ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

চলুন ঘুরে আসি টেক্সট এডিটরদের রাজ্যে! কয়েকটি সেরা টেক্সট এডিটর

টিউন বিভাগ উইন্ডোস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

টেক্সট এডিটর হচ্ছে একধরণের কম্পিউটার প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার যেগুলো প্লেইন টেক্সট এডিট করে। “NotePad” কে তো আপনারা সবাই চিনেন। উইন্ডোজের সাথে বিল্ট-ইন ভাবে দেওয়া একটি টেক্সট এডিটর। “Notepad” খুবই সিম্পল একটি টেক্সট এডিটর। এছাড়া আরও অনেক থার্ড পার্টি টেক্সট এডিটর রয়েছে যেগুলো অনেক বেশি ফিচার সমৃদ্ধ। আজকের টিউনে এদেরকে নিয়েই বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করবো।

ADs by Techtunes ADs

Plain Text বনাম Rich Text

আমরা আগেই বলেছি টেক্সট এডিটরগুলো শুধুমাত্র Plain টেক্সট এডিট করে। প্লেইন টেক্সট ছাড়াও আরও একধরণের টেক্সট রয়েছে। সেটা হলো রিচ টেক্সট(Rich text)। এখন আমাদের জানতে এই দুই ধরনের টেক্সটের মধ্যে পার্থক্য কি?

যেগুলো আমরা Microsoft Word বা এরকম অন্যান্য টেক্সট এডিটরে এডিট করি সেগুলো হলো রিচ টেক্সট। রিচ টেক্সটগুলোকে বিভিন্ন ফরম্যাটে সাজানো যায়। যেমন টেক্সটকে কালার দেওয়া যায়, বোল্ড করা যায়, টেবিলে সাজানো যায়, লিস্ট তৈরি করা যায়। টেক্সটকে প্রেজেন্টেশন করানোর জন্য আমরা রিচ টেক্সট ব্যবহার করি।

অন্যদিকে প্লেইন টেক্সটকে তেমন কোন ফরম্যাট করা যায় না(শুধু স্পেস দিয়ে ইন্ডেন্টেশন করা যায়)। প্লেইন টেক্সটে শুধুমাত্র ক্যারেক্টার এবং সিম্বল থাকে। কোনরকম ছবি বা গ্রাফ চার্ট থাকে না। বিভিন্ন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজে কোডিং করার জন্য আমরা প্লেইন টেক্সট ব্যবহার করি। তাছাড়া প্লেইন টেক্সটের সাধারণ ফরম্যাট হলো.txt ফাইল।

টেক্সট এডিটর দিয়ে শুধুমাত্র প্লেইন টেক্সট এডিট করা যায়। বিভিন্ন প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজে কোডিং করার জন্য অসখ্য টেক্সট এডিটর রয়েছে। সেগুলোর মধ্যে সেরা কয়েকটি টেক্সট এডিটর নিয়ে আজকে আলোচনা করবো।

1. Sublime Text

আমি পারসোনালি Sublime Text এর চরম ফ্যান। তাই লিস্টে সবার আগে এটাকে না রেখে পারলাম না। Sublime Text খুবই হালকা এবং অসংখ্য ফিচার সমৃদ্ধ একটি স্মার্ট টেক্সট এডিটর। সেই সাথে Sublime Text ক্রস প্ল্যাটফর্ম সাপোর্টেড হওয়ায় আপনি চাইলে এটা উইন্ডোজের পাশাপাশি ম্যাক এবং লিনাক্সেও ব্যবহার করতে পারবেন।

Sublime Text এর সুবিধাগুলো হচ্ছে-

  • খুবই লাইটওয়েট অর্থাৎ কম রিসোর্স ইউজ করে।
  • ক্রস প্ল্যাটফর্ম সাপোর্টেড, যার ফলে ভিন্ন ভিন্ন প্ল্যাটফর্মের জন্য আলাদা লাইসেন্স কিনতে হবে না।
  • Split এডিটিং এর মাধ্যমে অনেকগুলো ট্যাবে বা অনেকগুলো উইন্ডোতে একসাথে কাজ করতে পারবেন। তাছাড়া অনেকগুলো লাইনে একসাথে কোড লিখতে পারবেন।
  • Python API সুবিধা থাকায় বিভিন্ন প্লাগিন ইন্সটল করা যায়। তাছাড়া এটাতে আপনি অনেকগুলো থিমও ইউজ করতে পারবেন।
  • Sublime Text খুবই ইউজার ফ্রেন্ডলি এবং হাইলি কাস্টমাইজেবল।

2.Atom

Atom একটি ওপেন সোর্স টেক্সট এডিটর সেই সাথে ক্রস প্ল্যাটফর্ম সাপোর্টেড। Atom ওয়েব ডেভেলপারসদের জন্য একটি চরম টেক্সট এডিটর। যারা এই টেক্সট এডিটরটি তৈরি করেছে তারাই বলে দিয়েছেন এটি শুধুমাত্র ডেভেলপারসদের জন্য তৈরি করা হয়েছে। Atom এ আপনি চাইলে এক্সট্রা প্যাকেজ এবং থিম ইন্সটল করে এডিটরটিকে আরও পারফেক্ট করে তুলতে পারবেন।

Atom এর সুবিধাগুলো হচ্ছে-

  • Atom এর রয়েছে বিশাল ডেভেলপারস কমিউনিটি যার ফলে আপনি প্রতিনিয়ত বিভিন্ন আপডেট পেতে থাকবেন।
  • রিয়াল টাইম কোড শেয়ারিং করার সুবিধা। অনেকজন ডেভেলপারস মিলে একসাথে একটা প্রোজেক্টে লাইভ কাজ করতে পারবেন।
  • Atom এর গিটহাব প্যাকেজও রয়েছে।
  • Atom এর সবচেয়ে মজার এবং ইউনিক ফিচার হচ্ছে অটো কমপ্লিশন(Auto Completion)।
  • ফাইল ব্রাউজিং সিস্টেম এবং “ফাইন্ড এন্ড রিপ্লেস” করার সুবিধা।
  • এটি একটি ফ্রী সফটওয়্যার।

3.Brackets

ADs by Techtunes ADs

Brackets অ্যাডোবি কোম্পানির একটি মডার্ণ, ওপেন সোর্স এবং টোটালি ফ্রী একটি টেক্সট এডিটর। যারা ওয়েব ডেভেলপিংয়ের কাজ করেন তাদের কাছে Brackets একটি জনপ্রিয় নাম। এটি উইন্ডোজের পাশাপাশি লিনাক্স এবং ম্যাকেও ব্যবহার করা যায়। Brackets এর ইন্টারফেস খুবই সিম্পল কিন্তু এটাতে রয়েছে অসংখ্য অ্যাডভান্স ফিচার।

Brackets এর সুবিধাগুলো হচ্ছে-

  • স্পেশালি ওয়েব ডেভেলপারসদের জন্য ডিজাইন করা।
  • গিটহাবের সাথে কানেক্টেড।
  • ক্রস প্ল্যাটফর্ম সাপোর্টেড।
  • Brackets এর মজার ফিচারটি হচ্ছে কোড লিখার সাথে সাথে লাইভ প্রিভিউ দেখার সুবিধা।
  • এক্সট্রা থিম এবং প্লাগিন ব্যবহার করার সুবিধা।

4.Notepad+

আমাদের লিস্টের সবচেয়ে পপুলার টেক্সট এডিটর হচ্ছে এই Notepad+. বলতে গেলে ওয়ার্ল্ড এর সবচেয়ে জনপ্রিয় টেক্সট এডিটর হচ্ছে Notepad+(অবশ্য Notepad ছাড়া)। আমি পারসোনালি এটা প্রচুর ব্যবহার করি। খুবই হালকা, কম রিসোর্স ইউজ করে, সিম্পল ইন্টারফেস, এক্সট্রা থিম প্লাগিন ইউজ করার সুবিধা। তাছাড়া এই টেক্সট এডিটরে কোন ঝামেলা ছাড়াই বাংলা লিখা যায়। যা এই লিস্টের অন্যান্য টেক্সট এডিটরগুলোতে লিখা যায় না। Notepad+ শুধুমাত্র উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের জন্য এভেইলেবল।

Notepad+ এর সুবিধাগুলো হচ্ছে-

  • Notepad+ সবার জন্য টোটালি ফ্রী একটি সফটওয়্যার।
  • এই টেক্সট এডিটরটি এখন পর্যন্ত ৮০ টিরও বেশি ভাষায় ট্রান্সলেট করা হয়েছে। আপনি চাইলে আপনার ভাষাতেও ট্রান্সলেট করতে পারেন। তাদের ওয়েবসাইটে ডকুমেন্টেশনও দেয়া আছে।
  • সাইন্টেক্স হাইলাইটিং এবং কোড ফোল্ডিং করার সুবিধা।
  • অটো কমপ্লিটেশন সুবিধা থাকায় একই কোড বারবার লিখা লাগে না।
  • Notepad+ এ এক্সট্রা থিম প্লাগিন ইউজ করে আরও দ্রুত কাজ করা যায়।
  • নতুনদের জন্য ফ্রেন্ডলি, কেবং ফানশনালিটি খুবই সহজ।

5.Visual Studio Code

Visual Studio Code মাইক্রোসফটের একটি প্রোডাক্ট। এটি একটি ওপেন সোর্স টেক্সট এডিটর এবং আপনি চাইলে এটা উইন্ডোজ, ম্যাক এবং লিনাক্সের জন্যও ডাউনলোড করতে পারবেন। এটাও একটা ফ্রী টেক্সট এডিটর। Visual Studio Code একটি অ্যাডভান্স টেক্সট এডিটর। হাই লেভেলের ডেভেলপাররা এটা ইউজ করে। Visual Studio Code এর ওয়েবসাইটে প্রচুর পরিমাণ রিসোর্স(ট্রিকস, কী-বোর্ড শর্টকাটস, ফাংশনালিটি) রয়েছে কিভাবে এটি ব্যবহার করতে হয়। অফিসিয়াল ব্লগ, রেগুলার আপডেট, বিশাল এক্সটেনশন লাইব্রেরি, API সুবিধা, এসবের কারণে Visual Studio Code হতে পারে একটি গ্রেট চয়েজ।

Visual Studio Code এর সুবিধাগুলো হচ্ছে-

  • বিশাল কমিউনিটি, রিসোর্স, ডকুমেন্টেশনের সুবিধা।
  • বিল্ট-ইন গিট কমান্ডের সুবিধা।
  • অটো কপ্লিটেশন এবং সাইন্টেক্স হাইলাইটিংয়ের সুবিধা।
  • এডিটরেই কোড ডিবাগিং করা যায়।
  • মাল্টি প্ল্যাটফর্ম সাপোর্টেড এবং টোটালি ফ্রী টেক্সট এডিটর।

6. Coda

Coda শুধুমাত্র ম্যাক অপারেটিং সিস্টেমে ব্যবহার করা যায়। এটি ফ্রিও না। এর এক একটা কপির দাম ৯৯ ডলার। কিন্তু Coda এই লিস্টের সবচেয়ে কুল একটি টেক্সট এডিটর। এই টেক্সট এডিটরের ইউজার ইন্টারফেস চরম বিউটিফুল যা অন্যান্য টেক্সট এডিটরের নেই। তাছাড়া এটাতে বেশকিছু ইউনিক এবং অ্যাডভান্স ফিচার রয়েছে যা সাধারণ টেক্সট এডিটরগুলোতে দেখা যায় না। এর সাথে আপনি পাবেন কাস্টমার সাপোর্ট, ফ্রী রিসোর্স এবং আরও অনেক কিছু।

Coda এর সুবিধাগুলো হচ্ছে-

  • এক ক্লিকে ফাইন্ড এন্ড রিপ্লেস করার সুবিধা।
  • ক্লীন এবং মডার্ণ ইউজার ইন্টারফেস।
  • এটা শুধুমাত্র ম্যাকের জন্য ডিজাইন করা, তাই ম্যাক লাভারসদের জন্য এটা হতে পারে সেরা চয়েজ।
  • iPhone অথবা iPad দিয়ে রিমোটলি কোড করার সুবিধা।

 

এগুলো ছাড়াও আরও কয়েকটি পপুলার এবং সেরা টেক্সট এডিটরগুলো হচ্ছে-

আমার ক্ষুদ্র কম্পিউটার লাইফে টেক্সট এডিটর নিয়ে অনেক মাতামাতি করেছি। সেই তুলনায় এই টিউনটিকে এতটাও তথ্যবহুল এবং আকর্ষণীয় করতে পারি নি। সেজন্য সরি। তবে পরবর্তীতে আরও ভালো ভালো টিউন করার চেস্টা করবো।

ADs by Techtunes ADs

টিউন-টি ভালো লাগলে একটা জোশ করুন এবং এমন আরও টিউন পেতে আমার প্রোফাইলটিকে ফলো করে রাখুন। আজ এই পর্যন্তই। আল্লাহ হাফেজ।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি রাকিব রিয়াদ। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 মাস 2 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 4 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

কম্পিউটার কিছুই করতে পারে না, জাস্ট আপনার প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে। -পাবলু পিকাসু


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস