ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

সত্যিই কি গুগল এডসেন্স থেকে আয় করতে চান?

প্রথমেই জানিয়ে রাখি, এই লেখা অভিজ্ঞদের জন্য একেবারেই নয়, এই লেখা কেবলমাত্র তাদেরই জন্য যারা নতুন শুরু করছেন, যারা এডসেন্স থেকে আয়ের আশা রাখছেন। আজকে আমি আমার নিজস্ব অভিজ্ঞতার মধ্যে দিয়ে আপনাদেরকে জানাবো কিভাবে এডসেন্সের টাকা ঘরে তুলতে পারবেন আপনিও। তাই বলে ভাববেন না যে আমি এক্সপার্ট কেউ, একেবারেই তা নই আমি, বরং আমি সাধারন একজন এডসেন্স পাবলিশার, কোনোদিনও ৫০০ ডলারের বেশি পরিমানের চেক পাইনি আমি। কিন্তু, সেইসাথে এটাও বলবো যে যেদিন থেকে আমার নামে চেক আসা শুরু হয়েছে, তার পরে থেকে আমি প্রতিমাসেই নিয়মিত চেক পেয়েছি, এমন একটি মাস যায়নি যখন আমি চেক পাইনি। এডসেন্স নিয়ে অনেকের অনেক প্রশ্ন, অনেক বিষ্ময়, এডসেন্স থেকে নাকি অনেক টাকা আসে, অনেক এক্সপার্টরা নাকি এডসেন্সের আয় দিয়ে পুরোদস্তুর সংসার চালিয়ে দিচ্ছেন - এইসব অনেক কাহিনী শোনা যায়। প্রথমেই এই বিষয়ে বলবো যে এক্সপার্টদের প্রসঙ্গ ভুলে যান, একেবারেই মাথায় আনবেন না এইসব। সবাই এক্সপার্ট হয়না, আপনি ও আমি সাধারন মানুষ, মাসে ১০০ ডলার, কিম্বা শুরুতে দুই/তিন মাসে ১০০ ডলার এলেই নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করবেন। শুরুতেই নিজের মনকে এইভাবে প্রস্তুত করুন। নইলে আশাহত হওয়া ছাড়া আর পথ থাকবেনা। অল্পতে যারা খুশী থাকেন, তারা আশাহত হননা কখনোই।

ADs by Techtunes ADs

এবারে সরাসরি একটু কড়া কথায় আসছি। আপনি কি ব্লগিং শুরু করেছেন আয়ের চিন্তা করে? আপনার ব্লগ লেখার উদ্দেশ্য আসলে কি? ব্লগ থেকে টাকা রোজগার করা? তাহলে কিন্তু এডসেন্স চেক নাও পেতে পারেন, পেলেও অন্যদের চেয়ে অনেক বেশি কষ্ট করে আপনার চেক পেতে হতে পারে। জেনে রাখুন, গুগল এই আয়ের সুযোগ করে দিয়েছে ওয়েবমাস্টার এবং ব্লগারদেরকে, সেটা কিন্তু আপনার মূল উদ্দেশ্যকে খাটো করে টাকা রোজগারকে বড় করে দেখার জন্য নয়! গুগলকে আগে চিনুন ভালো করে। তারা যতোই কড়া হোক, তাদের নীতি যতোই শক্ত হোক, তবুও তারা কিন্তু সাধারন ইউজারের বন্ধু হিসেবেই আত্মপ্রকাশ করেছে। এডসেন্স যখন ছিলোনা, তখনো লাখ লাখ ওয়েবসাইট ছিল ইন্টারনেটে, কিন্তু কেবল বড় নামীদামী ওয়েবসাইটগুলিই টাকা পেতো কারন তাদের সাইটে তারা নিজেরা বানিজ্যিক বিজ্ঞাপন নিয়ে আসতো। কিন্তু গুগল তার এডসেন্স প্রোগ্রাম দিয়ে সাধারন মানুষের জন্যও এই সুবিধা খুলে দিয়েছে। তারা তাদের চেনাজানা কোম্পানীগুলির বিজ্ঞাপন আপনার/আমার ওয়েবসাইটে দেওয়ার সুযোগ দিয়েছে, যা আমরা নিজেরা ব্যাক্তিগত প্রচেষ্টায় হয়তো আনতে পারতাম না আমাদের ব্লগে। সুতরাং গুগল আমাদের পরম বন্ধু, এবং বন্ধুকে অপমান করবেন না - কোনোরকম নিয়মনীতির বিরোধিতা করবেন না কিম্বা ব্ল্যাকহ্যাট/গ্রেহ্যাট হ্যাকিং করতে চেষ্টা করবেন না এডসেন্স বিষয়ে।

এবারে আসছি ব্লগ করা বিষয়বস্তুর ব্যাপারে। আগেই বলেছি আয়ের চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে ব্লগিং করুন। যে বিষয় আপনার পছন্দ, সেই বিষয়েই ব্লগিং করুন। যা আপনি ভালো করে জানেন না, সেই বিষয়ে ব্লগিং করতে নিলে কন্টেন্ট কপি করার দিকে একদিন চলে যেতে হবে, নিজে কিছুই লিখতে পারবেন না। সুতরাং যে বিষয়ের উপরে আপনার আয়ত্ব নেই সেইসব বিষয়ে ব্লগিং থেকে দূরেই থাকুন। নইলে এখান ওখান থেকে কপি করে কিছুটা নিজের ভাষা মিশিয়ে দিতে পারলেও আখেড়ে গিয়ে আপনার ব্লগের মান কমবে, নতুনত্ব থাকবেনা কিছুই। ভেবে দেখুন, যে বিষয়ে আপনি ভালো জানেন, সেই বিষয়ে আপনি কতোখানি ভালো করে লিখতে পারবেন? সেই লেখা হবে ইউনিক, একান্তভাবে আপনার নিজের লেখা। সার্চ ইঞ্জিনেও যেমন এর দাম মিলবে, তেমন পাঠকরাও আপনার লেখা পড়ে বুঝবে যে লেখায় নতুনত্ব আছে, অন্যরকম ভাবে বিষয়টি বুঝানো আছে। তাই পাঠকরাও ফিরে আসবেন আবার, নতুন লেখা পড়তে।

অনেকেই মনে করেন যে বিভিন্ন ওয়েবসাইট/ব্লগে মন্তব্য ছেড়ে আসলে অনেক ভিজিটার পাওয়া যায়। একেবারেই নয়। এই করতে গিয়ে অনেকেই মন্তব্য হিসেবে শুধুই "ধন্যবাদ", "ভালো লিখেছেন", "খুব সুন্দর লেখা" ইত্যাদি মন্তব্য লিখে আসেন সেইসাথে নিজের ব্লগের লিঙ্ক দিয়ে আসেন। উদ্দেশ্য সেখানে নিজের লিঙ্ক দিয়ে আসা, সেটা অন্যেরাও ভালোই বোঝে, তাতে কেউ উৎসাহ পাবেনা আপনার ব্লগে আসার। ওইসব মন্তব্য না করে কার্যকরী কিছু মন্তব্য করুন, যে বিষয়ের লেখা সেই বিষয়ে আপনিও কিছু জানলে সেইসব মিলিয়ে মিশিয়ে মন্তব্য দিন, দেখুন তাতে অন্যান্য মন্তব্যকারীরা আপনার ব্লগে কতো ভীড় করে। এতে ভিজিটার বাড়তে বাধ্য, কারন অন্যান্যরা আপনার মন্তব্যেই দেখতে পাবে যে আপনিও বেশ কিছুটা জানেন, তাই আপনার ব্লগে গেলে হয়তো আরো জানা যাবে - তাই সকলে আসবে দেখতে। সেইসব ভিজিটারকে আপনার ব্লগে ধরে রাখার উপায় উপরের প্যারাগ্রাফেই লিখেছি। এবং, ভিজিটার বেশি মানেই এডসেন্সে ক্লিকের সম্ভাবনাও বেশি।

হ্যাঁ, আমি জানি এবং ইতিমধ্যেই এইসব নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে যে বিজ্ঞাপনে ৯৯% পাঠক ক্লিক করেন না। বেশ, ১% পাঠক তো করেন? জানেন, এই ১% ক্লিক কতোখানি মূল্যবান হতে পারে মাসে শেষে গিয়ে? সব বিজ্ঞাপনের ক্লিক রেট এক হয়না, বিজ্ঞাপনদাতাদেরও বাজেট থাকে তাইনা? তারা এক একজন এক একরকমের বিজ্ঞাপনের জন্য আলাদা আলাদা বাজেট করেন। তাই, সঠিক বিষয় হলে এবং সঠিক বিজ্ঞাপনে ক্লিক হলে এই ১% অনেক দামী প্রমানিত হতে পারে। যেমন আমি একটি উদাহরন দিচ্ছি, একই বিষয়ের উপরে বিজ্ঞাপন আলাদা এবং ক্লিক মূল্য আলাদা কেমন করে হয়। ধরুন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মদ খেয়ে গাড়ি চালানোর ব্যাপারে অনেক মামলা মোকদ্দমায় জড়িত আছেন অনেকে, এখন এই ব্যাপারে DUI (driving under influence) একটি দামী কীওয়ার্ড, কিন্তু এতে ভিজিটার আসলেও ক্লিকের মূল্য কম; অন্যদিকে দেখুন এই কীওয়ার্ড Miami DUI Attorneys, DUI Defence Attorneys ইত্যাদি অনেক বেশি দামী কীওয়ার্ড। কেন? শুধু DUI মানে কি হতে পারে, বিষয়টি সম্বন্ধে লেখা, তাইনা? যিনি মামলায় জড়িয়েছেন তিনি আগেই জানেন তিনি কিসে জড়িয়েছেন। তার প্রয়োজন উকিল, মামলায় সাহায্যের জন্য, তিনি খুঁজছেন উকিল, তাই Miami শহরে থাকা নাগরিক খুঁজছেন এটর্নি, এই কীওয়ার্ড লেখায় থাকলে বিজ্ঞাপনও পাবেন সেইরকম, এবং এবারে দিচ্ছি এর ক্লিক মূল্যের নমুনা। আজকের তারিখে DUI কীওয়ার্ডের মূল্য হচ্ছে $12.26, Miami DUI Attorneys $36.78 এবং DUI Defence Attorneys $32.60 - কি বুঝলেন? কোথায় ১২ ডলার আর কোথায় ৩২ ডলার? সুতরাং কার্যকরী কীওয়ার্ড রাখুন লেখার মধ্যে। এইভাবে এডসেন্সের আয় বাড়াতে পারবেন। আপনার চেষ্টা আপনি করে যাবেন, এর পরে ক্লিক হল কিনা সেটা আপনার হাতে নয়।

লেখাটি অনেক লম্বা আকারের হয়ে যাওয়ায় অনেকে পড়তে বিরক্তিবোধ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে আলাদা আলাদা ভাগে প্রকাশ না করে বাকি অংশটি আমার আকাশপ্রদীপ ব্লগে সম্পূর্ণ আকারে প্রকাশিত হল, লিঙ্ক এখানে

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি রিয়া। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 96 টি টিউন ও 362 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

জীবনের সব ভুল, যদি ফুল হয়ে যায়... জীবনের সব কালো, যদি আলো হয়ে যায়...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

অনেকদিন পর লিখলেন … কেমন আছেন আপু ?

    ভালো নাই রে ভাই, শরীর অনেক খারাপ। সুস্থ হতে সময় লাগবে।

খুব সুন্দর উদাহরন দিয়ে মানে প্রাকটিক্যাল ভাবে আমাদের বুঝানোর জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

লেখাটির বাকী অংশটুকু টেকটিউনস এ প্রকাশিত হলেই ভালো হত।
ধন্যবাদ এডসেন্স বিষয়ক মূল্যবান তথ্যর জন্য।

খুব উপকার হবে আমার …………ধন্যবাদ

ধন্যবাদ

কোথা হতে পাব যে কোন কি ওয়াডের মুল্য কেমন? দয়া করে জানাবেন। ধন্যবাদ
[email protected]

    গুগল এডওয়ার্ডস কীওয়ার্ড টুল থেকেই পাবেন কোন কোন কীওয়ার্ডের কতো মূল্য।

Level 0

রিয়া আপু ধন্যবাদ

আমিও নতুন আপনার কথা গুলো আজানের ধবনির মত শোনাচ্ছিল আপনাকে অনেক অনেক অনেক ধন্যবাদ । আমি নতুন ওয়েব সাইড নিয়ে কাজ করছি সেখানে এটি অনেক কাজে লাগবে। আচ্ছা আপু আমি কি এরকম সাহায্যে আপনাকে ২/১ মেইল করতে পারি। খুব উপোকার হত

    হ্যাঁ মিমন, নিশ্চয় ইমেইল করতে পারেন, আমি যতোদুর জানি তা আপনাকে জানাতে চেষ্টা করবো। প্রত্যহ আমাকে অনেকেই ইমেইল করেন, আমি সবাইকেই যথাসাধ্য উত্তর দিতে চেষ্টা করি, আপনিও জানাবেন।

আপু সত্যিই আপনার লেখা অনেক ভাল হয়েছে। এত ভাল করে সুন্দর করে আমার দেখা মতে কেউ বাংলায় এ্যাডসেন্স সম্পর্কে বলেনি…….সত্যিই আপনি অসাধারণ। আপনার কাছ থেকে আরও এ্যাডসেন্স বিষয়ে লেখা চাই।
শুভকামনা রইল আপনার জন্য…………

Level 0

আপনার লিখার স্টাইলে অন্যদের থেকে আলাদা কিছু আছে.

    নিজের লেখা একেবারেই ইউনিক এই কারনেই 🙂 শুধু আমার নয়, প্রত্যেকেরই আলাদা আলাদা লেখার স্টাইল থাকে।

Level 0

চমৎকার লেখা।
একটা ব্যক্তিগত প্রশ্ন, গুগল এডসেন্স নিয়ে কাজ শুরু করার কতদিন পর আপনি এডসেন্সের চেক পেয়েছিলেন? ব্লগের বিষয় কী ছিল? কয়টা ব্লগ/ সাইট ছিল?

    আমার প্রথম চেক পেতে সময় লেগেছে অনেক। কতটা সময় লেগেছে সেটা নির্দিষ্ট করে বলছিনা কারন এর সাথে অনেকের আশা নিরাশার প্রশ্ন জড়িয়ে আছে। তবে হ্যাঁ, এটা বলতে পারি যে শুরুতে জানতাম না, বুঝতাম না এতো তাই সময় লেগেছিল। প্রথম চেক এসেছিল মিশ্র বিষয়ের ব্লগ থেকে, মানে যাকে আমরা বলি current affairs blog সেইরকমের ব্লগ। নিউজ, পলিটিক্স, ক্রীড়াজগত, বানিজ্য সব মিলিয়ে পৃথিবীতে ঘটে চলা নানা ব্যাপারের উপরে আমার নিজস্ব মতামতের লেখা ছিল সেই ব্লগ। তখন একটি ভ্রমণের ওয়েবসাইট ছিল, আর একটিই ব্লগ ছিল ব্লগস্পট সার্ভারে। মূলত ব্লগ’টি থেকেই এসেছিল টাকা।

    আমি এডসেন্স নিয়ে কাজ করার চতুর্থ মাসে প্রথম চেক পাই

Level 0

আপু ধন্যবাদ, এতো সুন্দর লেখার জন্য।
আপনার কাছে জানতে চাই, একটা এডসেন্স একাউন্ট দিয়ে কয়টা সাইটে এড্ দেয়া যাই।
জানালে ভীষন খুশি হবো।

    নিয়ম মেনে চললে আপনি একটি একাউন্ট দিয়ে অগনিত সাইটে এডসেন্স কোড দিতে পারেন, এর কোনো উর্দ্ধসীমা নেই। যতো ইচ্ছা সাইট বানান এবং তাতে এডসেন্স দিন, শুধু বিধিনিষেধগুলি মেনে চলবেন।

    Level 0

    আপু আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Level 0

thank’s a lot .

Level 0

Nokia 5130Xpress mobile এর camera webcam হিসেবে ব্যবহার করা যায় কী ?
[email protected] please help me

really got clear view about adsense.
plz feel the thanks million.

plz do write more.

just wanted to know why u discontinued your Bangla blog? if u wish.

এডসেন্স এর ব্যাপারে কিছুই জানিনা তাই তেমন কিছু বুঝতে পারিনি তবে আপু আপনি অনেক ভাল লেখেন, এই ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে পারব কিভাবে ? A 2 Z !
ভাল থাকবেন ।