ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

অ্যাপেল পাসওয়ার্ড ম্যানেজার iCloud Keychain ব্যবহার করে যেকোনো পাসওয়ার্ড ম্যাক আর আইওএস এর মধ্যে সিঙ্ক করুন!

টিউন বিভাগ আইওএস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

iCloud Keychain হচ্ছে অ্যাপেল পাসওয়ার্ড ম্যানেজার যেটা প্রত্যেকটি ম্যাক, আইফোন, আইপ্যাড এর সাথে ডিফল্টভাবেই থাকে। এর মাদ্ধমে আপনি সহজেই নিরাপদ এবং জটিল পাসওয়ার্ড তৈরি করতে পারবেন, যেটা সাফারি ইন্টারনেট ব্রাউজার ব্যবহার করার সময় সহজেই এক্সেস করতে পারবেন।

ADs by Techtunes ADs

নিরাপত্তার খ্যাতিরে প্রত্যেকটি অ্যাকাউন্টে আলাদা আলাদা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা প্রয়োজনীয় এবং অবশ্যই সেই পাসওয়ার্ড গুলো কমপ্লেক্স হওয়াও বিশেষ দরকারি, এতে অ্যাকাউন্টকে আরো সুরক্ষিত করা সম্ভব। কিন্ত কমপ্লেক্স পাসওয়ার্ড মনে রাখা, তাও আবার আলাদা আলাদা পাসওয়ার্ড মনে করে রাখা সত্যিই অনেক বড় চ্যালেঞ্জের ব্যাপার। যদিও আমি কিলার পাসওয়ার্ড তৈরি আর মনে রাখার কিলার সব টিপস নিয়ে আগেই টিউন লিখেছি —কিন্তু তারপরেও পাসওয়ার্ড ম্যানেজার ব্যবহার করা সত্যিই আদর্শ আর সহজ একটি পদ্ধতি।

আজকের দিনে, অনেকে পাসওয়ার্ড ম্যানেজার ব্যবহার করার প্রতি অনেক সচেতন হয়ে উঠছে। লাস্টপাস পাসওয়ার্ড ম্যানেজার সত্যিই অসাধারণ সাথে যেকোনো প্ল্যাটফর্মে একে ব্যবহার করা যায়, কিন্তু এদের প্রিমিয়াম সার্ভিস গ্রহন না করলে অনেক ফিচার আনলক হয় না।

iCloud Keychain অ্যাপেলের প্রিমিয়াম কোয়ালিটির পাসওয়ার্ড ম্যানেজার যেটা সিকিউরিটিকে আসল ফোকাস রেখে তৈরি করা হয়েছে। এটির সাহায্যে আপনার নাম, পাসওয়ার্ড, এমনকি আপনার ক্রেডিট কার্ড নাম্বারও সিকিউরভাবে আপনার ম্যাকে সেভ করে রাখা যাবে। আর অবশ্যই এটা ব্যবহার করা সম্পূর্ণই ফ্রী!

অ্যাপেল পাসওয়ার্ড ম্যানেজার iCloud Keychain

সত্যি বলতে iCloud Keychain হচ্ছে সাফারি ব্রাউজারের একটি অংশ, যেটা আপনার ইউজার নেম, পাসওয়ার্ড এবং ব্যাংকিং তথ্য গুলোকে সেভ করে রাখে আর ম্যাক এবং আইওএস এর মধ্যে সিঙ্ক করতে সাহায্য করে। আপনার জমা থাকা পাসওয়ার্ড নিয়ে একদমই চিন্তা করতে হবে না, কেনোনা সেটা অত্যন্ত শক্তিশালী এনক্রিপশনের মধ্যে থাকে, যেটার "কী" ২৫৬ বিটের।

অ্যাপ্লিকেশন এনক্রিপশন আর এনক্রিপশন "কী" বুঝতে এই টিউনটি দেখুন! তো বুঝতেই পাড়ছেন, সুবিধার সাথে সাথে সিকিউরিটিও অসাধারণ। আপনি ম্যাকে বসে থেকে কোন সাইটের জন্য রেজিস্ট্রেশন করলেন, আপনার পাসওয়ার্ড ডিটেইলস স্বয়ংক্রিয়ভাবে সকল অ্যাপেল ডিভাইজ গুলোর মধ্যে সিঙ্ক হয়ে যাবে, মানে পরে কোন ঝামেলা আর পাসওয়ার্ড মনে রাখা ছাড়ায় আপনার আইপ্যাডে সাইটটি লগইন করতে পারবেন।

আপনি বাইরে কোথাও চলে গেছেন, নো টেনশন, আপনার আইফোন থেকেও সহজেই যেকোনো সাইট পাসওয়ার্ড আর লগইন  ডিটেইলস মনে না রেখেই লগইন করতে পারবেন।

অবশ্যই, এতে শুধু ওয়েবসাইট লগইন ডিটেইলস নয়,  iCloud Keychain আরো অনেক কিছুই করতে পারে। এটি আপনার ইমেইল অ্যাকাউন্ট, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, ক্রেডিট কার্ড, নেটওয়ার্ক পাসওয়ার্ড পর্যন্ত মনে রাখতে পারে আর সকল ডিভাইজ গুলোর মধ্যে সিঙ্ক করাতে পারে।

iCloud Keychain সিকিউরিটি

iCloud Keychain ডিফল্টভাবে অফ করা থাকে, অর্থাৎ এটি ব্যবহার করার আগে আপনাকে একে এনাবল করে নিতে হবে। আমি নিচে সব প্রসেস গুলো বর্ণিত করবো, কিন্তু তার পূর্বে এর সিকিউরিটি নিয়ে কিছুটা আলোচনা করে নিলে বেশি ভালো হবে। যেহেতু এটি একটি ক্লাউড নির্ভর অ্যাপ্লিকেশন তাই অবশ্যই এর সিকিউরিটির দিকে আপনার নজর রাখা প্রয়োজনীয়।

ADs by Techtunes ADs

অ্যাপেল এই বিষয়ে যথেষ্ট সচেতন, তাই এতে ২৫৬-বিটের এইএস এনক্রিপশন ব্যবহার করা হয়েছে। ডাটা ট্র্যান্সমিট এবং স্টোর, উভয় ক্ষেত্রেই এই স্ট্যান্ডার্ড ব্যবহার করে ডাটা গুলোকে এনক্রিপশন করানো হয়ে থাকে। তো বুঝতেই পাড়ছেন, ব্রুট ফোর্স অ্যাটাক করে এই ধরনের কী ব্রেক করা কতোটা মুশকিলের কাজ।

তবে এর একটি দুর্বল পয়েন্টও রয়েছে, যেটা সম্পর্কে আপনার জানা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এর ডিফল্ট সেটিং ব্যবহার করলে একটি ৪ ডিজিটের সিকিউরিটি কোড জেনারেট করে, যেটা ম্যাক আর আইওএস ডিভাইজ গুলোকে সিলেক্ট করার সময় ব্যবহৃত হয়। এই ৪ ডিজিটের সিকিউরিটি কোড শুধু মনে রাখতেই আপনার সুবিধা হবে, কিন্তু এটা অনেক দুর্বল একটি কোড। কেনোনা ৪ ডিজিটে কেবল মাত্র ১০০০টি সমন্বয় হতে পারে, অর্থাৎ কেউ মাত্র ১০০০ বার ট্রায় করার মাধ্যমেই ৪ ডিজিটের কোডকে ব্রেক করে ফেলতে পারবে।

যাই হোক, আপনাকে অবশ্যই এই চার ডিজিট কোডের উপর ভরসা করে চললে হবে না। আপনাকে ডিফল্ট কোড ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে এবং নিজে থেকে আরো লম্বা আর শক্তিশালী কোড জেনারেট করে নিতে হবে। এতে হয়তো এই লম্বা আর জটিল সিকিউরিটি কোড আপনার মনে রাখতে আর ডিভাইজ গুলোতে প্রবেশ করানোর সময় ঝামেলা হতে পারে, কিন্তু সিকিউরিটির জন্য এটা আপনার করতেই হবে।

iCloud Keychain সেটআপ

যখন আপনি প্রথম iCloud Keychain ব্যবহার করতে চাইবেন, অবশ্যই আপনার iCloud সিকিউরিটি কোড জেনারেট করতে হবে। যখন আপনি নতুন কোন ডিভাইজকে অ্যাড করতে চাইবেন অবশ্যই এই কোডটি প্রয়োজনীয় হবে। তাছাড়া আপনি টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন সিস্টেমও ব্যবহার করতে পারবেন, একটি কোড যেটা এসএমএস এর মাধ্যমে আপনার কাছে চলে আসবে। এর মানে, কারো কাছে আপনার অ্যাপেল আইডি আর পাসওয়ার্ড থাকার পরেও সে আপনার অ্যাকাউন্ট লগইন করতে পারবে না। এবার নিচের স্টেপ অনুসরণ করুন;

আইফোন; —

  1. প্রথমে সেটিং থেকে  iCloud > Keychain এ যান, এবার ফিচারটি অন করে নিয়ে আপনার অ্যাপেল আইডি আর পাসওয়ার্ড প্রবেশ করান।
  2. সিকিউরিটি কোড জেনারেট আর সেট করার জন্য অ্যাপটির নির্দেশনা গুলো অনুসরণ করুন।
  3. একটি ফোন নাম্বার প্রবেশ করিয়ে রাখুন, যেখানে ম্যাসেজ রিসিভ করাতে চান।

ম্যাক, আইপ্যাড, অন্যান্য ডিভাইজ; —

  1. আইওএস এর ক্ষেত্রে যান Settings > iCloud > Keychain অথবা ম্যাকের ক্ষেত্রে System Preferences > iCloud > Keychain; এবার ফিচারটি অন করে নিয়ে আপনার অ্যাপেল আইডি আর পাসওয়ার্ড প্রবেশ করান।
  2. রিস্টোর ইউথ সিকিউরিটি কোড নির্বাচন করুন এবার আগের জেনারেট করা কোডটি এখানে ইনপুট করান। অথবা অ্যাপেল আইডি পাসওয়ার্ড প্রবেশ করিয়ে আলাদা ডিভাইজ আপ্রুভালও নিতে পারেন।
  3. একবার আপনার ডিভাইজ আপ্রুভ হয়ে গেলে ব্যাস ডিভাইজটি থেকে Keychain আরামে ব্যবহার করতে পারবেন। আর সকল পাসওয়ার্ড সিঙ্ক করতে শুরু হয়ে যাবে।

আপনি হয়তো অ্যাপেল প্রোডাক্ট ব্যবহার করেন, আর অ্যাপেল ডিফল্ট সফটওয়্যারও ব্যবহার করতে পছন্দ করেন, কিন্তু ম্যাল্টি প্ল্যাটফর্ম হলে সফটওয়্যারটি আরো উপকারি হতো। আপনি হয়তো সাফারি পছন্দ করেন, কিন্তু অনেকেই গুগল ক্রোম বা আলাদা ব্রাউজার ব্যবহার করে, তাদের জন্য এটি কাজ করবে না।

অপরদিকে লাস্টপাস, ওয়ানপাসওয়ার্ড, এই অ্যাপ গুলো যেকোনো প্ল্যাটফর্ম সহজেই সমর্থন করে। তো আপনি কি iCloud Keychain ব্যবহার করেন? যদি আলাদা পাসওয়ার্ড ম্যানেজার ব্যবহার করেন, সেটার নাম আমাদের টিউমেন্ট করে জানান।

ADs by Techtunes ADs

ADs by Techtunes ADs
Level 6

আমি তাহমিদ বোরহান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 6 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 178 টি টিউন ও 682 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 33 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

আমি তাহমিদ বোরহান। টেক নিয়ে সারাদিন পড়ে থাকতে ভালোবাসি। টেকটিউন্স সহ নিজের কিছু টেক ব্লগ লিখি। TecHubs ব্লগ এবং TecHubs TV ইউটিউব চ্যানেল হলো আমার প্যাশন, তাই এখানে কিছু অসাধারণ করারই চেষ্টা করি!


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

উপক্রিত হলাম, আপনাদের মত কয়েকজন মানসম্মত টিউনার আছে বলেই এখনো ডেইলি এক দুইবার টেকটিউন্সে আসি।