ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

রেজিষ্ট্রি নিয়ে কিছু কথা + একটা ট্রিক্স

যারা win+R চেপে regedit এ যেতে ভয় পান তাদের জন্য এ টিউন। কিছু দরকারী কথা শুনুন আর ভয় লাগবে না।

ADs by Techtunes ADs

রেজিষ্ট্রি এর গঠনঃ

আপনি যখন উইনডোজের রেজিষ্ট্রি খুলবেন, দেখবেন সেখানে দুটি প্যান রয়েছে। বামের প্যানে পাঁচটি প্রধান 'কি' রয়েছে। সেগুলোর আবার বহু সাব-কি, সাব-সাব-কি রয়েছে। পাঁচটি মেইন কি গুলো হলঃ
+HKEY_CLASSES_ROOT
+HKEY_CURRENT_USER
+HKEY_LOCAL_MACHINE
+HKEY_USERS
+HKEY_CURRENT_CONFIG
আপনি এগুলোর যেকোন ধরনের পরিবর্তন করার আগে আপনার প্রধান কাজ ব্যাকআপ তৈরি করে নেয়া।
রেজিষ্ট্রি ব্যাকআপ এর ধরন:
রেজিষ্ট্রি ব্যাকআপ  আপনার সবচেয়ে বেশী জরুরী কাজ। একটু অবহেলার কারণে অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। ব্যাকআপের জন্য প্রথমে  Start>Run(Win+R) এ গিয়ে Regedit লিখে ok করুন।  File > Export এ যান। Save As option এ দেখবেন নিন্মোক্ত পাঁচটি অপশন রয়েছে।
১. Registration Files (*.reg)
২. Registry Hive Files (*.*)
৩. Text Files (*.txt)
৪. Win9x/NT 4 Registration Files (*.reg)
৫. All Files
এখানের প্রতিটি অপশনই অনেক গুরুত্ব বহন করে। ভুল অপশন এর জন্য অপ্রত্যাশিত ফলাফলের মুখোমুখি হতে পারেন। তাই এগুলো সম্পর্কে চলুন এক নজরে জেনে নিই।
১. Registration Files (*.reg)- এটি বহুল ব্যাবহৃত পদ্বতি। এর সুবিধা সবচেয়ে বেশি। কেননা এর মাধ্যমে ব্যাকআপ নিলে ডাবল ক্লিক করেই রিষ্টোর করা যায়। তাছাড়া .reg ফাইল টি notepad এর মাধ্যমে ওপেন করে প্রয়োজনীয় সংশোধন করে। আবার Merge করতে পারবেন।
২. Registry Hive Files (*.*):  আমার মতে এটিই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অপশন। এটি আপনার উইনডোজের একটি পারফেক্ট ছবি তৈরি করে রাখবে। যা আপনি Notepad তো দূরে থাক অন্য কোন এডিটর দিয়েও এডিট করতে পারবেন না।
৩. Text Files (*.txt): বুঝতেই পারছেন, এটা উইনডোজের রেজিষ্ট্রি এর একটা টেক্সট রুপ ব্যাকআপ রাখবে। তবে আপনি চাইলে এর প্রয়োজনীয় সংস্কার করে এটিও মার্জ করতে পারবেন।
৪. Win9x/NT 4 Registration Files (*.reg):এই অপশনটার কাজ প্রায়ই প্রথম টার মত একটা .reg ফাইল তৈরি করা। এটি উইনডোজের আগের ভার্সনে ব্যবহার করা হয়। বলতে গেলে অনেকটা বর্তমান ভার্সন থেকে আগের ভার্সনে 'কি' বহন করাই এর কাজ।
ঊপরের সবগুলো অপশন এ সবচেয়ে দরকারী হল দ্বিতীয়টি। আপনি রেজিষ্ট্রিতে যেকোন ভুল করে ফেললে এর বিকল্প নাই।

তো Backup বানিয়ে ফেলে নিশ্চিন্তে যেকোন ট্রিক্স ফলো করুন। কোন সমস্যা হলেই Backup File টা Restore করে ফেলবেন।
............................................................................................................................................................................................

.............................................................................................................................................................................................

যেকোন সফটওয়্যার ইনষ্টল এর জন্য ডিফল্ট একটা লোকেশন ঠিক করে দিনঃ
-----------------------------------------------
আমরা যেকোন সফটওয়্যার ইনষ্টল করার সময় যে জিনিসটা দেখি, সেটা হল সব সফটওয়্যার এর মেইন টার্গেট c:/progrm files. অথচ আমরা জানি যে কম্পিউটারকে রক্ষা করতে সি ড্রাইভ সুরক্ষিত রাখতে হয়। তাই বারবার এই ড্রাইভ চেঞ্জ না করে, একবারেই করে দিলে কেমন হয়। চলুন দেখি কিভাবে করা যায়।
প্রথমে Start > Run এ যান regedit টাইপ করে ওকে করুন।
এরপর HKEY_LOCAL_MACHINE > SOFTWARE > Microsoft > Windows > CurrentVersion সিলেক্ট করুন ।
ডান পাশের প্যান থেকে ProgramFilesDir খুজে বের করুন। (এত কিছু করতে না চাইলে রেজিষ্ট্রি ওপেন করে ctrl+F চাপুন এরপর ProgramFilesDir লিখে সার্চ দিন)
দেখবেন বাই ডিফল্ট এর ভ্যালু  C:\Program Files দেয়া আছে। আপনার পছন্দের যায়গাটির ঠিকানা দিয়ে দিন এর পরিবর্তে। ব্যাস।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি মাখন। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 37 টি টিউন ও 965 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমি একটা ফাজিল। সবসময় ফাজলামো করতে ভালোবাসি। আর আমি প্রায় সবসময় হাসিখুশি থাকি। আমাদের সমাজে সবার এত বেশি দুঃখ যে কাওকে একটু হাসতে দেখলেই মনে করে তার মাথার স্ক্রু কয়েকটা পড়ে গেছে। আমি তাদের সাথে একমত, আমার শরীরের যে অংশ আমাকে হাসতে দেবে না, আমার তার দরকারও নাই।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

খুব ই ভালো হয়েছে। অনেক সুন্দর জিনিস তুলে ধরেছেন। অনেকেই এটা করতে ভয় পায়। আসা করি এখন একটু ক্লিয়ার হবে। আরেকটা কথা মেনশন করে দিতে পারেন। সেটা হলো কনো চেন্জ করার আগে রেজিস্ট্রি বেকআপ রেখে নিতে পারে। তাহলে আর ভয়ের কনো কারন ই নাই। ধন্যবাদ আপনাকে। ভালো থাকুন

    :D:D ও আচ্ছা বেকআপ এর কথা বলা হয়েছে। খেয়াল করি নাই, 🙂 khub valo চালিয়ে যান

    ধন্যবাদ হে গুরু।

    হাহা, কাহেকা গুরু স্যার? আপনে আমার গুরু হয়ে যান। 😀 😀 😀

অনেক ভালো হয়েছে । আমি মাঝে মাঝেই registry & .vbs ফাইল নিয়ে লিখা লখি করি ।এবার তোমার টিউন টি পেয়ে সবাই registry ফাইল নিয়ে কাজ করতে আর ভয় পাবে না। আমি একজন সাপোর্টার পেলাম।।
🙂

    ও ভালো কথা । সিস্টেম রিস্টোর চালু থাকলে আর কোন ভয় নেই। তখন আর এত কস্ত করতে হবে না। তখন system restore an early date করে নিলেই কম্পিউটার আবার আগের চেহারায় চলে আসবে। 🙂

সাবধানে থাকবেন কেউ আবার আপনাকে খেয়ে ফেলতে পারে হা হা হা হা একটু মজা করলাম খুব ভাল টিউন

    ধন্যবাদ।(আমি ফাজলামীই বেশী পছন্দ করি)

thnx,,,,,,nice.

খুবেই সুন্দর হয়েছে ধন্যবাদ । রেজিষ্ট্রি নিয়ে আর ও টিউন চাই।

    চেষ্টা করব আরো কিছু বলার। আপনাকে ধন্যাবাদ।

আপ প্রোগ্রাম ফাইলস চেঞ্জ করার ট্রিকটি উইন্ডোজে কাটানো শেষ দিনগুলিতে খুজেছি, পাইনি। ভাই এত দেরি করে দিলেন কেন?

    আগে কিভাবে বলব আর কি বা বলতাম

মজার বিষয় হচ্ছে উইন্ডোজের এমন কোন সেটিংস নেই যেদি রেজিষ্ট্রি এডিটর থেকে চেঞ্জ করা সম্ভব নয়। কারণ রেজিষ্ট্রি মুলত উইন্ডোজ এবং এর সাপোর্টেড সমস্ত এপ্লিকেশনের (কিছু কিছু ক্ষেত্র বাদে) সেটিংস ডাটাবেস।
http://www.theeldergeek.com/registry_edits.htm এই লিংকে গেলে আরো অনেক কিছু প্রাকটিক্যালি জানতে পারবেন।
ভালো টিউন। ধন্যবাদ।

    আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। আমার একটা বিরাট সমস্যা আমি আবার ইংরেজী আর অংক একটু বেশীই বুঝি কিনা(৩৩ এর বেশী পাই নি কখনও)

ধন্যবাদ রুবেল ভাই সাইট টি শেয়ার করার জন্য।

ভাল একটা বিষয় উপস্থাপনার করলেন।
অনেক কিছু জানলাম এত কিছু আমার জানা ছিলনা।
শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ

    আয় হায়! এটা কি বলছেন, শুধু শুধু লজ্জা দিচ্ছেন কেন।

Er age registry theke edit korte gie anek bipod er sammukhin hoyechhilam,
Kintu ei tune ta te Back up rakhar tricks dekhe abar edit korte giechhilam.
Kintu tar falafal swarup laptop chalu kore password dilei automatic log off hoye abar restart hoye jachhilo.jotobar i password dichhilam,totabr i logg off hoye abar restart hocchilo.
aboseshe amake dui dui bar format dite holo.Jodio amio Back nie rekhechhilam(1.no.Registration Files (*.reg) chhara kono ta save korte parini.joto bar chesta korechhi,sab guloi ei format e save hoye gechhe. ar back up er samay etao kaj kore ni ba support kore ni.(bujhtei parchhen amar tokhon kar abostha).Jai hok,Ta o sab i aste aste recover korechhi. kintu windows mail gulo harie felechhi –jeta amar sab theke boro loss hoye gechhe.
Ami Vista use kori. Hoyto Vista r janne Registry editing ta thik na.
Aviggo Motamot er apekkhay roilam.
Thanks.

বিপাশা says:
১৯ নভেম্বর, ২০১০ at 7:03 অপরাহ্ন

Er age registry theke edit korte gie anek bipod er sammukhin hoyechhilam,
Kintu ei tune ta te Back up rakhar tricks dekhe abar edit korte giechhilam.
Kintu tar falafal swarup laptop chalu kore password dilei automatic log off hoye abar restart hoye jachhilo.jotobar i password dichhilam,totabr i logg off hoye abar restart hocchilo.
aboseshe amake dui dui bar format dite holo.Jodio amio Back nie rekhechhilam(1.no.Registration Files (*.reg) chhara kono ta save korte parini.joto bar chesta korechhi,sab guloi ei format e save hoye gechhe. ar back up er samay etao kaj kore ni ba support kore ni.(bujhtei parchhen amar tokhon kar abostha).Jai hok,Ta o sab i aste aste recover korechhi. kintu windows mail gulo harie felechhi –jeta amar sab theke boro loss hoye gechhe.
Ami Vista use kori. Hoyto Vista r janne Registry editing ta thik na.
Aviggo Motamot er apekkhay roilam.
Thanks.

    আপনি কি পরির্তন করেছিলেন? যাই হোক আপনি যদি hive ফরম্যাটে এক্সপোর্ট করেন তাহলে যে ফাইলটি তৈরি হবে তার কোন এক্সটেনশন থাকবে না। সেটি আপনাকে রেজিস্ট্রি এডিটর থেকে Import করতে হবে। আর আপনি কি সেভ মোডে খোলার চেষ্টা করেন নি। যাই হোক আপনাকে সরি বলা ছাড়া আমি কিছু করতে পারলাম না বলে দুঃখিত।