যবহার? যাই হোক, ওকে বলে লাভ নেই। নিজেই কাজে নেমে পড়েন। Partition Manager আছেনা? হ্যা, ইন্সটল দিন তো! কয়েক ঘন্টার মাঝেই কাজ কমপ্লিট। এখন কী সুন্দর ১০০গিগার ৯টা ড্রাইভ শোভা পাচ্ছে। একটার নাম Softwares, আরেকটা Games, Music, Natokz. ভাগ্যস দোকানদার কে ঠিক করতে দেন নি। নাতো দুই একশ টাকা চাইত। আর সফটওয়্যারটা তো ফ্রিতেই পেয়ে গেলেন। আরো ৪০ ডলার বাচানোর খুশিতে একটা পার্টি দিতে পারেন।

ADs by Techtunes ADs

কবেকার সেই পুরানো একটা গেম ইন্সটল দিলেন। কিন্তু ফেলে দেওয়ার সময় বাধল বিপত্তি। আনইন্সটল করতে গেলেই বলে যে Installation log not found. মহা ঝামেলা! এবার তো এক্সপি সেটআপ দেওয়া ছাড়া উপায় নেই। আপনার বন্ধুটি আপনাকে বাচাল। খোঁজ পেলেন Revo Uninstaller এর। বাহ! ক্লিক করতেই রেজিস্ট্রি থেকে গেমের সব ডাটা মুছে আপনাকে খুশি করে দিল। আনন্দে আপনি বন্ধুটিকে দুইটা সিঙ্গাড়া খাওয়ালেন। কিন্তু যারা কষ্ট করে সফটওয়্যারটি বানিয়েছে তারা তাদের প্রাপ্য ৪০ ডলার তো দুরের কথা, এক গ্লাস পানিও পেলনা।

কে যেন আপনাকে বলল যে উইন্ডোজ এর মাঝেই বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম চালানো যায়। আরে বাহ! এরকম উপায় আছে তাহলে! কষ্ট করে পাইরেট বে তে পেয়ে গেলেন VMWare. ইন্সটল করে মুখ থেকে বের হয়ে এল "ওয়াও!" ৩/৪ ঘন্টা ধরে ডাউনলোড করাটা তাহলে কাজে লাগলো। ইন্টারনেট এর বিলটাই তো দিতে হল, ওই সফটওয়্যার এর কোম্পানি তো আপনাকে ধরে তাদের প্রাপ্য ১৮৯ ডলার চাচ্ছেনা!

অনেক তো বকবক করলাম। ভিজুয়াল স্টাইল নিয়ে কিছু না বললে এই টিউন সবাই ডিসলাইক দিবে (যদিও এখন সেই সুযোগ নেই, তবে লাইক কম পড়লে খারাপ লাগে)। Windows Blinds এর নাম শোনেননি এমন মানুষ কম আছেন। টাস্কবার, আইকন, ফোল্ডার ব্যাকগ্রাউন্ড কী সুন্দর করে চেঞ্জ করে দেয়! আর ওইযে ObjectDock আছে। মাউস দিয়ে গুতা দিলেই আইকনগুলা রেগে যেন ফুলে যায়। এই দুইখান জিনিসের দাম ৪০ ডলার। ভয় লাগছেনা তাইনা? হ্যা, কারণ একটু খুঁজলেই ক্র্যাক সহ পেয়ে যাবেন। পারলে WinStep Extreme ও খুঁজতে পারেন। আর মনোমুগ্ধকর কার্সর যেটার নিচে তারা, আগুন ইত্যাদি জ্বলে সেটা CursorFX, এসব মোট  ৪৯ ডলারের বদলে একেবারেই ফ্রিতে মিডিয়াআগুনে খুঁজলেই পাবেন।

তাহলে উক্ত সবগুলার মুল্য যোগ করলে হয় ৬৩১১ ডলার। ডলারপ্রতি ৭৫টাকা ধরলে ৪, ৭৩, ৩২৫ টাকা! আর স্ক্রীনশট নিতে SnagIt যার দাম ৫০ ডলার সেটার কথা নাইবা বললাম। HDTune ৩৩ ডলার, Tuneup Utilities ৩৫ ডলার ইত্যাদি তো আছেই।

লিনাক্স ব্যবহার করার উপদেশ দিতে এই টিউন লিখিনি। আমাদের অনেকের পক্ষে লিনাক্স চালানো সম্ভব না। চাইলেই উইন্ডোজের সফটওয়্যার পাওয়া যায়, কিন্তু লিনাক্স এর রিপো কয়জনের আছে? আর সবাই তো শুধু লিখালেখি আর গান শুনেই ক্ষান্ত থাকেনা। ইন্টারনেট ব্যবহার করাটা বড় সমস্যা। যদিও কায়দা করে লিনাক্স এ মডেম চালানো যায়, তবে আমাদের বাংলার সিংহ ব্যবহারকারীরা বিপদে পড়েছেন ইউএসবি মডেম নিয়ে। তাই যেটা বলতে চাই তা হল চলুন সবাই অন্তত ফ্রিওয়্যার ব্যবহারে অভ্যস্ত হই। প্রায় সবকিছুরই বিকল্প আছে। একজন প্রোগ্রামারের মেধার মুল্যায়ণ করতে না পারলে আমরা কীভাবে সকল পেশার মানুষ তথা জাতিকে সম্মান করতে পারব? আমাদের মাঝে যে প্রতিভা আছে, বদলে দেওয়া এবং বদলে যাওয়ার যে শক্তি আছে তা কাজে লাগানো দরকার। আপনার পাশের মানুষটিকে সতর্ক করে দিন, আরো প্রযুক্তি সচেতন করে তুলুন। সবাই একদিন না একদিন জেগে উঠবে, সেইদিন কেউ আমাদের দমিয়ে রাখতে পারবেনা। সেই সুদিনের প্রত্যাশা করি।

আপনাদের জন্য একেবারেই ফ্রী কিছু সফটওয়্যার এর লিঙ্ক দিলাম। দেখুন কাজে আসে কিনা।

ADs by Techtunes ADs

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ আমি কাউকে ছোট করে বা কোন অপারেটিং সিস্টেম কে কিংবা কোনো সফটওয়্যার নির্মাতাকে উদ্দেশ্য করে এটা লিখিনি। আমাদের প্রয়োজনীয় অনেক কিছুই যে বিভিন্ন ফ্রিওয়্যার দিয়ে করা সম্ভব সেটাই বোঝাতে চেয়েছি। ভুল ত্রুটি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

আমার পূর্ববর্তী টিউন: এবার উইন্ডোজ, লিনাক্স বা ম্যাক কম্পিউটারের মাঝেই ইচ্ছামত ব্যবহার করুন অন্য যেকোন ভার্সনের উইন্ডোজ, লিনাক্স, অ্যান্ড্রয়েড, ম্যাক বা আইবিএম অপারেটিং সিস্টেম

আমার পরবর্তী টিউন: যেকোনো সিডি/ডিভিডি/আইএসও থেকে সেটআপ ইউএসবি তে বুটেবল বানানোর সহজ পদ্ধতি

-

ছবি - Shutter Stock by AlexLMX

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি মো মিনহাজুল হক। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 22 টি টিউন ও 2982 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 4 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

ভাল কথা……………আপনার ভাবনাকে সাধুবাদ জানাই………….
একদিন অবশ্যই আসবে সেদিন সবই হবে ফ্রীওয়্যারের মাধ্যমে………….
আমরা ধীরে ধীরে সেই দিকে এগিয়ে যাচ্ছি…………… তবে পুরোপুরি কবে হবে বলতে পারবো না……..অনেক সময় লাগবে
শুভেচ্ছা বিনিময়ে
—– কলকাতা

    সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ। আপনার ব্লগটা অনেক সুন্দর!

    Level 0

    সবার শেষে ধন্যবাদ দিতে মন চাচ্ছেনা 😛 তাই এখানেই দিলাম । আশাকরি দুজনের কেওই মাইন্ড করবেন না 🙂

    হাহা। মাইন্ড করিনি। ধন্যবাদ আবারো 🙂

Level 0

অসাধারন হয়েছে। চালিয়ে যান। 😀

খালি আমার বাংলালায়নটা যদি লিনাক্সে চলত আমি কবেই উইন্ডোজ ল্যাপি থেকে মুছেই ফেলতাম।উইন্ডোজ ব্যবহারে অভ্যস্থ হয়ে গেসি তাই লিনাক্স কঠিন মনে হচ্ছে।আর উইন্ডোজ ফিচারগুলো তো একইভাবে হুবুহু ব্যবহার করা যায় না লিনাক্সে কারণ কপিরাইট ব্যাপার স্যাপার আছে।নতুন বিধায় অনেকের কাছে ইউজার ফ্রেন্ডলী মনে হচ্ছে না কারণ জন্ম থেকেই আমরা উইন্ডোজ ব্যবহারকারী।টিউন অনেক ভাল হয়েছে।পাইরেটেড সফট ব্যবহার না করে ওপেনসোর্স এবং ফ্রি সফট ব্যবহারের চেষ্টা করা উচিত।

    আমিও একই সমস্যায় পড়েছি। মডেম চলেনা। লিনাক্স এর সাথে GUI খুব ভালোমতো অ্যাড হচ্ছে আজকাল, তাই বেশ সহজবোধ্য হয়েছে। কিন্তু সেই ইন্টারনেট নিয়েই সমস্যা। আসল জিনিস না চালাতে পারলে কী লাভ? আর বেশ কিছু জিনিসের বিকল্প লিনাক্স এ নেই। তাই মাটি কামড়ে পড়ে আছি 🙁

টিউনের জন্য হাততালি। 😀
উইন্ডোজের সেরা ৯০টি ফ্রী সফটওয়্যার! – http://www.bigganprojukti.com/post-id/10669

    ধন্যবাদ ভাই। আপনার টিউনও অনেক সুন্দর হয়েছে। 🙂

    টিউনারের নাম না দেখেই টিউন পড়ে শেষ করেছি। ভেবেছিলাম বাবর-এর টিউন। এখন দেখছি, নাহ! আরো একজন বাবর তৈরী হয়ে গেছে অলরেডি!! শাওন, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ চমৎকার এ টিউনটির জন্য।

    রিপন ভাই মেইল এর জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ 🙂

ভাই মারাত্মক লিখেছেন। অসাধারন। take a bow

Level 0

অসাধারন হয়েছে। চালিয়ে যান।

ভাল কথা……………আপনার ভাবনাকে সাধুবাদ জানাই………….
একদিন অবশ্যই আসবে সেদিন সবই হবে ফ্রীওয়্যারের মাধ্যমে………….

Level 0

আমার কিউবি শাটলেও উবুন্টু ধরে না …… মনে বেজায় দুঃখ।
আরকত দিন অপেক্ষার প্রহর গুন্তে হবে? আর কত? আর কত?
আমার ডেস্কটপ পড়ে থাকতে থাকতে ধূলায় ধূসরিত।

আরে ভাই আমিত উপরের গুলা ছাড়াও $1,300+ এর Orcad spice 10.0 আর আমার এক মামার কাছে $18000+ একটা সফটওয়্যার আছে । কিন্তু আমি অনেক চেস্টা করেও তা বাগাইতে পারিনাই ।কিযেন সিকিউরিটি টাইপের নাকিযেন ।মোট কথা আমারে দেয় নাই ।(দুখের ইমো হবে)

    ঠিক বলেছেন। আজকাল অনেক সফটওয়্যার ইন্টারনেট এ সিরিয়াল ভেরিফাই না করে ব্যাবহার করতে দিচ্ছেনা, 🙁

    ওআম্মু!
    wammu দিয়ে পিসিসুটের কাজ হওয়ার কথা। উবুন্টুতে সফটওয়্যার সেন্টারেই পাবেন। আর এটা উইন্ডোজের জন্যও আছে :)। (http://wammu.eu/)

দারুন লাগলো বিশেষ করে আপনার লেখার স্টাইল টা, একবারে চোখে আঙুল দিয়ে দেখানোর মতো, তবুও আমরা রাস্তায় চলার সময় যেমন ভিক্ষুক দেখে খারাপ লাগলেও সব সময় টাকা দিইনা, তেমনি হঠাত করে windows ছাড়া সম্ভব না আমাদের অনেকের ই পক্ষে, একদিকে linux, ubuntu এগুলো সম্পর্কে সঠিক গাইডলাইন নেই আর যা আছে সব কেমন যেন গোলমেলে লাগে। তবে বর্তমানে যেভাবে freeware software বাজারে আসছে একসময় এগুলোই বাজার দখল করবে। যেমন মজিলার ব্যাবহার দিনে দিনে বাড়ছেই। তাছাড়া অনেক কোম্পানিই তাদের পণ্যের পরিচিতির জন্য trial period বা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য free তে দিয়ে থাকে। আমাদের মত গরীব দেশের মানুষদের জন্য এত টাকা খরচ করে কম্পিউটার চালানোর সামর্থ বেশীরভাগেরই নেই। আমাদের বিকল্প কিছু খুজতেই হবে। মুখে শুধু নীতি কথা বললেই হবেনা। সেটা মানার জন্য উপযোগী ও হতে হবে। ৭ দিন ধরে সবার দ্বারে দ্বারে ভাতের জন্য ঘুরে মরেছি কেউ কাজও দেয়না, ভাতও দেয়না তাহলে আমি সৎ বলে বসে থাকব আর ধুকে ধুকে মরব??? আমি অন্তত সেই দলে না (দুঃখিত)

    হুম। আপনার ধারণা ঠিক। উইন্ডোজ ছাড়তে কষ্ট হয়। আর চোখের সামনে সহজ রাস্তা থাকলে সেটার প্রতি মানুষের আগ্রহ তো থাকবেই।

Level 0

free ক্যাস্পারস্কাই er link ta kau diben,,,,,

    Level 0

    ……… সীতা কার বাপ?!?

    হাহা! যেটার জন্য টিউন করলাম সেটাই লিখলেন! আপনি যদি না জেনে কিছু ডাউনলোড নে করেন এবং ইউএসবি ড্রাইভ দেখে শুনে ওপেন করে ফাইল শেয়ার করেন তাহলে ভাইরাসের সাধ্য নেই আপনাকে ধরার। আমি ৩ বছর ধরে কোনই অ্যান্টিভাইরাস ব্যাবহার করিনি। ফায়ারফক্স এ NoScript আর ইউএসবি তে autoplay অফ করা। এটাই যথেষ্ট। 🙂

Level 0

পড়তে পড়তে কখন যে শেষ করে ফেললাম বুজতেই পারলাম না ।শুধু বলবো অসাধারন লিখেছেন ।ধন্যবাদ ।তবে অনেকে নতুন অনেক সফ্টওয়ারের নাম জানলো এবং নামানোর চেষ্টা করবে ।

চমৎকার!
GIMP, Inkscape, Pencil আর Blender এর সন্ধানগুলোও লাগিয়ে দিন ভায়া।

    লাগায়ে দিলাম শামীম ভাইজান 😀 আর কিছু পেলে বলবেন। আপডেট কইরা দিমু।

    ওআম্মু! – এটাও পোস্টে লাগিয়ে দেন।
    wammu দিয়ে পিসিসুটের কাজ হওয়ার কথা। উবুন্টুতে সফটওয়্যার সেন্টারেই পাবেন। আর এটা উইন্ডোজের জন্যও আছে 🙂 । (http://wammu.eu/)

    বাহ! ডাউনলোড করলাম। ইন্টারফেস দেখে বুঝলাম যে এসএমএস দেখা ও পিসি তে সেভ করাও যাবে!!! তবে ফোন কানেক্ট করতে গেলেই হ্যাং মারছে। সব উপায় ঘেটে দেখলাম। 🙁 উইন্ডোজ এর এটাই সমস্যা, অ্যাপ্লিকেশান খালি হ্যাং হলে কাজ করাই যায়না 🙁 তবে আপনাকে ধন্যবাদ, লিনাক্স এ যেতে আর কোনো বাধা থাকলনা। খালি বাংলালায়ন টা চললেই হয়। 🙂

    WinFF – ওপেনসোর্স ভিডিও কনভার্টার। Windows 95, 98 , ME, NT, XP, VISTA, and Debian, Ubuntu, Redhat based GNU/Linux ডিস্ট্রিবিউশনের জন্য পাওয়া যায়। একসাথে অনেকগুলো ফাইলকে বিভিন্ন ফরম্যাটে ভিডিও কনভার্ট করতে পারে।
    (http://winff.org/html_new/)

    উইন্ডোজ ভার্সনের সাইজ ৭.৬ মেগাবাইট। এর পেনড্রাইভ পোর্টেবল ভার্সনও আছে (৯.৭৩ মেবা)।

    আমি উবুন্টুতে এটা দিয়ে ক্যামেরার mp4 ভিডিওগুলো ইউটিউবের flvতে কনভার্ট করে তারপর আপলোড করি। এতে অনেক কম আপলোড করা লাগে।

হুম………….ভালো……..ভালো……..ধন্যবাদ

Level 0

অসাধারণ! ইদানিং ফ্রিওয়্যার এর প্রতি এতটাই আকর্ষিত হচ্ছি য এই টিউনগুলো সামনে পেলেই খুব মন দিয়ে পড়ছি.. (আগের মতো PDF বানিয়ে রেখে দিচ্ছি না!) যেদিন আমার কম্পিউটার পুরোপুরি পার্সোনাল হবে সেদিন থেকেই উবুন্টু নিয়ে ঘাটাঘাটি শুরু করব।

    এখনই টুকটাক কাজে লেগে পড়ুন। নাতো নতুন সিস্টেমে যেয়ে পথহারা মনে হয়। আমার আগের টিউনটি দেখতে পারেন। উইন্ডোজ এর পাশাপাশি লিনাক্স ব্যাবহার করতে পারেন। আর মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ 🙂

ভাই মনে এত দুঃখ নিয়া আপনার উইন্ডোজে না থাকাটাই ভাল – আপনি বিশ্বের অতুলনীয়, রাস্তার রাজা – ফাটা মিন্টু অপারেটিং সিষ্টেমে পার হয়ে যান !! 😉 উইন্ডোজের সফটয়্যারগুলো সাধারণত বাংলাদেশ কিংবা এর মত তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে Sale Targeting করে বাজারজাত করা হয় না । বিশ্বর উন্নত দেশগুলো প্রতি বছর বিভিন্ন খাতে হাজার হাজার বিলিয়ন ডলার দান ( বলতে চাই না যেটার অন্য নাম ভিক্ষা ) করে থাকে – যেগুলার মাধ্যমে বাংলাদেশের অধিকাংশ রাষ্ট্রীয় কার্য পরিচালিত হয়ে থাকে !! তো তাদের দান খেয়ে বেচেঁ থাকতে সমস্যা হচ্ছে না কিন্তু তাদের ২০০ ডলারের সফটওয়্যার ফ্রি তে ব্যবহার করতে সমস্যা হচ্ছে ……. বাহ….. !! বেশ ভালো …….. বেশ ভালো ………. !! 💡

    তরঙ্গ ভাই রাগ করলেন নাকি 🙁 আসলে আমরা সবাই এই কাজ করি। তাই দুঃখ লাগেনা। আর আপনার কথা সত্য, বাংলাদেশ বা তৃতীয় বিশ্বের দেশে এত টাকা খরচ করে সফটওয়্যার কেনার সামর্থ্য নেই কারো। কিন্তু শেষের কথাটা খারাপ লাগলো। আমি আপনি সবাই কিন্তু এই দেশেরই মানুষ। দেশের অবস্থার জন্যে আমরাই একদিক দিয়ে দায়ী কারণ দেশ পরিচালনার জন্য আমরাই যাদের নির্বাচিত করি তারাই আমাদের প্রাপ্য আমাদের দেয়না। যাই হোক, আমি লিনাক্স মিন্ট জুলিয়া ব্যাবহার করি। শুধু ইন্টারনেটই সমস্যা। মডেম কাজ করলে উইন্ডোজ ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করব। আসলে আমি নিজেই সম্পুর্ণ লিনাক্স এ অভ্যস্ত না, অন্যদের কীভাবে উইন্ডোজ ছাড়ার পরামর্শ দেই? 😀 ভালো থাকবেন ভাই।

    @তরঙ্গ:
    আপনার জানাতে মারাত্নক ফাঁক রয়েছে। উন্নত দেশের অনুদানে এই দেশ চলে না। বরং সাহায্য নামে যা পেপার পত্রিকায় দেখেন সবই সফট লোন (১-৩% সুদে) হিসেবে আসে। এর মধ্যেও দেবতূল্য উন্নত দেশগুলের দারুন উদার (!) ব্যাপার আছে ….

    ধরুন বিশ্বব্যাংক যখন ১০০ টাকা দেয়, তার ২২ টাকাই আগে কেটে রাখে প্রসেসিং ফী হিসেবে। বাকী টাকা থেকে আবার তাদের তথাকথিত বিশেষজ্ঞ নিয়োগ দিয়ে ওদের স্কেলে বেতন দিতে হয়। শেষ পর্যন্ত এদেশে আসে ৩০ টাকার মত। সেটা মন্ত্রী মিনিস্টার ইত্যাদি কে কত খায় সেই হিসাবটা আপাতত বন্ধ রাখি। উপরে দেখায় সাহায্য কারণ এটা সফট লোন অর্থাৎ ১ থেকে ৩% সুদ। কিন্তু শুভঙ্করের ফাঁকিটা দেখেন – আমাদের ১০০ টাকা দেয়ার নাম করে আসলে দিচ্ছে ৩০ টাকা যার জন্য আমাদের শোধ করতে হয় ১০৩ টাকা। খুব মহান ব্যাপার স্যাপার তাই না?!

    আমার কথা বিশ্বাস না হলে আপনার বিশ্বস্থ সোর্স থেকে খোঁজ নিন; নিজে যাচাই করুন।

    আর আমাদের এই গরীব দেশ কিন্তু খুব নিয়মিতভাবে কিস্তি পরিশোধ করে। এবার বুঝতে পারছেন নিশ্চয়ই, কেন ঐসব সংস্থা বা দেশ এদেশকে সাহায্য করার জন্য মূখীয়ে থাকে।

    শামীম ভাইকে ধন্যবাদ যুক্তি দেখানোর জন্য 🙂

এক কথাই অসাধারন হয়েছে

Level 0

অসাধারন লিখেছেন। সত্যিই মুগ্ধ হয়ে গেছি। ধন্যবাদ আপনাকে। প্রিয়তে নিলাম।

জটিল (সহজ) টিউন। আর টিউনারের মত ১৬ কোটি বাংলাদেশী দরকার।:D

    ধন্যবাদ! আমার বিশ্বাস দেশে ভালো মানুষের সংখ্যা বেশি। ধৈর্য ধরেন, সব ঠিক হবে একদিন।

    আমার বাসার পাশে এক দজ্জাল মহিলা আছে আমি তার মারা যাবার অপেক্ষায় আছি!!!!!! হা হা হা হা 😀 😀 ;D

    হাহাহা… একটা দুইটা গেলে কি হবে? 😛

চমৎকার পোষ্ট…. আর ফ্রী ওয়্যার গুলার লিংক দেবার জন্য ধন্যবাদ।

    আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ। আরো কাজের কোনো ফ্রীওয়্যার পেলে জানাবেন, যোগ করে দেব।

জটিল লিখেছেন ভাই।কি যে বলব বুজতাসি না।

তবে আমার কিছু বলার রয়েছে।আপনি আমাদের এতসব software এর নাম এবং দাম বললেন তা আমরা কিনব কিভাবে?আমরা যদি অই দাম এ কিনি তাহলে আমাদের কাছে মনে হবে বেসি দাম।কিন্তু বাহিরের দেশের মানুসের কাছে তা মনে হবে না।আর আমাদের সেরকম সুজগ সুবিধা ও নেই কেনার।তাহলে আমরা নকল জিনিস use করা ছাড়া আর কি করতে পারি?

যেমন ধরুন kaspersky anti virus internet security .এর 1user 1 year license এর দাম ৫৯.৯৫ ডলার।মানে বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৪২০০ টাকা।কিন্তু এখন আমাদের দেশে আসল license key সহ দাম ১১০০ টাকা।আর পাইকারি দাম ৮০০-৮৫০টাকার মতো।তাহলে দাম কমে গেল ৩-৪ গুন।যা কিনা সাধারন মানুসের সাধধের মাঝে।

যদি বাকি সব software কম্পানিদের আমাদের দেশে ডিলার নিয়োগ করে software বিক্রি করে তাহলে সেই সকল software.game আমাদের দামের নাগালের মাঝেই থাকবে।যদি ও দাম কিছুটা বেশি।কিন্তু সবাই কিনতে পারবে।যেমন ৪২০০ টাকার জিনিস সবাই বাংলাদেশে ৮৫০-১১০০ টাকায় কিনতে পারছে।

কিন্তু এইরকম system কে করবে বলেন?যদি এরকম হয় তাহলে আমরা আর নিজেদের কাছে অসহায় বোধ করতাম না।আপনি যাই বলেন,সব দস আমাদের দেশের নেতাদের।

আমাদের এই ব্যাপারে সচেতন করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

    সব দোষ নেতাদের দিয়ে কী হবে? ওদের তো আমরাই আসনে বসাই। আর নিজেদেরো কিছু করতে হবে। মেহেদি ভাই কে তো চিনেন, অভ্র এর মত কত উন্নতমানের সফটওয়্যার বের করেছেন উনারা। দেশের সবাই যদি পড়ালেখা করে কানাডা অস্ট্রেলিয়া পড়ে থাকে, তাহলে দেশ দেখবে কে? পত্রিকায় ছাপা হয় যে অমুক ব্যাক্তি হলিউডের ছবিতে গ্রাফিক্সের বিশাল কাজ করেছেন, তমুক ব্যাক্তি সফটওয়্যার নিয়ে উন্নতি করেছেন। কাজগুলা কী দেশের বুকে করলেই হতনা? মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ 🙂

Level 0

অসাধারন হয়েছে। চালিয়ে যান

এক কথাই দারুন 😀 superb………

অসাধারণ টিউন। তথ্য গুলো শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

দারুণ দারুণ দারুণ। অনেক ভাল একটা জিনিশ দিসেন ভাইয়া। থ্যাংকস

    তামিম ভাই মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ। নতুন কিছু যোগ করতে চাইলে বলবেন।

ভালো লিখেছেন…

Level 0

আপনার টিউন খুব ভাল হয়েছে। আমি শুধু বাংলালায়ন এর জন্য জা্নালায় ঝুলে আছি তা না হলে কবেই উবুন্টুতে চলে যেতাম।

    আমারো একই অবস্থা। কিন্তু কিছু জিনিসের বিকল্প লিনাক্স এ নেই। অন্তত নোকিয়া পিসি সুইট, আর ওয়িমাক্স ড্রাইভার দরকার।

    লিনাক্স এ কি PC Suit চলে না ??? আপনার পোস্ট ট দেইখা ভাবতেছিলাম লিনাক্স ইন্সটল কইরা ফালামু কিনা !!!! এখন তো বিপদে পইরা গেলাম !!!!!!!

    মুহাম্মদ ভাই, শামীম ভাই তো উপায় করে দিয়েছেন। Wammu ডাউনলোড করে নিন। লিনাক্স এ কিন্তু মোবাইল লাগালেই পেয়ে যায়। 🙂

    http://winff.org/html_new/

লিনাক্স এ কি ব্রডব্যান্ড সমস্যা করব???
জুম কি সমস্যা করব???

না করলে ডেক্সটপ আর ল্যাপটপ ২ টাতেই সেটআপ দিমু। লিনাক্স কি সব দোকানে এখন পাউয়া যায়????

    আমি যতদূর জানি লিনাক্স এ ব্রডব্যান্ড আর জুম মডেল ঝামেলাবিহীনভাবে চালানো যায়। আই মিন প্লাগ অ্যান্ড প্লে। এখানে একটু দেখলেই বুঝবেন http://forum.amaderprojukti.com/viewforum.php?f=42

    আর লিনাক্স কোথায় পাবেন? দোকানে হয়ত পুরানো রিলিজ পাবেন। উবুন্টু ১১.০৪ বের হল কদিন আগেই। মাত্র ৭০০ মেগার মধ্যে। ডাউনলোড করে নিন। না পারলে দোকান থেকেই ৯ বা ১০ পেতে পারেন। কারো কাছে ডিস্ট্রো সহ ডিভিডি এপেল নিয়ে নেন, সফটওয়্যার ইন্সটল করা সুবিধা হবে। তবে একেবারেই দৃঢ় ইচ্ছা না থাকলে দরকার নেই ভাই। শেষে কিছুমিছু বিপদ হলে আমার উপর রাগ করবেন 😀

চমৎকার টিউনিং। ফায়ারফক্স এ NoScript অপশঅন কিভাবে দিব?

    ফায়ারফক্স এর একটা অ্যাড-অন। ডাউনলোড করুন এখান থেকে

    http://noscript.net/getit

    এটা পেজের সকল জাভা স্ক্রিপ্ট, ফ্ল্যাশ বন্ধ করে দিবে। তবে আপনি ইচ্ছা করলে আপনার প্রিয় পেজের সকল সুবিধা আলাদা করে উপভগ করতে পারবেন। 🙂

এক কথায় অসাধারন!!!

কোন কমেন্ট করতে চাচ্ছিলাম না তবে টিউনটির হেডলাইনটি আমার কাছে খুব পছন্দ হয়েছে। হা হা হা…… ভাল থাকবেন আর টিউনিং চালিয়ে যান ধন্যবাদ…………..

    হাসিব ভাই ধন্যবাদ। শুধু টাইটেল ভালো? আর কিছু ভালো লাগেনি? 🙁

মনের মত পোস্ট…তুমুল মজা পেলাম 😀 ধন্যবাদ ভাইয়া 🙂 ফোটোশপ এর এত দাম, জানা ছিলনা। এক্সপির অরিজিনাল ডিস্ক টার দাম জানা ছিল…

উইন্ডোজ ছাড়তে পারবোনা, এতো বেশি অভ্যস্ত হয়ে গেছি 🙁 তবে লিনাক্স টা একটু একটু খুচিয়ে দেখছি। কঠিন কিছু না, স্রেফ অভ্যাসের ব্যাপার।

ক্র্যাক/প্যাচ ইউজ করা আমার পছন্দ না। কিন্তু ওপেন সোর্স প্রিন্স অফ পার্সিয়া না পাওয়া পর্যন্ত ক্র্যাক ই ভরসা 🙁

    হাহা… হুম… আমরাও কিন্তু পরীক্ষায় টুকলিফাই করি 😉 লিনাক্স এ উইন্ডোজ এর গেম অ্যাপ্লিকেশান বেশ ভালোভাবেই চালানো যায়। Wine নামের সফটওয়্যার আছে সেটা দিয়ে। ডিরেক্ট এক্স ১০ সাপোর্টেড গেম ও চলে। মজার না???

    আবার জিগায়!! 😀

    ভাইয়া লিনাক্স এর বাংলা কোন টিউটোরিয়াল আছে? সুলিখিত, Step by Step টাইপ? লিঙ্ক দিলে খুশি হতাম 🙂

    আছে ভাই। থাকবেনা আবার?

    এই নিন।

    http://www.4shared.com/file/qLQdud4V/UBUNTU_Guide.html

Level 0

ভাই, অনেক ভাল লেখছেন,keep it up….. আমি গত দিন উবুন্তু set up দিসি, এখন qubee modem তো চলে না!!! বাধ্য হয়ে ই চুরা উইন্ডোজ use করতেসি!!!

সুন্দর সুন্দর ……………… আপনাকে অনেক অনেক ধন্য+ সুন্দর টিউন এর জন্য।

Congratulation dude 🙂

Level 0

একটা সত্যি কথা বলি- এতদিন পর এধরণের টিউন নির্বাচিত হতে দেখে মনে হচ্ছে টিটি আবার জেগে উঠেছে…… কেমন জানি শান্তি শান্তি লাগে…

    সত্য বলার জন্য ধন্যবাদ। আশা করি টেকটিউনসের মান আরো উন্নত হবে 🙂

Level 0

চমৎকার পোষ্ট। বিশেষ করে পোষ্টের শেষে ফ্রী সফটওয়্যারগুলোর লিঙ দেয়াতে পোষ্ট টি অসাধারণ হয়েছে।

অসাধারন হয়েছে।
চালিয়ে যান।

কলকাতা টিউনারের আজাইরা টিউন থেকে মুক্তি পেয়ে টিটির বোধোদয় হওয়ায় অভিনন্দন

    হিমি ভাই কি যে বলেন! আপনার টিউন পড়ার পর থেকে কেউ প্রশংসা করলে ভেবে নিচ্ছি যে কোন অ্যাংগেল থেকে করছে 😛

    হুম ! হাহা ! দেখে নেন না 😛 মজাই পাবেন

ফিরি, খাই আর ঘুরি ফিরি

সব- ই বুজলাম কিন্তু এক্সপি বা সেভেন তো এর ফ্রি হচ্ছে না, তাই ওইটা আপনাকে পাইরেটেড ব্যবহার করতে হইব ফ্রি সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হইলে। যদি এর বিকল্প ফ্রিওয়ার থেকে তাইলে বইলেন ( লিনাক্স জাতীয় অপারেটিং সিস্টেম বাদে ) ।

    তা তো ফ্রী হবেইনা। সবাই যদি ফ্রী লিনাক্স এর দিকে ঝুঁকে পড়ে তাহলে কিন্তু লিনাক্স এও উইন্ডোজ এর মত রিচ অ্যাপ্লিকেশান, সাপোর্ট পাওয়া যাবে (যদি এখন যথেষ্ট)। দেখুন না লিনাক্স এর জন্য ফায়ারফক্স, পিকাসা, ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার, ভার্চুয়াল বক্স, কোডব্লক ইত্যাদি আছেই। উইন্ডোজ এ এসব ব্যাবহারে অভস্ত্য দের সমস্যা হওয়ার কথা না। ধন্যবাদ

Level 0

Nero Multimedia Suite 10.6.11300 এর Serial Key অথবা Crack দরকার। আছে নাকি কারো কাছে।

    ভাই কার মাঝে কী বলে দিলেন? এখানে যদি নিরো ১০ এর ক্র্যাক নিয়ে আলোচনা করি তাহলে পাবলিক আমারে …

🙂 🙂 🙂 অসাধারণ 🙂 🙂 🙂

টেকি হেল্প চাই!!
১# ওয়েব পেজ কে pdf ফাইলে কনভার্ট করে রাখার সফট পাব কি??
২# firefox 4 এর bookmark, অ্যাড-অন্স গুলো কিভাবে backup রাখবো??

    টেকি সাপোর্ট
    =========
    ১ # উপরে দেখুন primo pdf নামে সফটওয়্যার এর লিঙ্ক দিয়েছি। এটা ইন্সটল করে যে ওয়েব পেজ প্রিন্ট করতে চান সেই পেজ এ যেয়ে Ctrl + P চাপুন। প্রিন্টার এ প্রিমো সিলেক্ট করুন, তারপর পিডিএফ ফাইল কোথায় সেভ করবে তা দেখিয়ে দিন। ব্যাস!

    ২ # ফায়ারফক্স ৪ এ বুকমার্ক এক্সপোর্ট করতে > ফায়ারফক্স বাটন > অল বুকমার্কস > (উপরে) ইমপোর্ট ও ব্যাকআপ > JSON ফাইল টা কোথাও সেভ করুন 🙂 অ্যাড-অন ব্যাকআপ করতে হলে এক কাজ করুন। কোনো অ্যাড -অন ইন্সটল দেওয়ার সময় যে বাটোনে ক্লিক করলে ইন্সটল শুরু হয় সেটার অ্যাড্রেসে দেখুন https://addons.mozilla.org/*****.xpi?install এরকম দেখাবে। এটা IDM দিয়ে ডাউনলোড দিন অথবা XPI সহ লিঙ্ক কপি করে অন্য ব্রাউজার এ পেস্ট করে ফাইল টা সেভ করে নিন। এই ফাইল রেখে দিন, আর ফায়ারফক্স এ ইন্সটল করতে হলে Open file এ যেয়ে XPI ফাইলটি দেখিয়ে দিন।

    ধন্যবাদ

    thnx a lot…It really helped 🙂

Level 0

খুব ভাল লাগলো।আপনার লেখাটা ব্লগে নেয়া যাবে?

    জ্বি অবশ্যই যাবে। এটা তো কোনো কপিরাইট প্রোটেক্টেড লিখা না। মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ

Level 0

অদ্ভুত সুন্দর উপস্থাপনা – নিজেকে অপরাধী মনে হচ্ছে – ওপেনঅফিস ব্যাবহার করব ভাবছি
আপনাকে ধন্যবাদ

    ধন্যবাদ। তবে যেটা ভিত্তি অর্থাৎ অপারেশান সিস্টেমটাই তো পাইরেটেড 🙁

    Level 0

    তা ঠিক, তবে ৩০০ ডলার দিয়ে উইন্ডোজ কিনে ব্যবহার করা আমার সাধ্যে নেই….অপরাধীই থেকে গেলাম…

    হুম। লিনাক্স এ বাংলালায়নটা চললে লিনাক্স নিয়ে টিউন করা শুরু করবো। টিউন যখন করেছি, পাইরেসি দূর করেই ছাড়ব 😀

    অফটপিঃ: আপনার ব্লগের থিমটা বেশ সুশ্রী। অপ্টিকাল ইল্যুশানের পোস্ট গুলা চমৎকার। যদি নিজের এরকম একটা ব্লগ লিখতে পারতাম! সময় হয়না অত 🙁

মাল্টি বুট করলে তো সফট চলবে ……………।।

windows7 and kaspersky টা আমার জেনুইন। আর যা লাগে সেগুলো Freeware দিয়ে খুব সুন্দর ভাবে চলে যায়। অনেক সময় পাইরেসি করতে হয় বাধ্য হয়ে। কেননা বেশিরভাগ সফট গুলো আমাদের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে। আবার যেগুলো ক্রয়ক্ষতার মাঝে আছে, সেগুলার মূল্য পরিশোধের জন্য কোন রাস্তা নাই। হয় পেপাল না হয় মাস্টার কার্ড, কেননা সেসব কোম্পানীর কোন ডিস্ট্রিবিউটর আমাদের দেশে নাই।

    হু সেটাও একধরণের সমস্যা। আর অত টাকা দিয়ে কেনার মত সামর্থ্য আমাদের দেশের মানুষের নেই। কারণ আমাদের মাথাপিছু আয় অত বেশি না। ধন্যবাদ

ভাল হয়েছে। আপনার ভাবনাগুলো আসলেই ভাল। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে মনে হয় এমন কিছু সফটের কথাও পাইরেসিতে এনেছেন যেগুলো আসলে আংশিক বা সম্পূর্ণভাবে ফ্রীতে ব্যবহার করা যায়। যেমনঃ TeamViewer, Winamp, winrar etc.।

    ধন্যবাদ ভাই। হু, ওইসব সফটওয়্যার ফ্রীতে ব্যাবহার করা যায়, তবে কমার্শিয়ালি করতে গেলে ঝামেলা। উইনঅ্যাম্প দিয়ে গান শোনা যায় ঠিক আছে, কিন্তু অডিও কনভার্ট করতে দিলে অনেক অপশন কম দেখায়। সব সফটওয়্যার এ এরকম করে। লাইসেন্স ছাড়া সকল ফিচার ব্যাবহার করতে দেয়না 🙁

আপনার ফ্রী ওয়্যার লিংকগুলো দেবার জন্য অনেক ধন্যবাদ। আমাদের আনেক কাজে লাগবে। আশা করি এই ধরনের ফ্রী ওয়্যার লিংক নিয়ে আরো লিখবেন।

ভাই জটিল লেখছেন । আমি শুধু মাইক্রোসফট অফিস আর IDM ছাড়া বাকি সব ফ্রিওয়্যার ই ব্যবহার করি ।

    ধন্যবাদ। ওপেন অফিস ব্যাবহার করে দেখুন, এমএস ওয়ার্ড এর সব ফাইল ওপেন হয়। আর সেরকম সব ফিচার আছে। 🙂

Level 0

কত কমেন্‌টস, ওরে বাপরে???????????????

Level 0

help me plz
মোবাইলের operamini তে save করা .obml ফাইলগুলো pc তে কিভাবে পড়বো?

    এটার সঠিক উপায় আমার জানা নেই। সম্ভবত যাবেনা কারণ ওই ফাইল গুলা কেবল অপেরা মিনি মোবাইল ভার্সন ই পড়তে পারে।

১৩১ তম কমেনট। ধন্যবাদ।

Level 0

wow, awesome likhar haat apnar , ami dibbo chokhe dekhte pachhi ekjon bikkhato future projukti bishoyok lekhok ke, asha kori apnar lekha r madddhome aro notun notun jinish jante parbo , doa kori aro boro hon apni

আমি একজন গর্বিত মিন্টু!!
অনেক ভালো লাগলো। প্রযুক্তি হোক উন্মুক্ত। ভালো থাকার শুভ কামনা রইলো।

    ধন্যবাদ ভাইজান। আমিও মিন্টু হওয়ার চেষ্টা করতাসি, কিন্তু ব্রডকমের মোডেমটা লিনাক্স কার্নেলে ধরেনা। নতুন কার্নেলে দেখি ড্রাইভার স্টেজিং পর্যায়ে আছে। দেখি কি হয়!

হুম………… টাকা দিয়ে যদি আমাদের কোন সেট-আপ (সফট) কিনতাম………. তাহলে আমাদের ঘর, জায়গা-জমি সমস্ত বিক্রি করে দিতে হতো………..আর কম্পিউটার এত ভালো করে শিখতে পারতাম না….প্রায় বিনা পয়সায় আমরা সেট-আপ (সফট) ইউজ করি………. তাই না কি……… খুবই ভালো টিউন…… শেয়ার করার জন্ন আপনাকে ধন্নবাদ…..

    @kedar2222: আমি যদি পারি তাহলে আপনিও পারবেন ফ্রিতে শিখতে। শেখার আইটেমগুলো তো ফ্রিই, বরং যে সফটওয়্যারগুলো লাগে সেগুলা ফ্রি ব্যবহার করলে সমস্যা হয়না। ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

ধন্যবাদ ।
ভাই বর্তমানের যেকোন PC তে কি MAC OS ব্যাবহার করা যাবে ? আমি আমার Intel pemtium dual core এর পিসিতে এটি কি ব্যাবহার করতে পারব ? বিস্তারিত জানাবেন প্লিজ ।

    @MD.ASAD: ডুয়াল কোরে চলবে আশা করছি। আমি কোর টু ডুয়োতে ম্যাক ১০.৭ চালিয়েছি। সবই চলবে, শুধু গ্রাফিক্স চিপ, মাউস কিবোর্ড (ইউএসবি না হলে) কনফিগার করে নিতে হবে। আপনি এ সম্পর্কিত সাহায্য পেতে ফেসবুকের এই গ্রুপটিতে জয়েন করে সকল প্রকার ফাইলের লিংক, ইনসট্রাকশন ও অনলাইন সাহায্য পাবেন।

ওহ । শাওন ভাই আপনি জিনিসটা কি । টিউন না পড়েই আগের কমেন্ট করেছি শুধু শিরোনাম পড়ে । এত সুন্দর । ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না । আপনার সম্পর্কে আমি যে ধারনা করে ছিলাম আপনি তার চাইতেও অনেক উপরে । অনেক great. I like you man most and most.

মিনহাজুল হক শাওন ভাই । আমি অনেক দিন আগে শুনেছিলাম যে একটা CPU তে কয়েকটা মনিটর এবং ইনপুট ডিভাইস ব্যাবহার করা যায় ।আর আপনি মিজানুর ভাইয়ের টিউনে একাধিক মনিটরের কথাটা বলে একথা মনে করিয়ে দিলেন আর আমার জানার ইচ্ছি বেড়ে গেল । ব্যাবহার কারীদের সকল কাজ একটা সিপিইউ নিয়ন্ত্রন করে ।সকল ব্যাবহার কারী একই স্মৃতি ও প্রসেসর ব্যাবহার করে । আর সবার কাজ করে একটা প্রসেসর । এরকম কিছু শুনেছিলাম । তাহলেকি দুইটা মনিটর ব্যাবহার করে দুইজন একসাথে এক সিপিইউ ব্যাবহার করে দুইরকমের কাজ করতে পারব । ভাই প্লিজ এ বিষয়ে কিছু শেখান । অর্থাত্‍ একটা টিউন করেন । আর যদি সময় পান তাহলে এই কমেন্টে বা আমার মেইলে দিয়েন । আর মাল্টি মনিটরের ব্যাবহার সম্পর্কেও কিছু জানাবেন আশাকরি ।
আর একটা কথা । একদিন এক লোকের বাড়িতে গিয়ে দেখি যে সেই ভদ্রলো তার একটি কম্পিউটারে দুইটা মাউস আর দুইটা কীবোর্ড ব্যাবহার করে । তাকে বললাম সে কেন সে এমন করেছে ? সে উত্তর করল যে একটা হ্যাং হলে অন্যটা দিয়ে সে তার কাজ চালার । সেটা কিভাবে সম্ভব । ধন্যবাদ ।

    @মোঃ আসাদউল্লাহ আসাদ: আসলে একই সিপিইউ দিয়ে একাধিক মনিটর/ইনপুট ডিভাইস করার দুটা উপায় আছে, একটা হল সফটওয়্যার ভার্চুয়ালাইজেশন ও আরেকটা হার্ডওয়্যার ভার্চুয়ালাইজেশন। স্বাভাবিকভাবেই সফটওয়্যার ভার্চুয়ালাইজেশন তৈরী করা সহজ। এটাও দুই উপায়ে করা যায়। অপারেটিং সিস্টেমে KVM (Keyboard Video Mouse) সাপোর্ট থাকলে কিবোর্ড-মাউসের পোর্ট, গ্রাফিক্স আউটপুট, হার্ডডিস্ক স্টোরেজ এগুলো ভাগ করে দেওয়া যায়। আরেকটা উপায় হল OpenVZ বা ভার্চুয়ালাইজেশন সলুশন ব্যবহার করা। তবে সাধারণ পিসিতে ভার্চুয়ালাইজেশন টেস্ট করার সহজতম উপায় হল ভার্চুয়ালবক্স ব্যবহার করা। এতে খুবই সহজে কম্পিউটারের যেকোন মনিটর, ইন্টারনেট ও ইউএসবি ডিভাইস, আলাদা আলাদা মেশিনে সেট করে দেওয়া যায়। এ সম্পর্কিত আমার একটা টিউন ছিল যেটা এখানে ক্লিক করে দেখা যেতে পারে।

    হার্ডওয়্যার ভার্চুয়ালাইজেশন করতে লাগবে কেভিএম সুইচ যেটা পিসিতে লাগিয়ে আলাদা মেশিন হিসেবে ইউজ করা যাবে। কেভিএম নিয়ে একটা ছোট্ট লেখা আছে এখানে। (এই সাইটের টপিকগুলা ভাল লাগতে পারে)।

    আর মাল্টিমনিটের কথা বলছি, ওটা খুব সহজে করা যায়। কম্পিউটারে ডিফল্ট একটি ভিডিও আউটপুট ও গ্রাফিক্স কার্ডে ২-৯টা ভিডিও আউটপুট থাকে। এসব পোর্টের যেকোন এক বা একাধিকে অন্য মনিটর এনে লাগিয়ে দিলেও সেটাতে ভিডিও আসবে। এই ভিডিও মূল ডিসপ্লের কপি হবে, নাকি মূল ডিসপ্লের ডানে-বামে-উপরে-নিচে বর্ধিত হবে সেটাও সেট করা যায় গ্রাফিক্স কার্ডের সাথে থাকা কনট্রোল প্যানেল দিয়ে। যেমন এই মুহুর্তে আমার ল্যাপটপের সাথে একটা ১৯” মনিটর লাগিয়ে মাল্টি মনিটর করা আছে। ফলে আমার ডেস্কটপ হয়েছে 1366+1440 = 2806 বাই 900 রেজুলশনের। এটা যেকারো পিসিতে প্র্যাকটিকাল টেস্ট করলেই হবে। 🙂

Level 0

কি লাভ হল পড়ে ?

ধন্যবাদ অসাধারণ টিউনের জন্য…
আমি একটি এন্ড্রয়ড এপ তৈরি করেছি, বিক্রয়[ডট]কম এর অল্টারনেটিভ হিসেবে। ইচ্ছে হলে ট্রাই করে দেখতে পারেন।
এপটির ফীচার সমূহঃ
* কোনো #রেজিস্ট্রেশন_ছাড়াই এড পোস্ট করতে পারবেন
* দিনে #আনলিমিটেড এড পোস্ট করতে পারবেন
* লোকেশন বেইসড এড সার্চ করতে পারবেন
* কোন হিডেন চার্জ নেই, একদম #ফ্রী
* ইনশা আল্লাহ, আমি যতদিন বেঁচে থাকব, অতদিন সার্ভিসটা ফ্রী রাখব
* ইউজার ফ্রেন্ডলি ইন্টারফেস
* ছোট APK সাইজ ( মাত্র ৩ এমবি)
.
গুগল প্লে ডাউনলোড লিঙ্কঃ https://play.google.com/store/apps/details?id=p32929.buysellbd
APK ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://tiny.cc/buy_sell_bd
.
এপটি ডাউনলোড করে দয়াকরে একটি হলেও এড পোস্ট করুন। অনেক খুশি হব। আগাম ধন্যবাদ…