ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

প্রক্সি ছাড়া ফেসবুকে লগইন করুন (পর্ব-১)

এই দুই দিন ফেসবুকের উপর ঘাটাঘাটি করে প্রক্সি ছাড়া ব্যবহার করার পদ্ধতি বের করসি । আপনাদের কাছে আমি তিনটি পর্বে তিনটি পদ্ধতি বর্ণনা করব ।

ADs by Techtunes ADs

১ম পদ্ধতিটি খুব সহজ কিন্তু এটা সমস্যা আছে।

এর জন্য লাগবে ওপেরা এর সর্বশেষ ভার্সন ১০.৫৩। (ডাউনলোড করুন এখান থেকে)

প্রথমে অপের ব্রাউসার ওপেন করে টারবো মোড এনাবেল করুন । ফেসবুকে প্রবেশ করুন দেখবেন সব কিছুই করতে পারছেন । কিন্তু এর বড় সমস্যা হল যখনি টারবো কাজ করবে না তখন আপনি ফেসবুকে ঢুকতে পারবেন না । এছারা মাঝে মাঝে টারবো কাজ করবে না। তখন আপনি ফেসবুকে ঢুকতে পারবেন না । এজন্য এটা সাময়িক ব্যবহার এর জন্য আপনাদের দিলাম।

আপাততঃ এইটা ব্যবহার করতে লাগুন ২য় পর্ব প্রকাশ হওয়া পর্যন্ত ।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি শাওন। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 11 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 13 টি টিউন ও 146 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

Student


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

এতো কিছু করা লাগে না…..Freegate দিয়া সহজেই কাজ চালানো যায়….

এই বিষয়টা এখন আর ভালো লাগেনা । অনেক হয়েছে আর দরকার নাই
Freegate, UltraSurf প্রভৃতি দিয়ে IE, Firefox এ ব্লক সাইট ভালোমতই ভিজিট করা যায় ।
হায়রে পর্ব 🙂

ভাইরে, ফেসবুক তো এখন বাজে হয়ে গেছে। এখন আর ফেসবুকের চাহিদা মনে জাগেনা। তারপরেও আমাদের এতো খেয়াল রাখার জন্যে ধন্যবাদ না দিয়ে পারছি না। আপনারাই তো আমাদের টিউন করবেন আর আমরা শিখব। তবে ফেসবুক আর না

    “ফেসবুক তো এখন বাজে হয়ে গেছে।” ভাই কথাটা ভালো লাগলো না। আমরা বেশিরভাগ মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করি বন্ধুদের সাথে কানেক্টেট থাকার জন্য। সারাদিন অফিসে কাটিয়ে বাসায় এসে একটু দেখি বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের বন্ধুবান্ধব, বড়ভাই, পরিচিত জন, বিদেশের আত্বীয়রা কে কোথায় কি করছে একটু দেখে নিই। ফেসবুক ছাড়া এ সুবিধা কে দেবে? টেকটিউনস এ কিছু মানুষের comment দেখে ভাবছি এ কোন্ দেশে বাস করছি ?

    আচ্ছা ধর্মের অপব্যবহার করে তো জঙ্গিরা হাজার হাজার মানুষ মেরে ফেলছে। তাহলে কি ধর্মপালন নিষিদ্ধ করতে হবে? আবেদ খানের একটা মন্তব্য দেখুন:

    ———————–
    এসব করলে কি ডিজিটাল বাংলাদেশ হবে? আবেদ খানহঠাৎ করে ফেইসবুক সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তটিতে হতবাক হয়েছি। নিশ্চয়ই আমার মতো অনেকের ভেতরে এই একই ধরনের প্রতিক্রিয়া হয়েছে। সরকারের এই সিদ্ধান্তের কারণ হিসেবে দেখানো হয়েছে এক যুবকের কাণ্ডকে। মাহবুব আলম রডিন নামের যুবকটি ফেইসবুকে জাতির জনক, প্রধানমন্ত্রী, বিরোধীদলীয় নেত্রীসমেত রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নাম এবং ছবি বিকৃত করে অপপ্রচার চালাচ্ছিল। অবশ্য র‌্যাব যুবকটিকে আটক করেছে এবং সে স্বীকার করেছে, নেহাত ফান করার জন্যই সে এ কাজ করেছিল এবং এ জন্য সে অনুতপ্ত।
    আমি হতবাক হয়েছি এই কারণে যে, একটি যুবকের অপকর্মের অপরাধে হুট করে ফেইসবুকই বন্ধ করে দিতে হলো? শাস্তি দেওয়া হলো দেশের প্রায় ৯ লাখ ফেইসবুক ব্যবহারকারীকে! অদ্ভুত তুঘলকি কারবার! র‌্যাবের কোনো কোনো লোক তো ডাকাতি করেছিল বলে কাগজে খবর বেরিয়েছে মাঝে মাঝে এবং তাদের শাস্তিও দেওয়া হয়েছে বলে র‌্যাব জানিয়েছে সে সময়। এই তো সেদিন সাতক্ষীরায় র‌্যাবের কতিপয় সদস্য এক রাজনৈতিক নেতা এবং ব্যবসায়ীর বাসায় অস্ত্র রেখে তাঁকে ধরতে গিয়েছিল; কিন্তু গ্রামবাসীর বাধার মুখে পারেনি। এ কারণে কি পুরো র‌্যাবকে নিষিদ্ধ করে দিতে হবে? মোবাইল ফোনে হুমকি তো মাঝেমধ্যেই পাওয়া যায় এবং পানও কেউ কেউ। তার জন্য কি মোবাইল ফোন কম্পানিগুলোকে বন্ধ করে দিতে হবে? ইন্টারনেটেও তো অনেক সময় অনেক কিছুই আসতে পারে, যা কারো কারো জন্য বিব্রতকর। তার জন্য কি ইন্টারনেট সার্ভিস তুলে দিতে হবে?
    কথা হচ্ছিল লেখক, বিজ্ঞানী স্নেহভাজন জাফর ইকবালের সঙ্গে। তিনিও কথা বললেন এই একইভাবে। বললেন কারা করাচ্ছে এসব? কারা বারবার এ ধরনের অদ্ভুত অদ্ভুত সিদ্ধান্ত তড়িঘড়ি করে চাপিয়ে দিয়ে সরকারকে বিব্রত করছে? ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের শতকরা ৮০ ভাগেরও বেশি তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি। তাদের বিক্ষুব্ধ করানোর কাজটি ভেতর থেকে করছে কারা? ওরা তো জানে ফেইসবুক বন্ধ করে দিলেও বিকল্প পথ থেকেই যায়। বরং উচিত ছিল এ ধরনের অপকর্ম রোধ করার জন্য নতুন প্রজন্মের মেধা এবং প্রযুক্তিবিদ্যাকে ব্যবহার করা।
    সরকারের এবং সরকারি দলের কেউ কেউ যুক্তি হিসেবে দেখাচ্ছেন যে, এ ধরনের বিকৃত প্রচারণায় সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে। একটি অসহ্য শব্দ এই ভাবমূর্তি! যে দল যখনই ক্ষমতায় যায় তখনই তারা অতিমাত্রা ভাবমূর্তি-সচেতন হয়ে ওঠে এবং ভাবমূর্তি নামক বায়বীয় ধারণাটি সংরক্ষণের জন্য কোমর বেঁধে চড়াও হয় প্রতিপক্ষের ওপর। আর এক শ্রেণীর জোগানদাতা সব সময় থাকে, যারা সব সময় এর ভেতরে রাষ্ট্রবিরোধী-সরকারবিরোধী গন্ধ শুঁকতে থাকে। এই তো তিন দিন আগে পাকিস্তানে ফেইসবুক বন্ধ করা হলো ধর্মীয় কারণে। আর তার পরপরই বাংলাদেশে ভিন্ন অজুহাতে। আশ্চর্যজনকভাবে এবং অতি সূক্ষ্ম কৌশলে সেই কাজটিই করা হচ্ছে, যা তরুণ প্রজন্মকে বিরক্ত করবে। কারো কারো যুক্তি, ‘যুদ্ধাপরাধের বিচারের মতো স্পর্শকাতর বিষয় বাধাগ্রস্ত করতে ফেইসবুক ব্যবহার করা হচ্ছে।’ যাঁরা এই যুক্তি উপস্থাপন করেন তাঁরা বোধহয় জানেনই না যে, ফেইসবুক ব্যবহারকারী নতুন প্রজন্মের শতকরা ৯৫ ভাগই যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে সোচ্চার। তাঁরা বোধহয় এও জানেন না যে, দীর্ঘদিন পর এবার এই প্রথমবারের মতো বিশাল তরুণ প্রজন্ম ব্যাপকভাবে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে উচ্চকিত হয়েছিল। দুঃখ হয় এই ভেবে যে, যাঁরা এ ধরনের তড়িঘড়ি ঘটনাটি ঘটালেন তাঁরা হয় নতুন প্রজন্মকে বোঝেন না, না হয় প্রযুক্তি বোঝেন না কিংবা তাঁরা এমন ধরনের কাজই করেন যাতে উল্লসিত হয়ে আমিনী সাহেব বলতে পারেন, ‘সরকার একটি ভালো কাজ করেছে। আমি খুশি।’
    এ ঘটনা গোটা পৃথিবীর ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কোটি কোটি মানুষের কাছে কী বার্তা পাঠাল? কোন বাংলাদেশকে দেখল পৃথিবী? এসব করলে কি ডিজিটাল বাংলাদেশ হবে?—————————–

    টেকটিউনস এ যারা আছি সবাই মোটামুটি প্রযুক্তি বুঝি। আমাদের চিন্তাধারা আরো যুক্তিভিত্তিক হতে হবে। আমরা যেনো কম্পিঊটারে ভাইরাস ধরলে পুরো কম্পিঊটারটাই ফেলে দেওয়ার চিন্তা না করি।

    Level 0

    যুক্তি সঙ্গত কথা বলেছেন LittleBoy

সামুতে ফেসবুক এ যাওয়ার নিয়ম দেখতে দেখতে চোখ ঝালা-পালা হইয়া গেল ।

ভাইরে…. আপনি তো পুরা গরুর রচনা লিখে ফেলেছেন!!!! আমি তো বললাম ফেসবুক বাজে। আর আপনি তো মনে হচ্ছে ফেসবুকের দালাল!! মিয়া কানেক্ট করানোর জন্য হাজারো সাইট আছে। জান না কেন ‘এডাল্ট ফ্রেন্ড ফাইন্ডারে’ ঐ খানে ও তো বন্ধু পাওয়া যায়………
দ্বীর্ঘ ৫ বছর ধরে নেট ইউজ করি। জানি কে কত ভাল। সবাই নিজের সাইটের সুনাম করতে চায়। আর আপনাদের মত কিছু লোক আছে যে কিনা অন্যের জিনিসকে নিজের মনে করে ঝগড়া বাধাতে পছন্দ করে। টেকটিউন্সে ই তো দেখলাম ফেসবুক নির্মাতা ই একজন হ্যাকার!!!!! তাহলে তাদের কি বলবেন? পরিশেষে আপনাদের একটা কথাই বলতে হয় “আমি জেনেশুনে বিষ করেছি পান”

    ভাই এই ভাবে বলা টা কি ঠিক হল ? লিটলবয় ভাই কিছু যুক্তি দেখিয়েছেন আপনি ও পাল্টা যুক্তি দেখান ।
    রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন ।

    কথা সুন্দর করে বলতে শেখো। তুমি ৫ বছর ধরে ইন্টারনেটে কোন টাইপের সাইটে ঘুরে বেরাও তা তোমার কমেন্ট দেখে বোঝা যাচ্ছে। সুন্দর করে টু দ্যা পয়েন্টে কমেন্ট করো। তাহলে সবাই একটা বিষয়ের ভালো খারাপ বুঝতে পারবে।আমার কমেন্টের প্রতিটা লাইন ভালো করে পড়ে প্রতি লাইনের জন্য কমেন্ট দাও। প্রশ্নগুলার উত্তর দাও।পাল্টা কিছু প্রশ্ন করো।শুধু মূর্খ পলিটিশিয়ানদের মতো মানিনা/মানবোনা/তুমি দালাল/তুমি বদমাশ/শয়তান/দেশবিরোধী এগুলো বলবেনা।

    ভাই ফেসবুক এর মতো নাকি হাজারো সাইট আছে? ফেসবুক এর বাঙালী সদস্য ৯ লাখ। আমাকে দু একটা সাইটের নাম দাও যেখানে ৯ লাখ বাঙালী পাবো।

    @ ক্লান্ত পথিক
    আপনি যে রকম ভাবে কথা গুলো বললেন,
    আমার মনে হয় আপনার ওই ভাবে বলা ঠিক হয় নি।
    আর ফেসবুক এখন কতটা প্রয়োজন তা বুঝতে পারবেন।
    আর পারলে অন্যের ফেসবুক ব্যবহার না করে নিজে একটা ফেসবুক বানায়েন।

লিটলবয়, আপনি দেখছি বিষয়টা নিয়ে বেশ লেগেছেন! বাংলা ব্লগের সাথে কানেক্টেড আছি অনেক বছর, তাই নতুন করে ‘ব্লগে’ তর্ক-বিতর্কে জড়াতে মন চায় না।
http://nure-alam.blogspot.com/2010/05/blog-post_27.html
কম্পিউটারে ভাইরাস ধরলে কম্পিউটার ফেলে দেব না, কিন্তু লিনাক্স অপারেটিঙ সিস্টেম ইউজ করব, যেন ভাইরাসই না ধরে।
উদারণ বাদ দিয়ে আসল কথায় আসি।
আমাদের দরকার কানেক্টেড থাকা। ফেসবুক যে কানেক্টেড থাকার জন্য ভালো একটা সাইট, সন্দেহ নেই।
আমি কেন মনে করি ফেসবুক ছেড়ে দেওয়া উচিত:
১. ফেসবুকে ইসলাম অ্যাবিউজ হচ্ছে। আমাদের মুসলমানদের এটা বন্ধ করার জন্য কিছু করার আছে কী? হ্যা, যদি আমরা অনেক বড় সংখ্যক মুসলিম ইউজাররা ফেসবুক ছেড়ে দিয়ে তাদের গ্রাফ নামাতে পারি, তাহলে তারা গ্রুপ/পেইজ এর জন্য ফিল্টারিং সিস্টেম যোগ করতে বাধ্য হবে, এবং তখন এজাতীয় গ্রুপ/পেইজ আর তৈরী হবে না।
২. আমাদের তবুও কানেক্টেড থাকা দরকার। এজন্য ফেসবুক ছাড়াও আরো অসংখ্য নেটওয়ার্কিং সাইট আছে। এক্ষেত্রে ফেসবুকের পরেই আছে টুইটার (আলেক্সা রাংকিং এ ১১)। আমরা টুইটার ইউজ করতে পারি। স্মরণ রাখুন, আমার মূল পয়েন্ট হল ইসলাম অ্যাবিউজ বন্ধ করার বিহিত করা।
৩. ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ফেসবুকে ইসলাম অ্যাবিউজ এর ব্যাপারে সম্পূর্ণ সচেতন। কিন্তু তারা দেখেছে যে মুসলমানরা এসব গ্রুপের অ্যান্টি গ্রুপে জয়েন করেই শান্ত থাকছে, বরং এসব গ্রুপ-অ্যান্টি গ্রুপ চলতে থাকার কারণে তাদের সাইটে মানুষ আরো বেশি সময় দিচ্ছে। এটা তাদের দরকার।
৪. ইসলাম অ্যাবিউজিভ গ্রুপ/পেইজ এর ব্যাপারে রিপোর্ট করে লাভ নাই, কারণ কর্তৃপক্ষ হয়ত ম্যানুয়ালি ঐটা ডিলিট করবে, কিন্তু এমন অসংখ্য গ্রুপ/পেইজ তৈরী করার সুযোগ তারা ইউজারদের দিয়ে রেখেছে। সুতরাং, রিপোর্ট করা মানে অকারণ ঐ গ্রুপ/পেইজ ভিউ করা।

    ধন্যবাদ আপনাদে দুজনকেই, দু জনেরই কিছু যুক্তি আমরা গ্রহন করতে পারি।

    Level 0

    হা ঠিক বলেছেন দুজনেরই কিছু কিছু যুক্তি একচেপ্টেবল

হায়!! হায়!!……………………এখানে দেখছি রীতিমতো যুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে………………..
বিষয়: ফেইসবুক
পক্ষে লিটলবয়
বিপক্ষে ক্লান্ত পথিক…………….

আমার কিছু বলার নাই। আমি সুদু একটা কথা বলব আমাদে সরকার এই ভাবে পাকিস্তানকে অনুসরন না করলেও পারত। হতে পারে সরকার এর এই ভুলের বোজা আমদের আজীবন বইতে হবে, যে “বাংলাদেশ পাকিস্তান কে অনুসরন করল।” একটা স্বাধীন দেশ হিসেবে এটাই কি আমাদের অর্জন ছিল?

Level 0

vi pal talk a ek chat room a ki ekhadhik nik login kora jay.jody jene thaken ektu janaben plz