ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

লিনাক্স উবুন্টু এগুলা আসলে কি??

ADs by Techtunes ADs

উইন্ডোজ ইউজার অনেকেই এই পোস্টের টাইটেল দেখে টিউনে ঢুকবে না।ফ্রিতে ফেলে বাঙ্গালী নাকি খড়কুটা নিতেও আপত্তি করে না কিন্তু যত আপত্তি শুধু জানালা ছেড়ে মুক্ত অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারের বেলায়।মুক্ত অপারেটিং সিস্টেম বলতে আমি লিনাক্সের কথা বলছি।অনেকের কাছে প্রশ্ন আসতে পারে লিনাক্স আসলে কি? লিনাক্স হলো উইন্ডোজের মতই একটি আলাদা পুর্নাঙ্গ ওপেনসোর্স অপারেটিং সিস্টেম।মুলত এটি অপারেটিং সিস্টেম না বলে বলা উচিত কার্নেল।লিনাক্স কার্নেলের অন্তর্গত মিন্ট,উবুন্টু,ফেডোরা,ডেবিয়ান,লুসিড লিঙ্কস ,রেডহাট প্রভৃতি হল এক একটি অপারেটিং সিস্টেম।

-কি মাথা আউলাইয়া গেসে?আচ্ছা আরেকটু খোলাসা করি।

যেমন, এক্সপি,ভিস্তা,সেভেন আমরা যে যেটাই ব্যবহার করি এগুলো হল এক একটি অপারেটিং সিস্টেম এবং এগুলোর কার্নেল হল উইন্ডোজ এনটি।তেমনি উবুন্টু, মিন্ট, ফেডোরা, ডেবিয়ান, ইউনিক্স , রেডহাট প্রভৃতি হল এক একটি অপারেটিং সিস্টেম এবং এগুলোর কার্নেল হল লিনাক্স।আপনি চাইলে আপনার ইচ্ছামত এদিক-সেদিক করে নতুন অপারেটিং সিস্টেম বানাতে পারেন।লিনাক্সকে ভিত্তি করে যে সব অপারেটিং সিস্টেম গড়ে উঠে তাদের লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশান বা লিনাক্স ডিস্ট্রো বলা হয়। এখন আসুন কাজের কথায়,অরিজিনাল উইন্ডোজ এর সিডি কিনতে আপনার খরচ হবে প্রায় ১০০ ডলারের উপর।যেহেতু এই সামর্থ্য আমাদের নেই তাই আমরা চোরা (পাইরেটেড) সিডিগুলো কিনে ব্যবহার করছি।অথচ লিনাক্স সম্পুর্ন ফ্রি।চাইলে আপনি ডাউনলোড করতে পারেন অথবা বন্ধুবান্ধব থেকে থাকলে সিডিতে রাইট করে নিতে পারেন।আপনি বলতে পারেন,

"আরে ধুর!! লিনাক্সে গুরুত্বপুর্ন সফটওয়ার ব্যবহার করা যায় না"..

-আপনি কনফিডেন্সের সাথে ১০০%  ভুল। 😀

আপনি যে সব সফটওয়ার ব্যবহার করছেন যেমন,ব্রাউজ এর জন্য মজিলা ফায়ারফক্স,ক্রোম,অপেরা,থান্ডারবার্ড, গান শোনার জন্য ভিএলসি প্লেয়ার,লেখার জন্য অভ্র কিবোর্ড সবেই তো ওপেনসোর্স। এগুলো লিনাক্সে ব্যবহার করা যাবে।এগুলোইতো আপনি আপনার কম্পিউটারে ব্যবহার করছেন।এছাড়া ফটোশপের বিকল্প গিম্প,লিঙ্কস্পেস,অটোক্যাডের বিকল্প কিউক্যাড,গুগল স্কেচাপ সব ব্যবহার করতে পারবেন একদম ফ্রিতে।ত্রিডি গেম খেলতে উইন্ডোজের কথা চিন্তা করছেন? দরকার কি এসবতো লিনাক্সেও খেলা যায়।সাথেতো কার্ড,পোকার,ছোটদের জন্য অন্যান্য গেম আছেই। 😀

মোদ্দাকথা কোন সফটওয়ার আপনাকে কিনতে হবে না!! লিনাক্সে সফটওয়ার ম্যানেজার নামে একটা আলাদা বিভাগ আছে যেখান থেকে আপনি প্রয়োজনীয় সব সফটওয়ার ফ্রিতে ডাউনলোড করতে পারবেন।  আরে ভাই তারপরও সমস্যা মনে হলে,উইন্ডোজের সফটওয়্যারগুলোই ওয়াইন নামে একটা এপ্লিকেশান দিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন।অসুবিধার অযুহাত ঢাকুন সদিচ্ছার প্রবলতায়। চিন্তা করুন,লিনাক্স এ ভাইরাস এর কোন বেল নেই।তাই সিকিউরিটি নিয়ে আপনাকে ভাবতেই হবে না।নিশ্চিন্তে ইন্টারনেটে ভ্রমন করতে পারবেন।গুরুত্বপুর্ন পাসোয়ার্ড নিয়ে কোন চিন্তাই করতে হবে না।পৃথিবীর তাবত সব অনলাইন ব্যাংকিং সিস্টেম,সয়ংক্রিয়ভাবে ট্রেন-বাস এর টিকিট কাটার সিস্টেম সব লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত হচ্ছে।এই মুক্ত অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে একভাবে যেমন অর্থের সাশ্রয় হচ্ছে তেমনি সাশ্রয় হচ্ছে সময়ের।অথচ অভাগা আমরা এখনো সেই ভাইরাস-এন্টিভাইরাস, সিকিউরিটির চিন্তা নিয়ে ব্যাস্ত। 😕

ADs by Techtunes ADs

লিনাক্স নিয়ে আমি তেমন অভিজ্ঞ নই কিন্তু গত কয়েকদিন ব্যবহার করে খুবেই ভাল লাগছে।আপনারাও ব্যবহার করে দেখুন না।ভালো লাগবে আশাকরি।আলাদা পার্টিশান করার দরকার নেই আপাতত উইন্ডোজের পাশাপাশি ব্যবহার করে দেখুন।লিনাক্স সম্পর্কিত যেকোন সমস্যা সমাধানের জন্য লিনাক্স কমিউনিটি আপনাকে সাহায্যের জন্য প্রস্তুত।টেকটিউনস ও লিনাক্সের জন্য আলাদা একটি বিভাগ আছে। ইতিমধ্যে আপনাদের সাহায্য করার জন্য FOSSBD সংগঠন এবং সম্পুর্ন ডেডিকেটেড লিনাক্স ফোরাম নতুন করে সৃষ্টি হয়েছে।এছাড়াও বাংলা বিভিন্ন ফোরাম যেমন প্রজন্ম, রংমহলে এবং অন্যান্য ফোরামে ওপেনসোর্স নিয়ে আলাদা বিভাগ খোলা হয়েছে।আপনার সদিচ্ছাই পারে দেশকে পাইরেসীর গ্লানিমুক্ত করতে। আসুন না অন্তত একটিবার লিনাক্স ব্যবহার করে দেখি।আসুন অর্থ ও শর্তের বেড়াজাল মুক্ত, পাইরেসির কলঙ্ক ও গ্লানি মুক্ত, ভাইরাস মুক্ত কম্পিউটিং কে এগিয়ে নিয়ে যাই সামনের দিকে।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি নিশাচর নাইম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 47 টি টিউন ও 1185 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

তেমন কিছু জানি না, কিছু জানলে তা অন্যদের শিখানোর চেষ্টা করি যতটুকু সম্ভব।জ্ঞান নিজের মাঝে সীমাবদ্ধ না রেখে সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়াই প্রকৃত সার্থকতা।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

ধন্যবাদ নাইম ভাই। লিনাক্স নিয়ে একটি বিশাল বক্তব্য দেওয়ার জন্য 😉

    ধন্যবাদ ভাই।লিনাক্স নিয়া বেশ মজায় আছি তাই শেয়ার করলাম।

ভাই আমি কিছু দিন আগে একটা উবুন্টু ১০.১০ এর সিডি অর্ডার দিয়ে ফ্রিতে আনি , অনেক সুন্দর ও ভাল লেগেছে কিন্তু ওটাতে ইন্টারনেট কানেক্ট করতে পারছি না তাই ব্যাবহার করা হয় না । আমি ব্রডব্যান্ড ব্যবহার করি আর তাতে ডায়াল করে কানেক্ট করতে হয় । কিভাবে করি জানিনা । আপনি কি জানেন ?

    একমাত্র ওয়াইম্যাক্স (বাংলালায়ন-কিউবির চাইনিজ ২ নাম্বার ডংগলগুলো) ছাড়া নতুনগুলো তে সব ধরনের ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করা যায়।আপনি কি সংযোগ ব্যবহার করেন একটু জানান।

    @বাপ্পি ভাই:

    উবুন্টুর প্যানেলে নেটওয়ার্ক আইকনে রাইট ক্লিক করে Edit Connection এ যান। আপনার কানেকশানটা হচ্ছে PPPOE কানেকশান। একটা উইন্ডো আসবে। উপরে কয়েকটা ট্যাব থাকবে, যেমন: wired connection, wireless, mobile broadband, DSL ইত্যাদি। আপনি শেষেরটায় যাবেন। ওখানে দেখবেন আপনার ইউজারনেম পাসওয়ার্ড দেয়ার জায়গা আছে। আপনি আপনার PPPOE কানেকশানের Username & Pass দিন। অন্য কিছু দেয়া লাগবে না। এমনকি কোন অটোডায়ালারও বানাতে হবে না। এরপর Apply দিন। আপনাকে আপনার উবুন্টু Admin Account এর pass চাইবে, ইনপুট করুন। এরপর Close দিয়ে বেরিয়ে আসুন। উইন্ডোজের মত ঝামেলা পাবেন না, উবুন্টু বুট করে লগিন করলেই অটোকানেক্ট হবে, ডায়ালও করতে হবে না।

    চাইলে একবার username & pass দিয়ে ভুলে যেতে পারেন 😀

    এরপরেও সমস্যা হলে নিচের লিঙ্কটি ভিজিট করুন।তারপর সমস্যা হলে এখানে জানান।ধন্যবাদ মুনতাসির বিল্লাহ মুন্না ভাইকে সাহায্য করার জন্য।

    http://goo.gl/6xuxI

কিছু আইডিয়া নিয়েছি লিনাক্স ফোরামে অনিরুদ্ধ ভাই এবং প্রজন্মের সমন্বয়ক শামীম ভাই থেকে কিছু স্লোগান কপি মেরেছি।তাদের কাছে অনুমতি চাইতে পারিনি বলে দুঃখিত। আশাকরি আপনাদের হৃদয় ওপেনসোর্সের মত নিঃসার্থ হওয়াতে আমাকে মাপ করে দিয়েছেন।

অত্যন্ত সুন্দর টিউন করেছেন। খুবই ভাল লাগল।

    ধন্যবাদ।আশাকরি এই টিউন পড়ে লিনাক্স ব্যবহারের প্রতি আগ্রহী হয়েছেন।

ভাইয়া আমি linux ব্যবহার করার অনেক চেষ্টা করেছি। আমি উবুন্টু(6.06) ইনিস্টল দিয়ে অনেক বার ডিলিট করেছি। কারণ আমার drive গুলো ওপেন হয়না । আর আমার প্রয়োজনীয় সফ্টওয়ার ‍গুলো সেটআপ নেয় না। আমি জানি উবুন্টু তে .exe ফাইল সাপোর্ট করেনা । আমার এক্সপি তে ব্যবহার কৃত প্রয়োজনীয় সফ্টওয়ার ‍গুলো কিভাবে উবুন্টু তে ইনিস্টল দিব একটু বিস্তারিত ভাবে বলবেন কি? কিংবা লিংক দিবেন কি? আমি zoom Ultra কিভাবে ব্যবহার করব । আমার মডেম হাউয়াই মডেম। linux সাপোর্ট করেনা কিভাবে মডেম সাপোর্ট করাবো । ‍সাউন্ড এবং গ্রাফিক্সের ড্রাইভার কিভাবে ইনিস্টল দিব। একটু সাহায্য করবেন ।

    করছেন কি!

    ৬.০৬ নাম্বারের ভার্সন কোথায় পেলেন! উবুন্টুর ভার্সন রিলিজ হয় ৬ মাস পর পর। এপ্রিলে আর অক্টোবরে। ভার্সনের নাম্বারগুলো সাল আর মাসের নাম্বার দিয়ে হয়। যেমন ৬.০৪ হল ২০০৬ সালের এপ্রিলের রিলিজ। এরপর ৬.১০ – অক্টোবর ২০০৬। সর্বশেষটা হল ১১.০৪ ২০১১ সালের এপ্রিল মাসের।

    প্রতি নতুন ভার্সনের সাথে সাথে এটা আরো উন্নত হয়, হার্ডওয়্যার সাপোর্ট বাড়ে; কিন্তু উইন্ডোজের নতুন ভার্সনের মত বেশি বেশি হার্ডওয়্যার (RAM) ইত্যাদি লাগে না। তাই সর্বশেষ ভার্সন ব্যবহার করা উত্তম। পুরাতন ভার্সনে অনেক সমস্যা এবং কম হার্ডওয়্যার সাপোর্ট থাকা স্বাভাবিক।

    আপনার জন্য ভাল হবে উবুন্টু ব্যবহার না করে লিনাক্স মিন্ট ব্যবহার করা। কারণ এটা উবুন্টুকে ঘষামাজা করে তৈরী, এতে মাল্টিমিডিয়া কোডেকগুলো দেয়া আছে – ফলে সেগুলো ডাউনলোড করা লাগবে না। এছাড়া এর ইন্টারফেসটাও বেশি পরিচিত মনে হবে; আর আপনার জুম কিংবা জুম আল্ট্রা মডেম অটোমেটিক পাবে – এজন্য আলাদা কোন তকলিফ করা লাগবে না :)। আপনি সংগ্রহ করার জন্য আমার সাথে ফোনে যোগাযোগ করতে পারেন। ঢাকায় থাকলে সুবিধামত সময়ে পেনড্রাইভেও কপি করে নিয়ে যেতে পারেন – কিভাবে কি করতে হয় সেটা নাহয় আপাতত বলে কমেন্ট ছোট রাখি।

khub valo likhensen. Emon dhoroner lekha thekei amar linux er proti agroho jage . Ami pray 2 mash jabot XP'r pashapashi ubuntu use korsi vabsi xp chere ekebare linux e chole jabo.

    আপনার কমেন্ট পড়ে অনেক ভালো লাগল।আমি শুধু বাংলালায়নের জন্য জানালা কে পুরোপুরি বিদায় দিতে পারছি না। 🙁 না হয় কবে বাদ দিয়ে দিতাম।আর বাংলায় লিখার চেষ্টা করুন।আপনাদের জন্য কমেন্ট বক্সের নিচে অনেকগুলো বাংলা লেয়াউট দেয়া আছে।ওগুলো দিয়ে চেষ্টা করুন না হলে অভ্র কিবোর্ড ডাউনলোড করে নিন।

    ভাই কিছু মনে করবেন না কমেন্ট টা আমি মোবাইল থেকে করেছিলাম তাই ইংরেজিতে করতে হয়েছে পিসি

এই গোলা use করতে গেলে পিসি তে RAM, AGP, FREE SPACE কতটুকু থাকতে হয়????
সব সিডি দোকানে পাওয়া যাবে এই সিডি ???

    @পাগলা TAMIM ভাই:

    ভাই, আপনার পিসিতে ২৫৬ মেগা র‍্যাম, ৬৪ মেগা AGP (আমি শিওর না, সম্ভবত ৩২-এও চলবে) আর ৩ গিগা স্পেস থাকলেই যে কোন লিনাক্স ডিস্ট্রো (বন্টু, মিন্টু, ঝন্টু যা মনে চায়, তবে কুবুন্টুতে একটু বেশি requirement লাগবে) চালাতে পারবেন।

    লিনাক্স ফ্রী জিনিস, কেনার কোন দরকার নেই। সাইট থেকে ডাউনলোড করে নেন। ৭০০ মেগাবাইট ডাউনলোড করতে না চাইলে ১৫ টাকা দিয়ে একটা Blank CD কিনে আমার কাছে আসেন, কোন ডিস্ট্রো লাগবে বলেন, আমি রাইট করে দেব।

    তারপরেও যদি ঝামেলা মনে করেন, তাহলে কিনতে পারেন। ইদানীং সবখানেই পাওয়া যায়, কিন্তু লেটেস্ট ভার্সন পাওয়া যায় না। যেমন গত সপ্তাহে Ubuntu 11.04 Natty Narwhal রিলিজ হয়েছে, দোকানে এই বস্তু পাবেন কিনা সন্দেহ আছে। অথচ আমি দিব্যি চালাচ্ছি…………. 😀

    ফ্রী স্পেসের ব্যাপারটা মুন্না ভাই মিস করে গেছেন দেখে আমিই লিখে দিলাম:

    আপনার কোনো পার্টিশনে মোট ১০ গিগা জায়গা থাকলেই আরামে চলবে। মিনিমাম ৬গিগা রেকমেন্ড করে, সাথে একটু ভার্চুয়াল মেমোরী (যেটাকে লিনাক্সে সোয়াপ swap বলে) – এই ভার্চুয়াল মেমোরির জন্য লিনাক্সে একটা সোয়াপ ড্রাইভ বানিয়ে নেয়: থাম্বরুল হল RAM এর দ্বিগুন পরিমান তবে সেটা ২ গিগার বেশি হওয়ার দরকার নাই।

    ইনস্টল করতে চাইলে সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হল পিসির একটা ড্রাইভ পুরা খালি করে রাখুন, পরে ইনস্টলের সময় ম্যানুয়াল পার্টিশন করার অপশন সিলেক্ট করে সেই পার্টিশন দেখিয়ে দিতে হবে। ওখানে লিনাক্স নিজের মত ড্রাইভ বানিয়ে নেবে।

    আপনার পেন ড্রাইভ (মিনিমাম ১ গিগা) নিয়ে যার কাছে ডাউনলোড করা আছে তার বাসায় চলে যান, পেনড্রাইভকেই বুটেবল ইনস্টলার বানিয়ে দিতে পারবে। – সিডি খরচেরও দরকার নাই।

    আরেকটা ব্যাপার, লিনাক্সের বেশিরভাগ ডিস্ট্রিবিউশনই ইনস্টল ছাড়াই RAMএ লোড করে চালানো যায়। এজন্য এর লাইভ সিডি বা পেনড্রাইভটাই যথেষ্ট। এভাবে মাঝে মাঝেই কলিগদের ভাইরাসে ডাউন হওয়া পিসি বুট করে সেখান থেকে ওনাদের জরুরী ফাইলগুলো অন্য পেনড্রাইভে ভরে দেই। আর আমার পিসিতে লাগিয়ে অনেকেই পেনড্রাইভের ভাইরাসগুলো মুছে নিয়ে যায় – কারণ লিনাক্সে উইন্ডোজের ট্রিক্সগুলো কাজ করে না, ফলে পেনড্রাইভে লুকিয়ে থাকা ভাইরাস ফাইলগুলো সাধারণ ফাইলের মতই দৃশ্যমান থাকে।

    ধন্যবাদ শামীম ভাই এবং মুন্না ভাইকে মন্তব্যগুলোর উত্তর দেয়ার জন্য।

    ভাই আপনের ঠিকানা বলেন। আমি আসতে পারলে আসব না হলে সিডি কিনা আপনাকে পাঠাইয়া দিব। আমাকে দিয়েন।

    আমার ঠিকানা ও ফোন নং পাবেন আমার হোমপেজে (এই নিয়ে এই টিউনের কমেন্টেই ৩বার দিলাম 😉 )
    http://sites.google.com/site/mmhzaman/curriculum_vitae

    আপনি পেনড্রাইভ নিয়েও নিতে আসতে পারেন। ফোন দিয়েন কথা হবে। আমার বাসা ফার্মগেটের কাছে, অফিস গুলশান-২।

Level 0

দারুন হয়েছে নাইম ভাই।

    ধন্যবাদ ডাঃ শামীম ভাই।লিনাক্স ইউজারদের মধ্যে আপনিই বোধহয় সবচেয়ে বেশী একটিভ।লিনাক্স নিয়ে আপনার অভিজ্ঞতা শেয়ার করার জন্য অনুরোধ রইল।

Level 0

চমৎকার টিউন।

    ধন্যবাদ।লিনাক্স কে এগিয়ে নিতে আসুন সবাই মিলে সাহায্য করি।

Level 0

মুনতাসির বিল্লাহ মুন্না ভাই আমি Farmgate থাকি আপনার সাথে যোগাযোগ কি ভাবে করব জানান ।
আমার email [email protected] .

    আমিও ফার্মগেট থাকি 🙂

    ৭৩ গ্রীনরোড – এটা হল বসুন্ধরার পেছনদিকদিয়ে যে গলিটা আছে সেটাতে, তবে অত ভেতরে না – গ্রীনরোডের কাছে। ইস্টার্ন হাউজিং-এর সবুজ রঙের ৯ তলা এপার্টমেন্ট কমপ্লেক্স।

ভাই আমার কাছে ubuntu 10 & fedora 14 cd আছে কিন্তু MP3 গান শুনতে পারিছনা তাই ব্যবহার কিরনা। কিভাবে MP3 গান শুনতে পারবো তার screen shot সহ একটি টিইন করেল উপকৃত হব। + কিভাবে banglalaion wimax ব্যবহার করেবা তার ও উপায় জানেত চাই।+ DVD র .vob format কী দেখা যায়?

    mp3 গান শুনতে চাইলে নেট থেকে কোডেক নামিয়ে নিতে হবে। এটা করা খুবই সোজা। উবুন্টুর সফটওয়্যার সেন্টার (মেনুতেই এই নামে আছে) খুলে সেখানের সার্চ বক্সে restricted extras লিখুন, তাহলে হাজার হাজার সফটওয়্যার থেকে বেছে নিয়ে চারটা দেখাবে। এর মধ্য থেকে Ubuntu restricted extras টাতে ক্লিক করলেই এর সাথে ইনস্টল বাটন দেখতে পাবেন। ক্লিক করে অপেক্ষা করুন, নেট থেকে কোডেক নামিয়ে ইনস্টল করে নেবে। এতে প্রায় আড়াইশ মেগা ডাউনলোড করে বলে মনে পড়ে।

    এরপর খালি আপনার আগের ফাইলগুলোতে ডবল ক্লিক করে দেখুন চলে কি না!

    আপনি যদি এইসব ডাউনলোডে না যেতে চান, তবে উবুন্টুর বদলে লিনাক্স মিন্ট ব্যবহার করতে পারেন। এর লাইভ সিডিতেই কোডেকগুলো দেয়া থাকে (এক সিডিতে আটানোর জন্য তাই গেম বাদ দিতে হয়েছে)।

অত্যন্ত সুন্দর টিউন করেছেন।
একটা কথা linux এ কি microsoft office এর কাজ কনো সফটওয়্যার দিয়ে করা যাই?? যেমন ওয়ার্ড প্রসেসিং, এক্সেল।
আলাদা partition করে লিনাক্স চালাতে স্পেস কত লাগে আর এক্ষেত্রে র‍্যাম ১ জিবি হলে হই নাকি?

    জ্বী করা যাবে। উবুন্টু বা অন্য যে কোন লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশনেই ওয়র্ড, এক্সেল, পাওয়ারপয়েন্টের ফাইল খোলা এডিট করা, তৈরী করা সবই করা যায়। এমনকি docx টাইপের ফাইলও অনায়েসে খোলে। এজন্য নতুন ভার্সনগুলোতে লিব্রে অফিস নামক সফটওয়্যার দেয়া আছে। আগে ওপেন অফিস নামক সফটওয়্যার দেয়া থাকতো।

    আলাদা পার্টিশন করে চালাতে ১০ গিগা যথেষ্ট। সিস্টেমের জন্য কমপক্ষে ৬ গিগা রেকমেন্ড করা হয় যদিও সিস্টেম আনপ্যাক করলে সেটা আড়াই গিগা হয় (বাকীটুকু ভবিষ্যত সফটওয়্যার, আপডেট ইত্যাদির জন্য)। আর ভার্চুয়াল মেমরি হিসেবে লিনাক্সে একটা ১ বা ২ গিগা আলাদা পার্টিশন করা হয় (এটাকে সোয়াপ বলে)। বাকী অংশ আপনার হোম ফোল্ডার (=মাই ডকুমেন্টস)। আপনি চাইলে হোম ফোল্ডার হিসেবে অন্য পার্টিশন ইনস্টলের সময়েই ঠিক করে দিতে পারেন। এমনকি নিজের ফাইলগুলোকে হোম ফোল্ডারে না রেখে আপনার অন্য উইন্ডোজ ড্রাইভেও রাখতে পারেন কোনরকম সমস্যা ছাড়াই।

    ১ গিগা RAMএ খুব ভাল চলবে। আমি বাসায় ৫১২ মেগা মেমরি দিয়ে চালাচ্ছি।

লিনাক্স অনেক ভাল। আমার উইন্ডোজ এ এখন এলার্জি হয়

    আমারো এখন বিরক্ত লাগে।যেমন, ছোট কাজিনকে দিয়েছিলাম গেম খেলতে স্টান্ডার্ড ইউজার একাউন্ট করে।কিন্তু অই একাউন্ট থেকে আমার দরকারী কিছু জিনিস ও ডিলিট করে দিয়েছে।এডমিনিস্ট্রেটর একাউন্ট আর স্টান্ডার্ড একাউন্ট এর পার্থক্য থাকলো কই তাহলে???

ভাই আমার পিসিতেও উবুন্টু সেটাপ দেয়া আছে কিন্তু ভাল কোন ডাউনলোড মানেজার পাইনা আই ইউজ করতে পারিনা এবং ওয়েব থেকে ভিডিও ডাউনলোড করতে পারিনা।

    আরে ভাই আইডি এম মতো কার্যকরী জেডাউনলোডার আছে যা ওপেনসোর্স।নিচের লিঙ্ক থেকে এই সফটওয়ার টি ডাউনলোড করতে পারবেন।

    http://www.jdownloader.org/download/index

Level 0

লিনাক্স (উবুন্টু ১০.১০) ব্যবহার করার পরে উইনডোজ ব্যবহার করলে পানসে পানসে লাগে।মনে হয় কোন কোন আদিম যুগে বাস করছি। ভাবছি উবুন্টু ডেস্কটপ নিয়ে আমি একটি টিউন করবো। আমি এখন পর্যন্ত কেনোন ক্যানোস্কান লাইট ১০০ মডেলের একটি স্ক্যানার সেটাপ দিতে পারিনি তার জন্য এখনও উইন৭ এর ধরনা দিতে হচ্ছে। দোয়া করবেন যেন ১০০% লিনাক্সে আসতে পারি। আপনার টিউনের জন্য অনেক ধন্যবাদ। আশাকরি ধারাবাহিক ভাবে চালিয়ে যাবেন।

    আরে দেরি কেন?? সময় বের করে উবুন্টু ডেক্সটপ নিয়ে টিউন করে ফেলুন।লিনাক্স এর ফিচারগুলোর সাথে পরিচিত হলে সবাই আস্তে আস্তে লিনাক্সের দিকে ঝুঁকে পড়বে।

Level 0

আমি আজকেই Ubuntu 11.04 ডাউনলোড করলাম আর জানতে পারলাম কিউবি মডেম কানেক্ট হয় না। আমার আর Ubuntu use করা হলনা ।

    হুম এই চাইনিজ ডঙ্গল গুলোর জন্য অনেক কে উইন্ডোজ ব্যবহার করতে হচ্ছে।আমরা উইন্ডোজকে এত পাত্তা দেই বলে এই অবস্থা।তবে এগুলোর উপযোগী ড্রাইভার বানানোর চেষ্টা চলছে।

nice tune.
Ubuntu is really good.

লিনাক্স চালাইতে সর্ব নিম্ন Configurations জানালে বড্ড উপকৃত হতাম।

    লিনাক্সের অনেক রকম ডিস্ট্রিবিউশন আছে। একেবারে ৩২ মেগাবাইট RAMএর 386 মেশিনও চলবে এমন লিনাক্সও আছে – এটাকে মিনিমাম ধরে নিতে পারেন।

    তবে আমরা যেটা ব্যবহারের জন্য বলি, সেটার জন্য কমপক্ষে পেন্টিয়াম প্রসেসর এবং ৫১২ মেগা RAM থাকা দরকার। যদিও সাইটগুলোতে ২৫৬ মেগা RAM থাকলেই চলে বলেছে – কিন্তু বাস্তব অভিজ্ঞতা হল, এতে অন্য প্রোগ্রাম চলতে কষ্ট হয় – কারণ দেখেছি যে এই ২৫৬ থেকে অনেকটাই আবার ভিজিএ কার্ড শেয়ার করে।

    আমার বাসার ডেস্কটপ সেলেরন ডি প্রসেসর, ৫১২মেগা RAM – সমস্যাবিহীনভাবে চালাচ্ছি।

    ধন্যবাদ শামীম ভাই। আমার নেটবুক এটম ১.৬০ গি.হা, ১ গিগাবাইট RAM, ১৬০ হার্ডডিক্স। এই Configurations-এ লিনাক্সের কোন ভার্সনটা ভালো চলবে?

    আমার নেটবুকে (একইরকম ১.৬ গিগা এটম প্রসেসর আর ১ গিগা মেমরি) চালাচ্ছি উবুন্টু নেটবুক এডিশন – এটাতে ছোট স্ক্রীনের জন্য একটু অন্যরকম ইন্টারফেস — ইউনিটি ডেস্কটপ ব্যবহার করেছে। অবশ্য এখন বড় স্ক্রীনের জন্যও এটা ব্যবহার করছে উবুন্টু।

    আমি অবশ্য লিনাক্স মিন্ট চালাবো ঠিক করেছি। কারণ ইউনিটিটা ইদানিং ভাল লাগছে না। আপনিও লিনাক্স মিন্ট ট্রাই করতে পারেন। গত শনিবারে FOSS Bangladesh এর অফিসে বসে একজনের নেটবুকে মিন্ট ইনস্টল করে দিলাম।

আবারো ধন্যবাদ। শামীম ভাই, লিনাক্স ব্যবহারে আমি খুবই আগ্রহী। দয়া করে যদি আপনার মোবাইল নাম্বারটা সেয়ার করতেন তাহলে খুবই উপকার হত। আর হ্যা, আমার একটা লিনাক্স সিডি লাগবে। আমি থাকি রাজশাহীতে। যদি কেও লিনাক্স সিডি আমায় কুরিয়ার করতেন তাহলে হয়তো আমি প্রযুক্তি পথে আরো একধাপ এগিয়ে যেতাম। আমার সাথে যোগাযোগ এর ঠিকানাঃ মুঠোফোন- ০১৭৫১২৮৮৯৯০, দূর বার্তাঃ [email protected]. ধন্যবাদ।

    লিনাক্স ব্যবহারে আগ্রহ প্রকাশের জন্য ধন্যবাদ। আমার মেইল এবং ফোন নং-এর জন্য আমার হোমপেজে – নিচে ক্লিকান, তারপর মোবাইল নম্বর টুকে নেন।
    http://sites.google.com/site/mmhzaman/curriculum_vitae

    এছাড়া FOSS Bangladesh এর ওয়েবসাইটে দেয়া নম্বরেও যোগাযোগ করতে পারেন (রিং ভাই কিংবা মেহেদী ভাই):
    http://www.fossbd.org/index.php/contact-us

ভাই আমি লিনাক্স মিন্ট ১০ ডাউনলোড দিয়েছি প্রায় ডাউনলোড শেষ, এখন আমি এটা কিভাবে সেটাপ দিব ? বুটেবল সিডি কিভাবে তৈরী করব? একটু হেল্প করবেন প্লিজ।
ধন্যবাদ একটি সুন্দর টিউন এর জন্য।

    আপনি বুটেবল সিডি তৈরী না করে বুটেবল পেনড্রাইভও তৈরী করতে পারেন। এতে আপনার সিডির খরচ বেঁচে যাবে।

    বুটেবল সিডি তৈরীর জন্য নিরো দিয়ে করতে হবে। অথবা ফ্রী যে কোনো বার্নার ব্যবহার করতে পারেন, যেটা এটাকে ডেটা সিডি হিসেবে বার্ন না করে ইমেজ হিসেবে বার্ন করবে।

    বুটেবল পেনড্রাইভ তৈরীর জন্য বেশ কিছু ফ্রী সফটওয়্যার আছে। এমন কটি হল unetbootin
    http://unetbootin.sourceforge.net/

    উবুন্টু সাইট থেকে এবার রিকমেন্ড করছে ইউনিভার্সাল ইউএসবি ইনস্টলার – এটার ডাউনলোড লিংক নিচে:
    http://www.pendrivelinux.com/downloads/Universal-USB-Installer/Universal-USB-Installer.exe

    উবুন্টুর জন্য যা কাজ করবে মিন্টের জন্যও কাজ করবে, কারণ উবুন্টুকে ঘষামাজা করে মিন্ট তৈরী করা হয়েছে।

    শামীম ভাইকে অনেক ধন্যবাদ, সুন্দর ইনফরমেশন দেওয়ার জন্য ।

আ িম ২ বার ইনস্টল ক ের িছ িকন্তু েতমন বুিঝ না িবধায় এক্স িপ েলাড িদ েয় িছ। আস েল উই েন্ডাজ ব্যবহার টা সহজ েতা তাই। েযমন অন্য েফান েকাম্পানীগুিল হ েত েনািকয়া ইউজ একদম েসাজা। েতম িন, উই েন্ডাজ ব্যবহার সহজসাধ্য ব েলই সবাই ব্যবহার ক ের।

    ভাই, আপনি কতদিন ধরে কম্পিউটার চালান? এর মধ্যে কতদিন উইন্ডোজ চালাচ্ছেন? আর ২ বার কী (কোন লিনাক্স) ইনস্টল করেছিলেন? এই দুইটা তথ্য জানালে সহজ কঠিন তুলনা করতে সুবিধা হইতো।

আপনি উইন্ডোজে অভ্যস্থ ছিলেন তাই বুঝতে কিছু সমস্যা হচ্ছে।আস্তে আস্তে চেষ্টা করুন।আমরাও উইন্ডোজে অভ্যস্থ ছিলাম।কিন্তু লিনাক্সে ঢোকার পর উইন্ডোজ এখন বিরক্ত লাগে।

    Level 0

    ভাই সবই তো বুঝলাম…….. কিনতু কিভাবে ইনসটল করতে হয়, এ নিয়ে একটা টিউন করলে মনে হয় সকলে উপকৃত হত। ধন্যবাদ

    উইন্ডোজের মতো বুট করেও করতে পারেন অথবা লাইভ সিডি ঢুকিয়ে সরাসরি ড্রাইভ সিলেক্ট করে ইন্সটল করতে পারেন।লিনাক্সে বড় সুবিধা হল আপনি সিডি দিয়ে লাইভ চালিয়ে তারপর ওখান থেকেই ইন্সটল করতে পারেন।যেহেতু লিনাক্সের ফ্লেভার অনেকগুলো তাই সবগুলো আলাদা আলাদা করে ইন্সটল করার পদ্ধতি নিয়ে টিউন করা সম্ভব না।আপনি যে ডিস্ট্রো ইন্সটল করতে চান সেটি জানান তাহলে উপকারী লিঙ্ক দিতে পারবো।

    টেকটিউনসেই উবুন্টু ইনস্টলের টিউটোরিয়াল আছে। এটা দেখলে একটা ভাল ধারণা পাবেন। নতুন ভার্সন বা লিনাক্স মিন্ট ইনস্টল করতে গেলে এর থেকে খুব বেশি পার্থক্য হবে না।

    ডার্কলর্ডের টিউটোরিয়াল — এটা ২০০৮ সালের অক্টোবরে রিলিজ হওয়া ভার্সনের জন্য। এর পর আরও ৫টা ভার্সন রিলিজ হয়েছে।
    https://www.techtunes.co/open-source/tune-id/2370/

    ডার্কলর্ডের করা উবুন্টু লিনাক্স ইনস্টলেশন পরবর্তি গাইড: (এটাও পুরাতন ভার্সনের জন্য)
    https://www.techtunes.co/other/tune-id/2262/

    জামালের ব্লগ:
    http://jamal919.wordpress.com/2010/03/08/install-ubuntu-by-creating-a-separate-pertition-tutorial/

    সবচেয়ে ভাল হবে যদি অভ্রনীল বা আদনান কাইয়ুমের ব্লগ পড়েন। উনি ধারাবাহিকভাবে দারুন সব ব্লগ লিখেছেন এ ব্যাপারে:
    http://adnan.quaium.com/ubuntu

    জামাল উদ্দিন ভাইয়ের টিউটোরিয়াল:
    https://www.techtunes.co/linux/tune-id/23801/

অনেক ভাল মানের টিউন। নাঈম ভাইকে ধন্যবাদ। উবুন্টু ব্যবহার করতেছি ৬ মাস ধরে সাথে জানালাও আছে। জানালা ছাড়তে পারছি না একটা সমস্যার কারণে। তা হচ্ছে লাইভজিলা লিনাক্স সাপোর্ট করে না। কিন্তু দোষটা লিনাক্সের না দোষ হচ্ছে ডেভলাপারের। ডেভলাপার টিমকে লিনাক্স ভার্সন তৈরি করার জন্য অনেক অনুরোধ করা হয়েছে বিভিন্ন কোম্পানি থেকে, কিন্তু তারা লিনাক্স ভার্সন তৈরি করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। ওয়েব বেজড ভার্সন তৈরির কথা বলেছিলো সেই ২০০৯ সালে এখনো তৈরি করেনি। পেইড লাইভ চ্যাট চালাবো যে সে সামর্থ্য ও হয়নি এখন পর্যন্ত। আশাকরি খুব শীঘ্রই হয়ে যাবে। এবং জানালাকে চিরতরে বিদায় করতে পারব।

    ভাই, উবুন্টুর অফিসিয়াল ফোরামে এর বিকল্প সার্চ করুন। যদি না পান, একটা পোস্ট করে জিজ্ঞেস করুন। কেউ না কেউ এর উত্তর দিবে। এর আগে (৬.১০ ব্যবহারের সময়) এভাবে একটা সমস্যার সমাধান পেয়েছিলাম।

কেন যে কিউবি কিনলাম। তাই Linux ব্যবহার তরতে পারছিনা কোন সমাধান থাকলে জানান, কিভাবে কিউবি Linux-এ ব্যবহার করব।

    কিউবির (এবং বাংলা লায়নের) ইউএসবি মডেম এখনও লিনাক্সে ব্যবহার করা যায়নি। তবে গিগাসেটগুলো এবং মাঝারি সেটগুলো প্লাগ এন্ড প্লে। কিউবি থেকে এটা পাল্টিয়ে কেকমডেম বা গিগাসেট মডেম নিতে পারেন, আর অবশ্যই কাস্টমার কেয়ারে জিজ্ঞেস করে নিবেন। এরা ভাবে দেশে লিনাক্স ব্যবহারকারী তেমন একটা নাই।

    এরপর থেকে যে কোনো হার্ডওয়্যার কেনার সময় লিনাক্স কম্পাটিবিলিটি দেখে/জেনে কিনবেন। বিশেষত কম জানাশোনা কম্পানির ডিভাইসগুলো ঝামেলা করে, কারণ ওরা লিনাক্সের ড্রাইভার তো বানায়ই না, তদুপরি উন্নত দেশে থাকা ডেভেলপার এর স্যাম্পলও হাতে পায় না।

    তবে আশার কথা হল, দেশের বেশ কিছু লিনাক্সগুরু এগুলোর ব্যবহারের উপায় বের করার জন্য চেষ্টা শুরু করেছেন। আশায় আছি অচিরেই শুভ সংবাদ জানতে পারবো।

শামীম , আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মুল্যবান উপদেশের জন্য।

শামীম ভাই আ িম ২ বার ব্যবহার ক ের িছ। আর উই েন্ডাজ ব্যবহার কর িছ েতা গত এক যুগ ধ ের।

আজকাল লিনাক্স নিয়ে পোস্ট হলে খুব আগ্রহ নিয়ে পড়ি। খুব মজা লাগে, নতুন কিছু শেখা যায়। তবে দুঃখের কথা, আর কয়দিন পর সবাই লিনাক্স উসে করলে "ভাব" টা আর থাকবেনা 😛 এখন লিনাক্স ব্যাবহার করলে সবাই ভাবে "খাইসে!!! কত্তবড় প্রোগ্রামার আইসে রে!" আমি তাদের ভুল ভাঙ্গাইনি 😛 বাংলালায়নের জন্য লিনাক্স থেমে থাকবে কেন? আমি আমার আরেক পিসি তে বাংলালায়ন লাগায়ে ল্যান দিয়ে মিন্টে নেট নিসি। এত সহজে আর দ্রুত কানেক্ট হয়! নতুন ডিস্ট্রোতে দেখছি ইন্সটল করতে সময় লাগেনা বললেই চলে। কেউ হয়ত বিশ্বাস করবেনা, কিন্তু লিনাক্স এ আমি ছবি/আইকন এডিট, ফায়ারফক্স, পিকাসা, মোবাইল ম্যানেজার, ইয়াহু, বাংলা লেখা, পিডিএফ রিডার (অ্যাডোব বের করেছে), অফিস, গান শোনা, ভিডিও দেখা, কম্পাইলার, সবই পাই। যাই হোক, নাঈম ভাই আরো কয়েকটা ছবি দেন। মজা পাইছি 🙄

অনেকদিন পরে হলেও লিখছি।

লিনাক্স একটা বাজে জিনিস। আপনারা যে কেন এইরকম একটা ফালতু জিনিস নিয়ে লাফান তা জানি না।

শোনেন, আমি লিনাক্স ইউজ করা শুরু করেছি প্রায় মাস হতে চলল। লিনাক্স মিন্ট ১০।
অনেক সাধনা কইরাও একটা সফটওয়্যার ইনষ্টল করা শিখতে পারলাম না। ভাবলাম আমিই বোধহয় গাধা। তাই সহজ জিনিসটা ধরতে পারছিনা।
তাই বিল্ট ইন চ্যাটের (XChat IRC) মাধ্যমে ট্রাই মারলাম। সেখানে অনেক বাঘা বাঘা লিনাক্স ইউজাররা ফেল মারলেন।

সবাই মোটামুটি এই ম্যাসেজ আমাকে দিতে চাইলো যে অপারেটিং সিস্টেম এর সাথে যে সফটওয়্যার এসেছে আমাকে তাই ইউজ করতে হবে। আপডেট করার কোন সুযোগ নেই।
একটা ফাকিং কথা হলোঃ আমি হার্ডডিস্কে কোন সফটওয়্যার রেখে ইচ্ছা মত ইনষ্টল করতে পারবোনা। আরে ভাই, আমি যদি OS নতুন করে ইনষ্টল করি, তাইলে কি OS-এর সাথে থাকা কোন সফটওয়্যারের পুরনো ভার্সনই আমাকে ইউজ করতে হবে? অথবা, প্রতিবার আপডেট সফটওয়্যার নামাতে হবে?

উদাহরণ দিয়েই বলিঃ আমি ফায়ারফক্স ৫ (লিনাক্স মিন্ট ১০-এর সাথে ফায়ারফক্স ৩.৬ দেয়া থাকে) নামালাম ইউজ করার জন্য। আরে ভাই, ইনষ্টল করার কোন অপশান নেই।
একটা অপশন আছে যে প্যাকেজ ম্যানেজার এ গিয়ে আপডেট করতে হবে। আমি তা করলামও। প্রায় ১৫ মেগা বাইটের মত কি যেন খানিক নামলো। আরে বাপ, আবার ফায়ারফক্স চালু করে দেখি সেই ৩.৬ ভার্সন! আপনিই বলুন, কার না গা জ্বলে? সবচেয়ে বড় কথা হলোঃ আমি যদি কোন কারণে আবারও OS সেটআপ দেই, তাহলে আমাকে কি প্রতিবারই প্রত্যেক সফটওয়্যারের আপডেট নামাতে হবে? হার্ডডিস্কে রেখে পরে ইউজ করতে পারবো না ক্যান?

    আমি এত সফটওয়ার ইন্সটল করলাম।কই কোন সমস্যা তো হল না।লিনাক্স খারাপ না ভালো সেটা বিচারের দায়ভার ইউজারদের।আপনার কাছে ভালো নাও লাগতে পারে।আপনার উইন্ডোজ ভাল লাগলে কিনে ব্যবহার করার চেষ্টা করুন,পাইরেটেড ব্যবহার করবেন কেন?আপনি উইন্ডোজে অভ্যস্থ হয়ে গেছেন বলে লিনাক্সে ইন্সটল করার নিয়ম বুঝতে পারছেন না।উইন্ডোজের জন্য ফায়ারফক্স ৫ নামালে সেটাতো আর লিনাক্সে ইন্সটল করতে পারবেন না।লিনাক্সের জন্য লিনাক্স উপযোগী ফায়ারফক্স এর ভার্সন নামাতে হবে।লিনাক্সে সফটওয়ার ইন্সটল করার বিভিন্ন পদ্ধতি আছে।উইন্ডোজের মত exe ফাইল ক্লিক করে ইন্সটলের সিস্টেম নাই।কপিরাইট এর কারণে একটার থেকে অন্যটার ভিন্ন পদ্ধতি।

    প্রথমত, আমি উইন্ডোজের অরিজিনাল ভার্সন ইউজ করি।

    দ্বিতীয়ত, আমি লিনাক্স উপোযোগী ফায়ারফক্সের ভার্সনই নামিয়েছি। Tar.baz2 এক্সটেনশানের।

    তৃতীয়ত, ভিন্ন পদ্ধতির কারণেই তো লিনাক্সে আসলাম। কিন্তু সেই ভিন্ন পদ্ধতিটা আসলে কি? সরাসরি কোন স্টেপ বাই স্টেপ বর্ণনা কেউ দিচ্ছে না। এমনকি আপনিও দেননাই। অন্তত এই কমেন্টের নিচে তো দিতে পারতেন। যাইহোক, এখন দেবেন আশা করি।

    চতুর্থত, Command Line এর কথা বলবেননা প্লিজ। Graphical Instruction এর আশা করছি। "প্রতিজন কম্পিউটার ব্যাবহারকারীই একেকজন প্রোগ্রামার।" লিনাক্স ইউজাররা যদি এমন ভেবে থাকে তাহলে তারা ৫০০ বছর পিছিয়ে আছে।

    আরেকটা কথা, একটা ব্লুটুথ ডিভাইস কিনে জাস্ট ইউএসবি পোর্টে লাগিয়েই ব্যাবহার করেছি উইন্ডোজে। কোন ঝামেলা হয়নি।

    আর, অনেক সাধনা করেও লিনাক্সে ব্লুটুথ কানেকশান দিতে পারলাম না। ফোরামে একজন বললো, নতুন ইউজারদের ব্লুটুথ ব্যাবহার না করাই ভালো।
    আরে ভাই, নতুন ইউজার বলে ব্যাবহার করা যাবে না কেন? হয়তো সিস্টেমটা একটু জটিল হতে পারে। কিন্তু সিস্টেম তো থাকবে!

    আমার ব্লুটুথ ডংগলটা দেড় বছর আগে কেনা, সেই করমিকের আমলে। তখন থেকেই ওটা প্লাগ এন্ড প্লে। তবে কারওটা যদি প্লাগ এন্ড প্লে না হয় তবে সেক্ষেত্রে Blueman ইউজ করা যেতে পারে।
    লিনাক্স মিন্টে এক্সিকিউটেবল ফাইল হল .deb যেটা ডাবল ক্লিক করেই ইন্সটল করে ফেলা যায়। ফায়ারফক্সের ওয়েবসাইটে যেটা পাওয়া যায় ওটা আসলে সোর্স ফাইল, কম্পাইল করে নিতে হয়। কি দরকাররে ভাই রিপো থাকতে এত কষ্ট করার। আমি আজকে সকাল পর্যন্ত ফায়ারফক্স চার ব্যবহার করেছি। সকালে আপডেট ম্যানেজার নোটিফাই করলে রিপোতে আপডেট এসেছে (স্ট্যাবল রিপোতে আপডেট আসতে একটু দেরী হয়)। আমি আপডেট দিয়ে ফেললাম। এখন ফায়ারফক্স ৫ থেকে লিখছি।
    আমি যদি এখন ওএস রিইন্সটল দেই তাহলে আমার সর্বোচ্চ 30 মেগা সফট (এডোব ফ্লাশের মত যেগুলোর অফলাইন ইন্সটলার নেই সেগুলো) আবার নামাতে হবে। বাকি সবগুলোর ব্যাকআপ আমার কাছে আছে। বারে বারে ডাউনলোড করবেন কেন? ইন্সটলের সময় সফটওয়্যার ম্যানেজারতো ডাউনলোড করেই, তখন শুধু কপি করে রেখে দিলেই হল।
    কমান্ড লাইনের ব্যাপারটা আসলে যার যার কাছে। যেমন আমার ক্ষেত্রে লিনাক্স ব্যবহারের অন্যতম একটা বড় কারণ হচ্ছে এখানে সিস্টেম ওয়াইড CLI ইউজ করার সুবিধা।
    সমস্যা হলে সেটা একটু ডিটেইলস বললে বুঝতে সুবিধা হয়। যে কোন সমস্যায় প্রথমে একটু কষ্ট করে গুগল করুন, সমাধান না পেলে জানান। চেষ্টা করব সমাধান দেয়ার জন্য।

    ধন্যবাদ বাবর ভাই উনাকে সমাধান দেয়ার জন্য।আপনি যেহেতু মিন্ট ব্যবহার করেন তাই প্রথমে নিচের লিংক থেকে ব্যবহারকারী নির্দেশিকা ডাউনলোড করে পড়ে ফেলুন আর যেকোন সমস্যা বাংলাদেশী কমিউনিটিতে জানান।সমস্যাতো হবেই,তার সমাধান ও আছে।আপনার সমস্যাগুলোয় আমি কখনো পড়িনি।

    http://www.linuxmint-bd.org/downloads/user_guide

    বাবর ভাই,
    ঘটনা সেই শুভংকরের ফাঁকির মত হয়ে গেল।

    "আমার আছে, আমি করতে পারি, আমার সমস্যা হয়না।" এজাতীয় কিছু কথায়ই সবাই বলছে। আপনিও বললেন।
    আবার, দূর্বোধ্যতাকে বৃদ্ধি করার জন্য নতুন এক টার্ম 'রিপো' নিয়ে আসলেন।

    যাইহোক, আমি প্রশ্ন টা সহজে করি।
    আমি ফায়ারফক্সের ল্যাটেস্ট ভার্সন টা নামিয়ে হার্ডডিস্কে রেখে তারপর ইনষ্টল করতে চাই।

    আশা করি আমার প্রশ্ন ক্লিয়ার। এখন আপনারা কি আমাকে স্টেপ বাই স্টেপ বর্ণনা দেবেন?

    আর হ্যা, "এখান থেকে নামাতে হবে, ওই লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে" এজাতীয় কথা না বললে ভালো হয়।

    আমি চাই স্টেপ বাই স্টেপ বর্ণনা।

    ব্যাপারটা এইরকমঃ
    মেনু তে ক্লিক করুন> Accessories এ ক্লিক করুন > তারপর ক্যালকুলেটর ক্লিক করুন।
    ব্যাস হয়ে গেলো। এখন ক্যালকুলেটর ব্যাবহার করুন।
    আমি এখানে ক্যালকুলেটর কিভাবে ওপেন করতে হয় তাই দেখালাম।

    আপমি যেমন রিপোর কথা বললেন। ভালো কথা। কিন্তু আপনার এটুকু বোঝা উচিত ছিলো, এখন আমার প্রশ্ন হবেঃ আমি রিপো কোথায় পাবো?

    সর্বশেষঃ
    আমি ফায়ারফক্সের ল্যাটেস্ট ভার্সন টা নামিয়ে হার্ডডিস্কে রেখে তারপর ইনষ্টল করতে চাই।
    এইটা একটু স্টেপ বাই স্টেপ বলবেন আশা করি। কোন নতুন টার্ম আসলে সেটা কোথায় পাবো তাও বলবেন আশা করি।

নাইম ভাই আর বাবর ভাই,
আমার ব্লুম্যান ইনষ্টল করা আছে। কিন্তু এড্যাপ্টার প্রব্লেম দেখায়। এবিষয়েও একটু ডিটেইলস্‌ বলবেন।

এই দীর্ঘ সময়েও আপনাদের কোন সাড়া পেলাম না। আমি কি ধরে নেবো?

আমি যা বলেছি তা ঠিক?
অর্থাৎ, লিনাক্সে সফটওয়্যার ইনষ্টল করার কোন অপশান নেই। ওএস-এর সাথে যা আছে তাই ইউজ করতে হবে।

    না সেটা না। লিনাক্স এর বেশিরভাগ সফটওয়্যার আসে সোর্স কোড আকারে। আবার ডেবিয়ানের জন্য (যেমন লিনাক্স মিন্টী deb প্যাকেজ আকারে থাকে। সফটওয়্যার গুলোর ডিপেনডেনসি থাকলে আলাদা কিছু ফাইল লাগে।

    যেমন আপনি ফায়ারফক্স ডাউনলোড করেছেন। সেটা পাওয়া যায় tar.bz2 ফরম্যাটে। লিনাক্স এর সুবিধা দেখেন, অযথা উইনরার লাগবেনা। রাইট ক্লিক করে Extract here দিন। হয়ে গেল সব ফাইল বের করা। এবার ভেতরে ঢুকে দেখেন firefox লেখা আইকন আছে। ক্লিকালেই ফায়ারফক্স হাজির।

    কিছু ক্ষেত্রে সোর্স কোডগুলো কনফিগার করতে হয়। সেক্ষেত্রে কমান্ড হল

    ./configure
    make
    make install

    সব ক্ষেত্রে এটা কাজ করবে তা না। যেমন Geany নামে একটা কম্পাইলার আছে, সেটার প্যাকেজ আপনি পাবেন, কিন্তু সেটা কাজ করতে GTK নামের লাইব্রেরি ফাইল লাগবে। সেটাও ডাউনলোড করে ইন্সটল করতে হবে। যদি ঝামেলা মনে হয় যে কোন সফটওয়্যার এর জন্য কি কি লাগবে, তাহলে সিম্পলি সফটওয়্যার সেন্টারে চলে যান।

    দেখবেন ক্যাটাগরি মানে মাল্টিমিডিয়া, প্রোগ্রামিং, সিস্টেম টুলস ইত্যাদি সুন্দর করে সাজানো। আবার কোন সফটওয়্যার কত জনপ্রিয় সেটা তারা দেওয়া। মানে মিডিয়া প্লেয়ারে ঢুকলে দেখবেন VLC, ব্যানশি, টটেম ইত্যাদি ৫ স্টার। তারপর পিকাসা, অ্যাডোব রিডার [যদিও লাগেনা, লিনাক্স এ পিডিএপ রিডার থাকে, প্রিন্টারও থাকে] ইত্যাদি অনেক পরিচিত সফটওয়্যার পাবেন। খালি ইন্সটল এ ক্লিকান, সব অটো ইন্সটল হবে।

    আর ম্যানুয়াল লাগবে? মেনু তে ক্লিক করুন> Accessories এ ক্লিক করুন > তারপর ক্যালকুলেটর ক্লিক করুন।

    আপনি কি একঝলক দেখেই বুঝবেন যে কোথায় ক্যালকুলেটর থাকে? লিনাক্স এ এই ঝামেলা নেই। যা ইন্সটল করবেন মেনুতে সব ক্যাটাগরি আকারে সাজানো থাকে। মানে যত মিডিয়া প্লেয়ার, চ্যাট বা ব্রাউজার, লেখালেখি সব আলাদা আলাদা মেনুতে থাকে।

    কিছুদিন অপেক্ষা করতে থাকেন। প্রায় সব কিছুই লিনাক্স এর মত করে বানানো হচ্ছে। ইন্টারনেট এর সমস্যাও দূর হয়ে যাবে আশা করি। কোন প্রশ্ন থাকলে করবেন, সমাধান দিতে না পারলেও কোথায় সাহায্য পাবেন তা বলে দিব। বাংলাদেশে অনেক মানুষ আছে যারা আপনাকে সাহায্য করতে প্রস্তুত। শুধু জায়গামত আওয়াজ দিতে হবে 🙂

    ধন্যবাদ

Level 0

thanks

Level 0

Ha Ha Ha Linux Install Korte gia ami Amr Hard Disk Er data Onek bar Lost Korche. Tai Amr Linux Theka Mon Uthe Gace. Ey Sob Chey Valo Mac OS X Use kora. Mac Install Korte Gia 1 Bar o Amr Kono data Loss Hoyni. Mac er Ekta Good side Holo mac er os Crash Kore na Ar ekta Super Good Side Holo Mac Total Hard Disk er Free Space kee Virtual Memory Kore rakhe Mane RAM Hisabe Use kore. Computer Tooo Fast Perform Korei R 10-20 Programe Open thakleo PC Slow Hoy na. Ar Haa Ami MAC IBM Pc Install Korche. Eta Bolte Parbo Linux e Oi santi paini Ja mac a pachhe. Linux er moto mac o virus Protected. Mac A Khub Ekta Sadharon Software Thea Windows Er Sob Application Run kora jay.Mac Sob Dek Theka Cool. IBM Version Mac DL Kore apnio ekbar install kore Vromon kore aste paren. +8801826648984
Apple Er OS JEmon Expensive Temon Expence er Maan o Tara Rokkah kore ase.
IBM Version MAC OS X Totall FRee