গেমস জোন [পর্ব-২২১] :: ক্রাইসিস ২ (২০১১)

টিউন বিভাগ গেমস
প্রকাশিত

গেমস জোন

হ্যালো! কেমন আছো তোমরা? ১ম ব্যক্তির শুটার গেমসগুলো আমার সবচেয়ে পছন্দের। এদের মধ্যে মিলিটারী শুটার হলে তো কথাই নেই! তবে HALO সিরিজটি খেলার পর এলিয়েন শুটার টাইপেও ইন্টাররেস্ট জন্মায়। তাই HALO সিরিজের মতোই একটি জনপ্রিয় এবং হেভি গ্রাফিক্স ওয়ালা গেমস সিরিজ রয়েছে Crysis সিরিজ। সিরিজের মুল সংস্করণের ২য় গেমটি নিয়ে আজ টিউন লিখছি। বেশ আগে গেমটি নিয়ে অলরেডি টিউন করে দিয়েছিলাম। মনে হয় ৯৩ তম পর্বে। তবে তখন এবং এবারের মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। এবার আমি গেমটি 3D মনিটরে 3D প্রযুক্তি সাথে খেলেছি। আর কি বলবো! রাত্রে জ্বর এসে গেছে এত জীবন্ত গেম খেলে! তার উপ্রে 3D ! উল্লেখ্য যে, গেমটির 3D মজা শুধুমাত্র এই প্রযুক্তি সার্পোট করে এমন মনিটরে নেওয়া যাবে।

ক্রাইসিস ২ একটি ফার্স্ট পারসন শুটার ভিডিও গেম যেটি নির্মাণ করেছে ক্রাইটেক এবং প্রকাশ করেছে ইলেক্ট্রনিক আর্টস। গেমটি ২০১১ সালের মার্চে রিলিজ বা মুক্তি দেওয়া হয় আর এনাউন্স করা হয় ২০০৯ সালে। গেমটি ২০০৭ সালের ক্রাইসিস (ক্রাইসিস ওয়্যারহেড নয়) গেমটির সিকুয়্যাল। গেমটি সিরিজের প্রথম গেম যেটিতে ক্রাই ইঞ্জিণ ৩ ব্যবহার করা হয়েছে।

 

নির্মাতাঃ

ক্রাইটেক

প্রকাশকঃ

ইলেক্ট্রনিক আর্টস

সিরিজঃ

ক্রাইসিস

ইঞ্জিণঃ

ক্রাই ইঞ্জিণ ৩

 

খেলা যাবেঃ

মাইক্রোসফট উইন্ডোজ,

প্লে-স্টেশন ৩ এবং

এক্সবক্স ৩৬০ গেমস কনসোলে

মুক্তি পেয়েছেঃ

মার্চ-এপ্রিল, ২০১১ সালে

ধরণঃ

ফার্স্ট পারসন শুটার,

সাইন্স ফিকশন

খেলার ধরণঃ

সিঙ্গেল এবং মাল্টিপ্লেয়ার

সিস্টেম রিকোয়ারমেন্টসঃ

কমপক্ষেঃ

ডুয়াল কোর প্রসেসর,

৪ গিগাবাইট র‌্যাম,

১ গিগাবাইটের গ্রাফিক্স কার্ড ,

৭ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

উইন্ডোজ সেভেন ৬৪বিট অপারেটিং সিস্টেম,

ডাইরেক্ট এক্স ১০

ভালোভাবে খেলতে হলেঃ

কোর আই ৫ প্রসেসর,

৬ গিগাবাইট র‌্যাম,

১ গিগাবাইটের গ্রাফিক্স কার্ড ,

১২ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

উইন্ডোজ সেভেন গেমার সংস্করণ (৬৪বিট) অপারেটিং সিস্টেম,

ডাইরেক্ট এক্স ১১ (মোডের মাধ্যমে)

ক্রাইসিস ২। গেমটির মোশন ব্লু খুবই বাজে এবং যন্ত্রণাদায়ক নরমাল মনিটরের জন্যে। আর গেমটিতে এটি অফ করার অপশনটি নেই। তবে আমি গেমটির এডভান্স গ্রাফিক্স এডিটর নামের একটি ছোট প্রোগ্রামের খোঁজ পেয়েছি যার মাধ্যমে অনেকগুলো অদরকারী অপশনগুলো অফ/অন করা যায়। এরই জন্য গেমটি এখন থেকে ডুয়াল কোরেও চলবে।

লিংকঃ http://www.gamecopyworld.com/games/pc_crysis_2.shtml

গেমটিতে তোমাকে ফোর্স রিকন মারিন “আলকাট্রেজ” এর হয়ে খেলতে হবে। সিরিজের আগের গেমসগুলোর মতোই, গেমটিতে অস্ত্র এবং স্যুাটের নিজস্ব পছন্দমতো সাজিয়ে (Customize) নেওয়া যাবে। ক্রাইটেক কোম্পানি চেয়েছিল যে আরেকটি জঙ্গল বেইস গেম না বানাতে যেমনটি তারা সিরিজের প্রথম দুটি গেম এবং ফারক্রাই ও ফারক্রাই ২ গেমটি বানিয়েছিল। তাই তারা “urban jungle” হিসেবে নিউ ইর্য়াক শহরটিকে বেছে নেন। হায় রে, আমেরিকার শহরের কি বাজে অবস্থা করেছেন তারা, গেমটি না খেললে বুঝা যায় না।

আর এলিয়েন দের আরো আপগ্রেড হয়েছে গেমটিতে। টার্রমিনেটরদের মতোই এখন ক্রাইসিস ২ এর এলিয়েনদের অবস্থা। তবে যাই হোক, যে যাই বলুক, ক্রাইসিস সিরিজের অনেকাংশ উপাদান HALO সিরিজের থেকে কপি করা হয়েছে এবং এরই জন্য ক্রাইসিস আমার ভালো লাগে। পার্থক্য হলো, HALO সিরিজে চরম কিছু গেমের পিসি সংস্করণ নেই।

ন্যানোসুট এর ২.০ সংস্করণটি দিয়ে গেমটি খেলতে হবে। উন্নত এই সুটে দৌড়ানো, লাফানো এবং পাওয়া কিক ও ঘুষি মারার জন্য আলাদা করে ম্যাক্সিমাম পাওয়ার মোড চালু করা লাগে না। গেমটিতে শুধুমাত্র অদৃশ্য এবং আরমর মোড রয়েছে প্লেয়ারের হাতে একটিভ করার জন্য।

এছাড়াও নতুন আপগ্রেড হিসেবে ন্যানোসুইটকে নিজের মতো করে সাজিয়ে নেওয়া যাবে। যার জন্য দরকার ন্যানো পয়েন্ট । যা এলিয়েনদের টিস্যু হতে সংগ্রহ করা যাবে।

গেমটি তুমি তোমার নিজের ইচ্ছে মতো পদ্ধতিতে খেলতে পারো। মানে স্টেলথ অথবা সামনা সামনি যুদ্ধ করতে পারো শত্রুদের বিপক্ষে। গেমটির কাহিনীর বড় একটি অংশ ফ্ল্যাশব্যাক ভিডিওগুলোর মধ্যে রচিত রয়েছে। যা আমাদের দেশে নেই। মানে আমাদের দেশে ক্রাইসিস ২ এর রিপ সংস্করণ টি পাওয়া যায়, যেখানে মিউজিক এবং ভিডিও গুলো সরিয়ে নেওয়া হয়েছে সাইজ কমানো জন্য।

তবে পূর্ণ সংস্করণও পাওয়া যেতে পারে খোঁজ নিলে আর গেমস কনসোলের সংস্করণ তো রিপ করা যায় না! হাহাহাহা! বসুন্ধরা সিটিতে খোঁজ নিয়ে দেখতে পারো পূর্ণ সংস্করণের জন্য।

কাহিনীচক্রঃ

২০৩৩ সাল।

আমেরিকার মারিন কোরপারেশনের ফোর্স রিকন একটি ইউনিট সমুদ্রের নিচে দিয়ে একটি সাবমেরিনে করে ক্রাইনেটের সাবেক ডাক্তার ন্যাথান গোল্ড বহন করে নিয়ে যাচ্ছিল। গোল্ড এর কাছে নতুন করে আবিস্কারকৃত এলিয়েন জাতির সর্ম্পকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আছে।

তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই তাদের সাবমেরিনটি ‍এলিয়েন জাতি Ceph এর দ্বারা আক্রমণের মুখে পতিত হয় এবং তাদের মধ্যে থেকে প্লেয়ার আলকাট্রেজ ছাড়া বাকি সবাই মারা যান।

তবে আলকাট্রেজ কে নিজের স্যুাটটি দিয়ে দেন “প্রোফেট”। উনি ডেল্টা ফোর্স মেজর এবং সিরিজের প্রথম গেমটিতে উনাকে দেখা গিয়েছিল।  প্রোফেট তার নিজের ন্যানোসুট টি আলকাট্রেজ কে দিতে গিয়ে নিজের হত্যা করতে হয়।

কয়েক ঘন্টা পর আলকাট্রেজ এর জ্ঞাণ ফিরলে দেখে সে প্রোফেট এর ন্যানোসুট পরে আছে। সুটে প্রোফেট এর একটি রেকর্ডিং রয়েছে সেটিতে প্রোফেট আলকাট্রেজকে নির্দেশ দিয়ে গেছেন কি করতে হবে।

এখান থেকেই গেমটির কাহিনী এগিয়ে যেতে থাকে। গোল্ড আলকাট্রেজকে তার সাথে নিজের ল্যাবে দেখা করতে বলে। আলকাট্রেজ শহরের মৃত এলিয়েন টিস্যু সংগ্রহ করে গোল্ডের ল্যাবে গিয়ে তার সাথে দেখা করলে গোল্ড বুঝে যায় যে এটি প্রোফেট নয়। কিন্তু প্রোফেট এর রের্কডিং শুনে গোল্ড বুঝতে পারে যে দুনিয়াতে এই একটিই মাত্র ন্যানোসুট রয়েছে এবং আলকাট্রেজই শেষ ভরসা।

গেমটিতে আলকাট্রেজের দুই ধরণের শত্রু রয়েছে। Ceph এলিয়েন এবং CELL সামরিক বাহিনী।

গোল্ডের ল্যাবে তাদের কে সেল এর সামরিক বাহিনী হামলা করলে গোল্ড আলকাট্রেজকে সেল এর ল্যাবে নিয়ে যেতে বলে সুটকে।

অনেক মুখোমুখি যুদ্ধের পর সুট এর অবস্থা জানতে গোল্ড এবং আলকাট্রেজ সেল এর ল্যাবে গেলে সেখানে তাদেরকে আটকে ফেলে সেল। তবে একটু পরেই এলিয়েনরা রাস্তায় এসে শহরে হামলা করলে সেল এবং আলকাট্রেজ এক হয়ে এলিয়েনদের বিপক্ষে যুদ্ধ করতে নেমে যায়।

গেমটি শেষ হয় আলকাট্রেজ এলিয়েনদের প্রাণ শক্তির স্থানে নিজেকে বিসর্জন দিয়ে। তার পরিহিত স্যুাটটিই এলিয়েনদের হাত থেকে পৃথিবীকে রক্ষা করে। অবশ্য ভিডিও ফাইল না থাকলে গেমটির শেষ অংশ তুমি বুঝবে না।

গেমটি শেষ হয় একটি রেকডিং এর আওয়াজ দিয়ে . : They call me Prophet."

টাইটেল স্ক্রিণ
শুরুতেই তোমার মাথা নাড়িয়ে মিশন শুরু করতে হবে!
সাবমেরিনে হামলা! পালা পালা!
মূলত ২য় চেকপয়েন্ট হতেই আসল খেলা শুরু!
প্রথম শত্রুর মোকাবেলা করতে হবে পিস্তল দিয়ে! তবে বাম দিকে মেশিনগান রয়েছে যদি উদ্ধার করতে পারো!
বুম!
আগের গেমটির মতো পানির ইফেক্ট তেমন আর্কষণীয় নয়
টেকনিক্যাল ভিজর অপশন অনেককিছুই বলে দিবে
তেমন সুবিধার না
নিউ ইর্য়াকে স্বাগতম!
আশা করি ভালই কাটবে!
ন্যানোভিশন দিয়ে অন্ধকার এবং ফ্রোগী জায়গায় ভালই দেখা যাবে
আগের গেমটির মতোই অস্ত্র সাজিয়ে নেওয়া যাবে। তবে আনলক করতে হবে আগে
নতুন ফিচার! ন্যানোসুট এর সাজিয়ে নেওয়া যাবে। লাগবে ন্যানোপয়েন্ট
ভূমিকম্প!
বলদ!
ডাইরেক্ট এক্স ১১
ডাইরেক্ট এক্স ১১
ডাইরেক্ট এক্স ১১
ডাইরেক্ট এক্স ১১
ডাইরেক্ট এক্স ১১

ডাউনলোডঃ

http://kickass.to/crysis-2-flt-t5315773.html

জ্ঞাতব্য:

> গেমস জোন শুধুমাত্র বিনোদনের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এর উপাদান সমূহের দ্বারা কেউ মনে কষ্ট কিংবা আঘাত পেলে তা ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আহ্বান জানাচ্ছি।

> গেমস জোনে ব্যবহৃত বাংলা কভার, ওয়ালপেপারসমূহ সর্ম্পূণ ভাবে লেখকের নিজস্ব সৃস্টি। এর সাথে আসল গেমটির কোনো সর্ম্পক নেই

> গেমস জোন এর সাথে উক্ত গেমসগুলোর কোনো সরাসরি সম্পৃত্ত নেই এবং থাকবে না।

> গেমস জোন এর গেমসগুলোর রিলিজ তারিখ, নির্মাতা, প্রকাশক, মুক্তির তারিখ, সিস্টেম রিকোয়ারমেন্টস এবং চিটকোড  তথ্য গুলো বিভিন্ন ওয়েবসাইট হতে সংগৃহকৃত। লেখক এখানে শুধুমাত্র বাংলায় লিখেছেন।

> ডাউনলোড লিংক এবং এর ফাইলসমূহ সর্ম্পূণ ভাবে অন্য সাইট হতে কপিকৃত। লেখকের সাথে ডাউনলোড লিংক এর কোনো সম্পৃত্ততা নেই।

> সর্বপরি গেমস জোন লেখক গেমওয়ালার ব্যক্তিগত কর্ম মাত্র। এর সাথে এই ব্লগের কোনো সর্ম্পক নেই এবং গেমস জোনের সকল তথ্য (ডাউনলোড লিংক ব্যাতিত) এর জন্য শুধুমাত্র লেখক গেমওয়ালা দায়ী থাকবে।

> গেমস জোন একটি সর্ম্পূণ ফ্রি গেমস রিভিউ এবং প্রিভিউ টিউন। তাই এর যেকোনো উপদান স্বাধীনভাবে “ব্যক্তিগত” উদ্দেশ্যে যে কেউ ব্যবহার করতে পারবে। তবে গেমস জোন কে “করপোরেট” ভাবে কখনোই ব্যবহার করা যাবে না।

> বর্তমানে গেমস জোন  লেখক এর দ্বারা নিচের ব্লগ সমূহে টিউন করা হচ্ছে:

http://www.tunerpage.com

http://www.techtunes.co

> গেমস জোন সংক্রান্ত যেকোনো সমস্যা, পরামর্শ, অভিযোগ এবং অন্যান্য যে কোনো বিষয়ের জন্য গেমস জোন এর ফেসুবক পেইজ http://www.facebook.com/games.zone.bd তে যোগাযোগ করুন অথবা সরাসরি লেখক গেমওয়ালার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন http://www.facebook.com/talented.fahad

Level 10

আমি ফাহাদ হোসেন। Supreme Top Tuner, Techtunes, Dhaka। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 662 টি টিউন ও 429 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 118 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

যার কেউ নাই তার কম্পিউটার আছে!


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

Ai game ami 4 bar over korsi……….gamer graphice ta fatafati